দিল্লির সহিংসতায় নিহত বেড়ে ১৮, আহত ২০০ | Nobobarta

আজ শনিবার, ১১ এপ্রিল ২০২০, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ন

দিল্লির সহিংসতায় নিহত বেড়ে ১৮, আহত ২০০

দিল্লির সহিংসতায় নিহত বেড়ে ১৮, আহত ২০০

Rudra Amin Books

ভারতের রাজধানী দিল্লির পরিস্থিতি আরো খারাপ হচ্ছে। নাগরিকত্ব আইন সংশোধন (সিএএ) দিল্লিতে গত রবিবার যে সংঘাতের সূত্রপাত হয়েছিল, তা আরো ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। সংঘাত শুরুর পর থেকে তিনদিনে গতকাল মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাত পর্যন্ত এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ মোট ১৮ জন নিহত হয়েছে। আহতের সংখ্যা দেড় শতাধিক। হতাহতদের মধ্যে হিন্দু-মুসলমান উভয়েই রয়েছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দিল্লির চার জায়গায় জারি হয়েছে কারফিউ। সেইসাথে জারি হয়েছে ‘শ্যুট অ্যাট সাইট’ (দেখা মাত্র গুলির) অর্ডার। মৌজপুর, চাঁদবাগ, করওয়ালনগর, জাফরাবাদে জারি হয়েছে কারফিউ। উসকানিমূলক মন্তব্য করলেই গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দুইদিনের ভারত সফরের মধ্যেই ওই সংঘাত শুরু হয়। ই পরিস্থিতি বিব্রতকর অবস্থায় ফেলেছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে, কেননা ট্রাম্পের সফর হারিয়ে যাচ্ছে সহিংসতার খবরের কাছে।রাষ্ট্রীয় অতিথির সামনে যাতে আরো অপ্রীতিকর কিছু ঘটে না যায়, সে জন্য মঙ্গলবার যথেষ্ট ওয়াকিবহাল ছিল কেন্দ্র। তা সত্ত্বেও লাভ হয়নি। ক্রমেই বেড়ে চলেছে সংঘর্ষ। দফায় দফায় সংঘর্ষে মঙ্গলবার রণক্ষেত্রে রূপ নিয়েছিল দিল্লির মুসলমান অধ্যুষিত উত্তর-পূর্বাঞ্চল। বিবিসি বলেছে, দিল্লিতে এমন সহিংসতা গত কয়েক দশকেও দেখা যায়নি।

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় দিল্লি পুলিশের তরফে দায়ের করা হয়েছে ১১টি এফআইআর। মঙ্গলবার দুপুর থেকে নজরদারির কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে ড্রোন। দিল্লির ১০টি এলাকায় জারি রয়েছে ১৪৪ ধারা। উত্তেজনা যেন না ছড়ায়, সেজন্য বেসরকারি টেলিভিশনগুলোকে সংঘাতের খবর প্রচারের ক্ষেত্রে সাবধান করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এদিকে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এই উন্মত্ততা বন্ধ করে হিন্দু-মুসলিম উভয় পক্ষকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

সোমবারের নজিরবিহীন সহিংসতার পরে মঙ্গলবার সকাল থেকেই উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে নিরাপত্তার জন্য মোতায়েন করা হয়েছিল অতিরিক্ত র‍্যাফ, আধা সেনা ও দিল্লি পুলিশের বিশাল বাহিনী। তারপরেও মঙ্গলবার সারাদিন উত্তর-পূর্ব দিল্লির বিস্তীর্ণ অংশে ব্যাপক সহিংসতা দেখা যায়। চাঁদবাগ, ভজনপুরা, গোকুলপুরী, জাফরাবাদ, ব্রহ্মপুরী, কবীরনগর, মৌজপুর চক, করাওলনগর, সর্বত্র নজিরবিহীন সহিংসতা দেখা গেছে মঙ্গলবার সারাদিন ধরে।সংঘর্ষ চরম আকার ধারণ করায় সোমবারই দিল্লির একাধিক মেট্রো স্টেশন বন্ধ রাখা হয়েছিল। মঙ্গলবারও জাফরাবাদ, মৌজপুর-বাবরপুর, গোকুলপুরী, জোহরি এনক্লেভ ও শিব বিহার স্টেশন বন্ধ রাখা হয়। উত্তর-পূর্ব দিল্লির সব সরকারি ও বেসরকারি স্কুল বন্ধ রাখা হয়েছে।

হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকার বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) পাস করার পর থেকে ভারতের মুসলমানরা ক্ষোভে ফুঁসছে। এই আইন বাতিলের দাবিতে নানা কর্মসূচিও চালিয়ে যাচ্ছিল তারা। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি আইনের পক্ষে কর্মসূচি নিয়ে নামলে দেখা দেয় সংঘাত। রবিবার সংঘাত শুরুর পরদিনই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার প্রথম ভারত সফর শুরু করেন। সেদিনই নিহত হন এক পুলিশ কনস্টেবলসহ চারজন।

-এনডিটিভি ও এই সময়


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta