করোনার ভ্যাকসিনে শতভাগ সাফল্য | Nobobarta

আজ রবিবার, ৩১ মে ২০২০, ১২:২৫ পূর্বাহ্ন

করোনার ভ্যাকসিনে শতভাগ সাফল্য

করোনার ভ্যাকসিনে শতভাগ সাফল্য

Rudra Amin Books

দীর্ঘদিন ধরে করোনাভাইরাস মহামারি প্রতিরোধে ভ্যাকসিন তৈরির কাজ চলছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। তবে বিজ্ঞানীরা নিশ্চিতভাবে সেই পথে বহুদূর পর্যন্ত এগিয়েছেন-তা নিয়ে সন্দেহ নেই। সম্প্রতি বানরের শরীরে একটি নতুন উদ্ভাবিত ভ্যাকসিন (প্রতিষেধক) প্রথমবার প্রয়োগ করে শতভাগ সাফল্য পেয়েছেন চীনা বিজ্ঞানীরা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউ-এর প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, পিকোভ্যাক নামে ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছে বেইজিংভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সিনোভ্যাক বায়োটেক। এতে প্রচলিত ভাইরাসপ্রতিরোধী প্রক্রিয়াই অনুসরণ করা হয়েছে। কোনো প্রাণীর শরীরে এটি প্রয়োগ করলে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়, যা ভাইরাস প্রতিরোধ ক্ষমতা জাগিয়ে তোলে।

সায়েন্স ম্যাগাজিনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, সম্প্রতি রিসাস ম্যাকাকিউস প্রজাতির একদল বানরের শরীরে নতুন ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করেন চীনা গবেষকরা। এর তিন সপ্তাহ পরে বানরগুলোকে করোনাভাইরাসের সংস্পর্শে নেওয়া হয়।

এক সপ্তাহ পরে দেখা যায়, যেসব বানরের শরীরে বেশি মাত্রায় ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছিল তাদের ফুসফুসে করোনার উপস্থিতি নেই, অর্থাৎ ভ্যাকসিনটি ভাইরাস প্রতিরোধে সক্ষম হয়েছে। আর যেসব বানরকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়নি তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এবং তাদের শরীরে নিউমোনিয়ার উপসর্গ দেখা দিয়েছে। গত এপ্রিলের মাঝামাঝি মানবদেহেও পিকোভ্যাকের ট্রায়াল শুরু হয়েছে।

এদিকে, করোনা মোকাবিলায় পিকোভ্যাকই একমাত্র ভরসা নয়। একই প্রক্রিয়া অনুসরণ করে প্রায় একই ধরনের আরেকটি ভ্যাকসিন তৈরি করেছে চীনা সেনাবাহিনী। ইতিমধ্যেই হিউম্যান ট্রায়ালের দ্বিতীয় ধাপে প্রবেশ করেছে এটি।


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta