আজ শেখ রেহেনা'র ৬৬তম জন্মবার্ষিকী | Nobobarta

আজ শেখ রেহেনা’র ৬৬তম জন্মবার্ষিকী

সব সময়েই নেপথ্যে তিনি। রাজনীতিতে সরাসরি যুক্ত না হয়েও দেশের উন্নয়ন আর সমৃদ্ধির প্রশ্নে ছায়ার মতো আগলে রাখেন বড় বোনকে। তিনি শেখ রেহানা। জাতির পিতার হত্যার প্রতিবাদে আওয়াজ তুলেছিলেন বিদেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে যখন নির্মমভাবে হত্যা করা হয় তখন বিদেশে থাকায় বেঁচে যান তার দুই কন্যা। তাদেরই একজন শেখ রেহানা।

পিতাসহ পুরো পরিবারের অকাল প্রয়াণে দুই বোন দিনের পর দিন থেকেছেন ঠিকানাবিহীন, বিদেশের পথে-প্রান্তরে কিংবা পালিয়ে থাকা অন্দরে। ১৯৫৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর জন্ম নেন শেখ রেহানা। ৭৫ এর পর নির্মম বাস্তবতায় সাজানো বাগান থেকে তাকে নামতে হয় বৈরি পৃথিবীর অনিশ্চিত পথে। সে সময় মিথ্যার রাজনীতি দেশে-বিদেশে। তখন ১৯৭৯ সালের ১০ মে লন্ডনে সর্ব ইউরোপীয় বাকশালের আন্তর্জাতিক সম্মেলনে তিনিই প্রথম পিতা ও জাতীয় চার নেতা হত্যার বিচারের দাবি তোলেন।

রাজনীতি সচেতন শেখ রেহানা সরাসরি আসেননি পিতা কিংবা বড় বোনের মতো জনতার মঞ্চে। কিন্তু ছায়ার মতো আগলে রেখেছেন প্রতিটি ধাপে, প্রজ্ঞা ও সাহসিকতা নিয়ে। নির্বাসিত জীবনে ১৯৭৭ সালে তিনি বিয়ে করেন অধ্যাপক ড. শফিক আহমেদ সিদ্দিককে। সব হারিয়েও মহিয়সী এই নারী মমতার বাঁধনে পরিবার সামলে কাজ করেন দেশের জন্য।

জাতির পিতার কনিষ্ঠ কন্যা মানুষের সামনে সরাসরি না এলেও শেখ রেহানা এখনো প্রতিনিয়ত পরোক্ষ যুদ্ধে লিপ্ত, পিতার সোনার বাংলা গড়তে। সব হারিয়েও যিনি নিবেদিত প্রাণ হয়ে আছেন, অগণিত মুক্তিকামী মানুষের জন্য।

Rudra Amin Books
ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.