পাবনায় মানব সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঘর পেলেন এক গৃহহীন | Nobobarta

পাবনায় মানব সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঘর পেলেন এক গৃহহীন

আর কে আকাশ, পাবনা জেলা প্রতিনিধি : হাটখালি ইউনিয়নের বাসিন্দা রেজি বেগমের মা-মেয়ে দুজনের সংসার, অভাব-অনটন ছিল তাদের নিত্যসঙ্গী। পরের বাড়িতে আশ্রিত ছিলেন। মা রেজি বেগম অন্যের বাড়িতে এবং মেয়ে গার্মেন্টস-এ কাজ করে ও এনজিও থেকে কিস্তি তুলে কিনেছেন ৩ শতক জায়গা। কিন্তু এক টুকরো জায়গা কিনলেও ঘর নির্মাণের সামর্থ্য তাদের ছিল না।

তাদের দুঃখ দুর্দশা দেখে সহায়তায় হাত বাড়িয়ে দিয়েছে মানব সেবা ফাউন্ডেশন। অবশেষে মানব সেবা ফাউন্ডেশনের চেস্টা ও উদ্যোগে রেজি বেগম নিজের থাকার জন্য একটি ঘর পেয়েছেন। তার আঙিনায় উপস্থিত থেকে ঘর নির্মাণের উদ্বোধন করেন, হাটখালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ি ও সমাজ সেবক আহম্মেদ ফিরোজ খান, এশিয়ান টিভির পাবনা জেলা প্রতিনিধি আর কে আকাশ, আনন্দ টিভির পাবনা জেলা প্রতিনিধি সেলিম মোর্শেদ রানা, কামালপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. রেজাউল করিম, এসআই আবু তাহের, সাবেক হাটখালি ইউপি চেয়ারম্যান আজাহার আলি শেখ, মানব সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মো. ওমর ফারুক বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক মো. রাজিব ফকির, হাটখালি ইউপি সদস্য শুকুর মল্লিক, সাবেক সদস্য মো. নুরুজ্জামান শিকদার লালু প্রমূখ।

মানব সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মো. ওমর ফারুক বিশ্বাস বলেন, এই বৃদ্ধার ঘর না থাকায় অন্যের বাড়িতে আশ্রয়ে ছিলেন। ঝড়-বৃষ্টিতে খুব কস্টে জীবন-যাপন করছিলেন। আমরা বিষয়টি জানার পর তার ঘর তৈরির জন্য সামাজিক মাধ্যমে (সোশ্যাল মিডিয়ায়) সহযোগিতার আহ্বান করি। আমাদের আহ্বানে বিশিষ্ট ব্যবসায়ি ও সমাজ সেবক আহম্মেদ ফিরোজ খান এবং আব্দুল জব্বার এগিয়ে আসেন। তাদের আর্থিক সহযোগিতায় ও মানব সেবা ফাউন্ডেশনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ঘর নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে।

Rudra Amin Books

বিশিষ্ট ব্যবসায়ি ও সমাজ সেবক আহম্মেদ ফিরোজ খান বলেন, হাটখালির কিছু তরুণ-উদ্যোমী যুবকদের নিয়ে গঠিত মানব সেবা ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার শুরু থেকেই গরীব-দুঃস্থ-অসহায় মানুষের পাশে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। আমি সমসময় ওদের পাশে থেকে সমাজের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করার চেস্টা করছি।

নিজের জন্য ঘর পেয়ে রেজি বেগম আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি বলেন, আমি পরের বাড়িতে কাজ করে এবং গার্মেন্টস-এ কাজ করা মেয়ের জমানো টাকা আর এনজিও থেকে কিস্তি তুলে ৩ শতক জায়গা কিনেছি। কিন্তু ঘর তোলার টাকা না থাকায় অন্যের বাড়িতে থাকতাম। মানব সেবা ফাউন্ডেশনের ছেলেদের কারণে এখন আমার মাথা গোঁজার ঠাঁই হয়েছে। আল্লাহ ওদের ভালো করুক।

তাদের উদ্যোগের প্রশংসা করে সংগঠনের উপদেষ্টা সাংবাদিক সেলিম মোর্শেদ রানা বলেন, প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই “মানব সেবা ফাউন্ডেশন” বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজ করে যাচ্ছে। আগামী দিনেও সংগঠনটি আরও ভালো কাজ করবে বলে আমি প্রত্যাশা করি।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.