আজ মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ০২:০৪ অপরাহ্ন

ভাইকে হারিয়ে বাবাকে নিয়ে দুই বোনের আহাজারি

ভাইকে হারিয়ে বাবাকে নিয়ে দুই বোনের আহাজারি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  

 

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:
সংসারের একমাত্র উপার্জনকারী নূর আলম। সেই কী কখনও জানতো মৃত্যু যে তার এতটা নিকটে। পরিবারের সকলের স্বপ্ন নুর আলম পূরণ করতেন। যখন ঘড়ির কাঁটা রাত সাড়ে ৩ টা বাজে। হঠাৎ নূর আলম ঘুম থেকে উঠে বলে বাবা আমি গ্যাসের জন্য পাম্পে যাচ্ছি। গ্যাস নিয়ে এসে সকালে নোয়াখালীর চাটখিলে যাবো। গ্যাস নিয়ে আসার পথে চন্দ্রগঞ্জ পৌঁছলে একটি শিশুসহ ৬ জন যাত্রী গাড়ির অপেক্ষায়। তখন নূর আলম তাদেরকে নিয়ে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল উদ্দেশ্য রওনা হলে লক্ষ্মীপুর-ঢাকামহাসড়কের পশ্চিম মান্দারী পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা মালবাহী ট্রাক তার সিএনজিকে চাপা দেয়। এতে নূর আলমসহ তার ৬ যাত্রী ঘটনাস্থলে মারা যায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার-সার্ভিসে কর্মীরা এসে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে পাঠাই।
সকাল ১১ টার দিকে লাশ-কাটা ঘরে পাশে বসে-বসে নূর আলমের বৃদ্ধ বাবা নূর মোহাম্মদ আকাশের দিকে তাকিয়ে বাকরুদ্ধ অবস্থায় বসে আছে। মাঝে-মাঝে কান্না-কাটি করে। কিছুক্ষণ পর তার দুই মেয়ে পাকি বেগম ও লাকি আক্তার দুই পাশে বসে বৃদ্ধ বাবাকে জড়িয়ে কান্না ভেঙে পড়েন।

মাঝে-মাঝে তাদের ভাঙা-ভাঙা কন্ঠে বেরিয়ে আসে নূর আলম ছিলো তাদের শত স্বপ্ন। কী হবে এখন তাদের সংসারের? কে তাদের বাবা-মাকে দেখবে? নূর আলমের প্রতিবন্ধী ৬ বছরের ছেলের কী হবে? ৭মাস বয়সী মিরাজ বুঝি বাবা বলে ডাকতে পারবে না! এমন শত প্রশ্ন পাকি ও লাকির মুখে।
সিএনজি (চালক) নূর আলম লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ৬ নং বাঙাখাঁ ইউনিয়নের নেয়ামতপুর গ্রামের মাঝের বাড়ির নূর মোহাম্মদের একমাত্র ছেলে।

প্রসঙ্গ : বুধবার (২৩ জানুয়ারি) ভোররাতে লক্ষ্মীপুর-ঢাকা মহাসড়কের পশ্চিম মান্দারী এলাকায় ট্রাক ও সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে সিএনজি অটোরিক্ব্রাটি ৬ যাত্রী নিয়ে ধুমড়ে-মুচড়ে যায়। সংঘর্ষে একই পরিবারে ৬ জনসহ সিএনজি চালক নুর আলম ঘটনাস্থলে মারা যায়।

লাইক দিন এবং শেয়ার করুন




Leave a Reply

জনসম্মুখে পুরুষ নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল

Nobobarta on Twitter

© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com