যবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের বিস্ময়কর উদ্ভাবন | Nobobarta

যবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের বিস্ময়কর উদ্ভাবন

কৃষ্ণ বালা, যবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ
অসুস্থ ও বৃদ্ধ ব্যক্তির চলাচল, প্রতিবন্ধী যারা দাঁড়াতে বা হাঁটতে পারে না তাদের জন্য যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনারিং বিভাগের একদল শিক্ষার্থী মিলে তৈরি করেছেন সৌরচালিত অটো স্কুটার যা ঘন্টায় প্রায় ২৫ কিলোমিটার বেগে চলতে সক্ষম।

যবিপ্রবির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান, মিনহাজুল হক, রাহাত হোসেন ও মোহাম্মদ তারেক তিনমাস কাজ করে দেশে প্রথম এই অটো স্কুটারটি উদ্ভাবন করেন।

স্কুটারটি অটো স্কুটার হিসেবে তৈরি করা হয়েছে। বাজারে প্রচলিত যেসব স্কুটার আছে সেগুলোকে পায়ে ঠেলে চালানো হয়। তাছাড়া এই অটো স্কুটারটির পুরো নিয়ন্ত্রণ স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালকের হাতে থাকবে। চালু ও বন্ধ করার জন্য জন্য রয়েছে মোটর বাইকের মত চাবি। গিয়ার বক্স ব্যবহার করার মাধ্যমে চালক তার ইচ্ছে মত গতি বাড়াতে ও কমাতে পারবেন। দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য পায়ে ব্রেক আর রাতে চলাচল জন্য হেড লাইট ও হর্ন লাগানো হয়েছে।

শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান জানান, স্কুটারটি মূলত তৈরি করা হয়েছে হাটতে অসমর্থ এমন বৃদ্ধ ব্যক্তি, প্রতিবন্ধী যারা কোনো কিছু ধরে দাঁড়াতে পারে কিন্তু হাটতে পারে না তাদের জন্য কম ঝুকিপূর্ণ এলাকা যেমন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস, পার্ক, নদীর পাড়ে এ স্কুটার নিয়ে চলাচল করা নিরাপদ। কোনো কারনে ল্যাপটপ অথবা মুঠোফোনের চার্জ শেষ হলে গেলেও এটির মাধ্যমে চার্জ করে নেয়া যাবে।

Rudra Amin Books

মেহেদী হাসান আরও জানান, স্কুটারটি আমরা নিজেদের গবেষণাকক্ষ ও স্থানীয় একটি স্টিল ওয়ার্কশপে তৈরি করেছি আর খরচ হয়েছে মাত্র ১৫০০০ টাকা। দেশে অনেক স্কুটার আছে যেগুলো পায়ে ঠেলে চালনা করতে হয় কিন্তু এই স্কুটারটি চালক দাঁড়িয়ে থেকে নিজের ইচ্ছা ও সুবিধামত নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। স্কুটারটিতে আরও কিছু নতুনত্ব আসছে যা পুরোপুরি নিজেদের অর্থায়নে সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান তিনি।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.