লক্ষ্মীপুরে তরুনীকে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় ৪ আসামী রিমান্ডে | Nobobarta

আজ বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ০৩:২৭ অপরাহ্ন

লক্ষ্মীপুরে তরুনীকে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় ৪ আসামী রিমান্ডে

লক্ষ্মীপুরে তরুনীকে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় ৪ আসামী রিমান্ডে

Rudra Amin Books

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:
স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইতে গিয়ে লক্ষ্মীপুরে কমলনগরে কেরোসিন ঢেলে তরুনী শাহেনুর আক্তারকে হত্যা মামলা গ্রেপ্তারকৃত ৪ আসামীকে আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫দিনের রিমান্ডের আবেদন করছে পুলিশ। আজ বুধবার দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. তারিক আজিজের আদালতে হাজির করা হয়। পরে শুনানী শেষে বিচারক প্রত্যেক আসামীর ২দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। জজকোর্টের পাবলিক প্রসিউকিটর মো. জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। আসামীরা হচ্ছেন, তরুনীর স্বামী সালাউদ্দিনের দুই ভাই আবদুর রহমান, আলাউদ্দিন, চরফলকন ইউনিয়নের ইউপি সদস্য হাফিজ উদ্দিন ও গ্রাম পুলিশ আবু তাহের।

এর আগে সোমবার রাতে নিহত তরুনী শাহেনুর আক্তারের বাবা জাফর আলম বাদী হয়ে স্বামী সালাউদ্দিনসহ ১৩জনকে আসামী করে কমলনগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় গ্রেপ্তারকৃত ৪ আসামী ছাড়াও শাহেনুর আক্তারের স্বামী সালাউদ্দিনসহ অন্য অজ্ঞাত ৮ আসামী পলাতক রয়েছে।

কোর্ট পরিদর্শক (ওসি) পিপিএম মো. শহীদ উল্ল্যাহ জানান, তরুনী হত্যাকান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫দিন করে রিমান্ড চাওয়া হয়েছে। বিজ্ঞ আদালত শুনানী শেষে দুইদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গত ৬ মাস আগে মোবাইল ফোনে সালাউদ্দনিরে সঙ্গে পরিচয় হয় চট্টগ্রামের রাউজানের তরুণী সাহানুর আক্তারের। পরিচয় থেকে প্রেম তারপর প্রায় দেড় বছর আগে কাজী অফিসে বিয়ে করে তারা। গত ৬ মাস আগে তরুণী জানতে পারে সালাউদ্দনি বিবাহিত। এই কথা শোনার পর বেশ কয়েকবার কমলনগরে স্ত্রীর স্বীকৃতির জন্য সালাউদ্দিনের কাছে ছুটে আসে সে। শুক্রবার আবারো সালাউদ্দিনের কাছে লক্ষীপুরে আসে শাহেনুর। স্ত্রী’র স্বীকৃতি না দিলে সে ফিরে যাবেনা বলেও জানায়। এতে স্বামী সালাউদ্দিন রাজি না হওয়ায় স্থানীয় ইউপি সদস্য ও চৌকিদারের সহায়তায় এক সালিশ বৈঠকের আয়োজন করা হয়। সালিশ বৈঠকে শাহেনুর আক্তারকে নানা ভাবে তিরস্কার অপমান অপদস্থ করে এবং এলাকা থেকে চলে যেতে বলে তারা। কিন্তু সে যেতে অস্বীকৃতি জানালে রোববার বিকেলে ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় স্বামী সালাউদ্দিনসহ অন্যরা শাহেনুর আক্তারের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিলে সে মারাত্মকভাবে দগ্ধ হয়। পরে একটি সয়াবিন ক্ষেত থেকে আগুনে দগ্ধ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয় এলাকাবাসী। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ণ ইউনিটে পাঠানো হয় শাহেনুর আক্তারকে। সোমবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় তরণী শাহেনুর আক্তার।


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta