চুয়াডাঙ্গায় বন্ধুকে বাজারে পাঠিয়ে তার স্ত্রীকে গণধর্ষণ! | Nobobarta

আজ সোমবার, ০১ Jun ২০২০, ০৫:০৫ পূর্বাহ্ন

চুয়াডাঙ্গায় বন্ধুকে বাজারে পাঠিয়ে তার স্ত্রীকে গণধর্ষণ!

চুয়াডাঙ্গায় বন্ধুকে বাজারে পাঠিয়ে তার স্ত্রীকে গণধর্ষণ!

Rudra Amin Books

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় বন্ধুকে বাজারে পাঠিয়ে তার স্ত্রীকে গণধর্ষণ করেছে অপর দুই বন্ধু। এ ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার (৩০ অক্টোবর) ওই নারী তার বাড়ির পাশে ধর্ষণের শিকার হন। পরে শুক্রবার (১ নভেম্বর) তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অভিযুক্ত দুজন হলো মিলন হোসেন ওরফে মিলো (৩৫) সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের যদুপুর গ্রামের মসজিদপাড়ার আবদুস সাত্তারের ছেলে ও একই গ্রামের মৃত জাফর মণ্ডলের ছেলে ওয়াসিম (৩০)।

এ ঘটনায় ওই নারীর স্বামী আবদুল হালিম তার দুই বন্ধুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় মামলা করেছেন। পরে পুলিশ অভিযুক্ত ওয়াসিমকে যদুপুর বাজার থেকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানায়, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের যদুপুর গ্রামের মসজিদপাড়ার মিলন ও ওয়াসিমের সাথে আবদুল হালিমের বন্ধুত্ব গড়ে উঠে। বন্ধুত্বের খাতিরে তারা একে অপরের বাড়িতে যাতায়াত করতো। একপর্যায়ে গত বুধবার (৩০ অক্টোবর) মিলন তার জমির পেপে ও কলা বিক্রি করার জন্য হালিমকে যশোর পাঠায়। এ সময় বুধবার রাত ৯টার দিকে হালিমের স্ত্রী ঘরের পাশে মুরগির খামার দেখাশোনা করে ঘরে ফেরার সময় মিলন ও ওয়াসিম তাকে মুখ চেপে ধরে পাশের ইদ্রিস আলীর কলাবাগানে নিয়ে যায়।

এরপর সেখানে তারা দুজন ওই নারীকে গণধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায়। পরে সে বাড়ি এসে স্বজনদের কাছে ঘটনা জানায়। হালিম যশোর থেকে বাড়ি এসে তার স্ত্রীকে শুক্রবার হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় তার দুই বন্ধুর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি (তদন্ত) লুৎফুল কবীর জানান, খবর পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে ধর্ষণের শিকার ওই নারীর খোঁজখবর নেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে তার স্বামীর সঙ্গে কথা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বিষয়টির তদন্ত চলছে। এরমধ্যেই অভিযুক্ত একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং অপরজনকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ওই নারী শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে।


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta