আজ শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ০৮:৫৮ পূর্বাহ্ন

মাটি কাটার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঘিওরে সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ৯, আটক ৬

মাটি কাটার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঘিওরে সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ৯, আটক ৬

  • 5
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
    5
    Shares

মানিকগঞ্জের ঘিওরে মাটি কাটার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রামবাসী ও এশিউর নামের একটি কোম্পানীর কর্মচারীদের মাঝে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার বালিয়াখোড়া বাষ্টিয়া, পুরানগ্রাম এলাকায় দফায় দফায় সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৯ জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলো, এশিউর কোম্পানীর ম্যানেজার মোঃ লিয়াকত হোসেন, ফিল্ড অফিসার মামুন অর রশিদ, কর্মচারী মোঃ মিলন শেখ, ড্রামট্রাকের চালক কলিম উদ্দিন, গ্রামবাসী মালেক দেওয়ান, হযরত আলী। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে গেলে গ্রামবাসীর হামলার শিকার হন ৩ পুলিশ সদস্য।

আহতদের জেলা সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় পুরো এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। আবারো যে কোন সময় বড় ধরনের সংঘর্ষে আশংকায় রয়েছেন সাধারন মানুষ। পুলিশ গ্রামের প্রতিটি বাড়িতে বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ৬ জনকে আটক করে। আটককৃতরা হলো, পুরান গ্রামের কাশেম আলীর ছেলে পাশান আলী, টুকানের ছেলে মাদাইরা, নছের আলীর ছেলে পরান, বিদু মিয়ার ছেলে সালাম, বাষ্টিয়া গ্রামের রহম উদ্দিনের ছেলে শহিদ। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

এশিউর কোম্পানীর ম্যানেজার মোঃ লিয়াকত হোসেন জানান, গত কয়েক মাস ধরে কোম্পানীর জায়গায় ভেকু দিয়ে মাটি কাটার কাজ চলছে। যাতে পাশের কোন জমির ক্ষতি না হয়, সেজন্য কাঁটাতার দিয়ে বেড়া দেওয়া হয়েছে। গত সোমবার মাটি ফেলার সময় ড্রাম ট্রাকের চাকায় পাশ্ববর্তী সামুউদ্দিনের ক্ষেতের ভূট্টা গাছ ভেঙ্গে যায়। এতে সামুউদ্দিন এসে কোম্পানীর মালিকসহ উপস্থিত কর্মচারীদের অকথ্য ভাষায় গালাগালিজ করে। পরে মালিকপক্ষ ভূট্টাক্ষেতের ক্ষতিপূরণ দেয়ার আশ্বাস দেয়। কিন্তু তাও সামুউদ্দিন শান্ত না হয়ে তার আত্মীয় স্বজন ডেকে এনে ট্রাক ড্রাইভারকে মারধর করে। মালিকপক্ষ কোনো উপায় না পেয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগ করায় মঙ্গলবার দুপুরে গ্রামের প্রায় দুইশতাধীক লোকজন কাচি, দা, লাঠি নিয়ে কোম্পানীর লোক ও ভেকু, ড্রামট্রাকের উপরে হামলা চালায়। ভেকুর গ্লাস, ড্রামট্রাকের গ্লাস ভেঙ্গে ফেলে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক গ্রামবাসী জানান, ঘিওর উপজেলার বালিয়াখোড়া ইউনিয়নের পুরান গ্রাম, ভালকুটিয়া ও বালিয়াখোড়া এই তিনটি মৌজার মধ্যকার বেশ কিছু ৩ ফসলি জমি থেকে বিক্ষিপ্তভাবে এশিউর কোম্পানি নামের একটি প্রতিষ্ঠান মাটি কেটে নিচ্ছে। এছাড়াও ওই কোম্পানি ক্ষেতের মাঝখান দিয়ে তাদের কেনা জমিতে অনাকাঙ্খিত কাটাতারের বেড়া দিয়ে কৃষকদের কাজে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। কিছু জায়গায় ৩ ফসলি জমি খনন করে মাটি উত্তোলনের ফলে পাশ্ববর্তী ফসলি জমিগুলো ভেঙ্গে যাচ্ছে। কিছু দালাল চক্রের মাধ্যমে কোম্পানি সাধারণ কৃষকদের জমি স্বল্পমূল্যে ক্রয়ের জন্যই এভাবে বিক্ষিপ্তভাবে মাটি কেটে কৃষকদের চাষাবাদে সমস্যার সৃষ্টি করে। সেই সাথে অনেক কৃষককে জমি বিক্রির জন্য ভয়ভীতিও দেখাচ্ছে। কাটাতারের বেড়া দেওয়ার কারনে স্থানীয়রা কবরাস্থানে যেতেও পারছেনা। অবিলম্বে ওই কোম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসকসহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

ঘটনাস্থলে থাকা ঘিওর থানার এস আই আলতাফ হোসেন জানান, সংঘর্ষে উভয় পক্ষের কিছু লোক আহত হয়েছেন। তবে কোন পুলিশ সদস্য আহত হয়নি। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে গেলে তো অল্পসল্প আঘাত লাগতেই পারে। ঘিওর থানার ওসি তদন্ত আনিসুল হক জানান, বাষ্টিয়া-পুরাণগ্রামে সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনাস্থলের পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। তিনি আরো জানান, কোন নিরীহ লোক যেন হয়রানী না হয় এবং প্রকৃত অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার জোর তৎপরতা চলছে।

উল্লেখ্য এই এশিউর কোম্পানির হাত থেকে ফসলি জমি রক্ষার দাবীতে মানিকগঞ্জে মানববন্ধন করেছিল শতাধিক কৃষক। মানববন্ধন শেষে তারা এর প্রতিকার চেয়ে ভুক্তভোগী কৃষকরা জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি ও গণস্বাক্ষর দিয়েছেন। এছাড়াও পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাব, উপজেলা ভূমি অফিস ও স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত অভিযোগের অনুলিপি প্রদান করে। মাটি কাটা ও চাপে ফেলে কৃষি জমি বেচা কেনা নিয়ে ইতিপূর্বে মারামারি ও মামলার ঘটনাও ঘটেছে। এসব ঘটনা নিয়ে এশিউর কোম্পানী ও গ্রামবাসীর মধ্যে দ্বন্দ দীর্ঘদিন যাবত চলে আসছিল বলে একাধিক সূত্র মারফত জানা গেছে।

লাইক দিন এবং শেয়ার করুন




Leave a Reply

কে এই যুবক? টিস্যু দিয়ে বঙ্গবন্ধুর বিকৃত ছবি পরিস্কার করছে



Nobobarta on Twitter

© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com