আজ বৃহস্পতিবার, ২০ Jun ২০১৯, ০৯:১৮ পূর্বাহ্ন

১৫ দিনেও উদ্ধার হয়নি লক্ষ্মীপুরে চাঞ্চল্যকর স্কুল ছাত্রী হত্যা মামলার বাদী

১৫ দিনেও উদ্ধার হয়নি লক্ষ্মীপুরে চাঞ্চল্যকর স্কুল ছাত্রী হত্যা মামলার বাদী

  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
    3
    Shares

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:
লক্ষ্মীপুরে চাঞ্চল্যকর স্কুল ছাত্রী শিলা হত্যা মামলার বাদী নুর জাহান বেগম নয়ন অপহরনের ১৫ দিনও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। এর আগে গত ৫ মার্চ লক্ষ্মীপুর আদালতে আসার পথে নুর জাহান বেগম নয়নকে কে বা কারা অপহরণ করে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেছে নয়ন বেগমের মেয়ে শিমু আক্তার ও স্বামী দুলাল হোসেন। হত্যা মামলা দায়েরের পর থেকে আসামীরা বাদী নুরজাহান বেগম নয়নকে বিভিন্ন সময় প্রকাশ্যে হত্যার হুমকীও দিয়ে আসছিল বলে জানিয়েছেন তারা।

জানা যায়, নুর জাহান বেগম নয়নের মেয়ে শিমু আক্তার অপহরনের দিন রাতে (গত ৫মার্চ) চন্দ্রগঞ্জ থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরী করার পর তদন্ত কর্মকর্তা দত্তপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক জসিম উদ্দিনকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হলে তদন্ত কাজ না করে নিরব ভুমিকা পালন করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছে বাদী শিমু আক্তার। এ দিকে শিমু আক্তার তার মাকে উদ্ধার করার জন্য গত ৭ মার্চ বিকালে র‌্যাব ১১ এর লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পে কোম্পানী কমান্ডার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও এখন পর্যন্ত র‌্যাবও কোন সন্ধান করতে পারেনি বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে জানতে চাইলে দত্তপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ও পুলিশ পরিদর্শক জসিম উদ্দিন জানান, তিনি তদন্ত কাজ শুরু করলেও অসুস্থতা ও নানা ব্যস্থতার কারণে তদন্ত কাজ পুরোপুরি শুরু করতে পারেননি। নুর জাহান বেগম নয়নের মোবাইল কল লিষ্ট এর আবেদন করা হলেও এখনো তা তার হাতে এসে পৌঁছায়নি।

এ দিকে কোন উপায়অন্ত না পেয়ে নয়নের মেয়ে শিমু আক্তার বাদী হয়ে তার মায়ের দায়েরকৃত মামলার আসামী সহ ১১ জনের বিরুদ্ধে লক্ষ্মীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী অঞ্চল চন্দ্রগঞ্জের আদালতে ১০ মার্চ একটি অপহরণ মামলার দায়ের করলে আদালত মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিগেশন (পিবিআই) নোয়াখালীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। মামলাটি গত সোমবার পিবিআই কার্যালয়ে পৌঁছেছে। তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ হওয়ার পর পিবিআই তাদের কার্যক্রম শুরু করবেন বলে জানা যায়।

এ দিকে থানায় সাধারণ ডায়েরী ও র‌্যাবের কাছে লিখিত অভিযোগ এবং আদালতে অপহরণ মামলা দায়ের করার পর থেকে মামলার আসামী ইছমাইল, ফিরোজ, আমির হোসেন তাদের অনুগতদের নিয়ে বাদী ও স্বাক্ষী এবং অপহৃত নুরজাহান বেগম নয়নের আতœীয় স্বজনদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মামলা প্রত্যাহারের জন্য প্রকাশ্যে হুমকী ধমকী দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন বাদী শিমু আক্তার, তার বাবা দুলাল হোসেন, শ্বশুর নুর নবী ও খালা বেবী আক্তার। মামলা প্রত্যাহার না করা হলে তাদেরও নুরজাহান বেগম নয়নের পরিণতি ভোগ করতে হবে বলে হুমকী দিচ্ছেন আসামীরা। ফলে তারা চরম নিরাপত্তা হীনতার কারণে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তারা।

উল্যেখ্য, গেল বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারী লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার উত্তর জয়পুর ইউনিয়নের গোপালপুর দ্বারিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী শিলা আক্তারকে (১৩) একই বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অমানবিক নির্যাতনে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে খবর পেয়ে স্বজনরা তাকে মর্মূষ অবস্থায় উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত শিলা একই উপজেলার উত্তর জয়পুর গ্রামের দুলাল হোসেনের মেয়ে। এ ঘটনায় নিহত শিলার মা নুর জাহান বেগম নয়ন বাদী হয়ে একই বছরের ২৮মে লক্ষ্মীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। মামলা দায়েরের পর থেকে আসামী ও তাদের লোকজন মামলা তুলে নেওয়ার জন্য তাদের প্রাণে হত্যাসহ নানা ভাবে হুমকী ধমকী এবং দুইবার শিলার বাবা দুলাল হোসেনকে শারিরিক ভাবে লাঞ্চিত করেছিল। গত ৫মার্চ সকালে একটি ভাড়া করা সিএনজি অটো রিক্সায় যোগে আদালতে আসার পথে মামলার বাদী নুর জাহান বেগম নয়ন পথি মধ্যে নিখোঁজ হয়।

হত্যা মামলার বাদী নুর জাহান বেগম নয়নকে উদ্ধার করার জন্য আইনশৃংখলা বাহিনী ও স্বরষ্ট্র মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন অপহৃত নুর জাহান বেগম নয়নের স্বজনরা।

লাইক দিন এবং শেয়ার করুন




Leave a Reply

কে এই যুবক? টিস্যু দিয়ে বঙ্গবন্ধুর বিকৃত ছবি পরিস্কার করছে



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com