অনুমোদন ছাড়াই সাইনবোর্ড টাঙিয়ে জয়পুরহাটে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্য! | Nobobarta

আজ বুধবার, ০৩ Jun ২০২০, ১২:৩৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
অনুমোদন ছাড়াই সাইনবোর্ড টাঙিয়ে জয়পুরহাটে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্য!

অনুমোদন ছাড়াই সাইনবোর্ড টাঙিয়ে জয়পুরহাটে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্য!

Rudra Amin Books

শফিউল বারী রাসেল, জয়পুরহাট : শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের অনুমোদন ছাড়াই জয়পুরহাটের কালাইয়ে গড়ে তোলা হয়েছে মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ। অভিযোগ, প্রতিষ্ঠানটি সাইনবোর্ড টানিয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে শুরু করেছে বানিজ্য। প্রতিষ্ঠান প্রধানের দাবি নিয়ম মেনেই সবকিছু হচ্ছে। শিক্ষা বিভাগ বলছে এটি সম্পূর্ণ অবৈধ।

জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার আন্দারী মোড়ে কৃষি জমির মাঝখানে এবছরই নির্মান করা হয়েছে টিনের চালার তৈরী দুটি কক্ষ। সেখানে যাওয়ার মতো কোনো সড়ক না থাকলেও ঘর দুটিকে ২০১৭ সালে স্থাপিত মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ উল্লেখ করে সাইনবোর্ড ঝুলানো হয়েছে। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অনুমতি ছাড়া কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে টেকনিক্যাল শব্দটি ব্যবহার করার বিধান না থাকলেও কোন অনুমোদন না নিয়েই রাতারাতি গড়ে তোলা হয়েছে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি। জনবল নিয়োগে প্রতিষ্ঠানটি মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদিত উল্লেখ করে স্থানীয় পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ইতোমধ্যে অবৈধভাবে ৭১ জনকে নিয়োগ দিয়েছে। এদিকে প্রতিষ্ঠানটির সাইনবোর্ডে মুক্তিযোদ্ধাদের দ্বারা পরিচালিত বলে উল্লেখ থাকলেও প্রতিষ্ঠানটি সম্পর্কে তেমন কোন তথ্য জানেন না স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা। শিক্ষা বিভাগ বলছে, এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি সম্পুর্ন নিয়ম বর্হিভূতভাবে গড়ে তোলা হয়েছে।

কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অনুমতি ছাড়া কিভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে টেকনিক্যাল শব্দটি ব্যবহার করছেন এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ আফওয়াসিফ বলেন, বিধি মেনেই তাদের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। কালাই উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের কমান্ডার রেজাউল ইসলাম বলেন, এই কার্যক্রমের সাথে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কতটুকু জড়িত সে সম্পর্কে জানা নেই। মুক্তিযোদ্ধাদের নাম ভাঙ্গিয়ে কেউ যেনো বাণিজ্য না করতে পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার আহবান জানিয়েছেন তিনি।

এ ব্যাপারে জয়পুরহাটের ভারপ্রাপ্ত জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শাহাদুজ্জামান বলেন, মুক্তিযোদ্ধা টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের কোন তথ্য জেলা শিক্ষা অফিসে সংরক্ষিত নেই। কোন প্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষক, প্রভাষক নিয়োগের ক্ষেত্রে এটিআরসিএ কর্তৃক চাহিদা প্রদান পূর্বক এটিআরসিএ উক্ত শিক্ষা প্রতিষ্টানে সহকারী শিক্ষক বা প্রভাষক পদে নিয়োগ প্রদান করবে। কোন ম্যানেজিং কমিটি বা গভর্নং বডি কোন নিয়োগ প্রদান করার ক্ষমতা রাখেনা। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: মুনিরুজ্জামান বলেন, কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করতে হলে কারিগরী শিক্ষা বোর্ডের অনুমতি ও কোড নং প্রয়োজন হয়। অনুমোদন ছাড়া এভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করা যাবেনা। অভিযোগ প্রমাণিত হলে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta