কে হচ্ছে ফটিকছড়ি উপজেলার চেয়ারম্যান! | Nobobarta

আজ সোমবার, ০১ Jun ২০২০, ০২:২৩ অপরাহ্ন

কে হচ্ছে ফটিকছড়ি উপজেলার চেয়ারম্যান!

কে হচ্ছে ফটিকছড়ি উপজেলার চেয়ারম্যান!

Fotikchhori-14032019

Rudra Amin Books

সীরাত মঞ্জুর, ফটিকছড়ি প্রতিনিধিঃ আগামী ১৮মার্চ দ্বিতীয় দফায় পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ১২৯টি উপজেলার মধ্যে রয়েছে ফটিকছড়ি বৃহত্তর উপজেলাও। এবারে চেয়ারম্যান পদে দ্বিমুখী লড়াইয়ের জন্য একই দলের দুই হেভিওয়েট প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী এইচ এম আবু তৈয়ব ও নাজিম উদ্দীন মুহুরি।

ইতিমধ্যে মাঠ ঘাট চষে বেড়াচ্ছেন এই দুই প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা। নির্বাচনে বিরোধী দল অংশ না নেওয়ায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী, উপজেলা আঃলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নাজিম উদ্দীন মুহুরির বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোটযুদ্ধে অংশ নিয়েছেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ নেতা, উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হোসাইন মোঃ আবু তৈয়ব। অন্যদিকে ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ত্রিমুখী লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিয়েছেন প্রার্থীরা।

ফটিকছড়ি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে একই দলের হেভিওয়েট দুই প্রার্থী, সমান তালে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে মাঠে ময়দানে। তুলে ধরছেন নিজের ব্যাক্তিত্ব, দেখা যাচ্ছে আনারস প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী এইচ এম আবু তৈয়বের রাজনীতির নেতৃত্বের ক্যারিয়ার ততটা হালকা নয়। তিনি ছাত্রজীবন থেকে ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদের দায়িত্ব পালন করে আসছেন সর্বপরি চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতা হিসাবেও পরিচিত। তিনি তার রাজনীতি জীবনের ক্যারিবিয়াকে কাজে লাগিয়ে আসন্ন উপজেলা পরিষদের ‘সোনার মুকুট’ জেতার লড়াইয়ে। উপজেলার পৌরসভাসহ ১৯টি ইউনিয়নের দিনরাত আলাদা আলাদা কেন্দ্র পরিচালনা কমিটির মাধ্যমে প্রচারণার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, ফটিকছড়ি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী আলহাজ্ব নাজিম উদ্দীন মুহুরি দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে নির্বাচনি মাঠ ছুটে চলছেন রাতদিন। তাহলে কে পরবে ফটিকছড়ি উপজেলা পরিষদের বিজয়ের সেই সোনার মুকুট! এই প্রশ্নের জবাব মিলবে, শুধুমাত্র ১৮মার্চ নির্বাচন শেষে। নৌকার মাঝি নাজিম মুহুরি বলেন, আমি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাস করি। ভোটারদের প্রতি আমার আস্থা আছে। অপর দিকে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু তৈয়ব বলেন, দীর্ঘদিন ফটিকছড়ি উপজেলা অভিভাবকশূন্য ছিল। জনগন এখন বুঝতে শিখেছে। সুতরাং জনগণ অভিভাবকশূন্যতা অনুভব করবে এমন কাউকে ভোট দিবেনা।


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta