রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় বাবা-ছেলে নিহত | Nobobarta

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় বাবা-ছেলে নিহত

ঢাকা প্রতিনিধি : রাজধানীর যাত্রাবাড়ী কোনাপাড়ায় মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাবা ও ছেলে নিহত হয়েছে। রবিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় আনিসুর রহমান বাবুলকে (৫৫) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত পৌনে ১০টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় তার ছেলে সাদমান রাহিম (২২) ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

নিহত আনিসুরের শ্যালক মো. মাহমুদ জানান, আনিসুর রহমান বাবুল দুই ছেলে ও স্ত্রী পরিবার নিয়ে মাতুয়াইল মধ্যপাড়া ৩৯ নম্বর বাসায় থাকেন। এটি তাদের স্থায়ী ঠিকানা। গ্রিন রোডে টাইলসের ব্যবসা রয়েছে তার। তার বড় ছেলে সাদমান রাহিম বোরহানউদ্দিন কলেজের অনার্সের ২য় বর্ষের ছাত্র।

তিনি জানান, সন্ধ্যার দিকে খবর পাই তারা বাবা-ছেলে যাত্রাবাড়ী কোনাপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে। তাদের কোনাপাড়ার ফেমাস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। পরে সেখানে গিয়ে তাদেরকে মুমূর্ষু অবস্থায় দেখতে পাই। সেখানকার চিকিৎসকরা রাহিমকে মৃত ঘোষণা করে। তার মৃতদেহ বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আর আহত আনিসুরকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতালে তাদের সঙ্গে আসা প্রতিবেশী সাদমান সাকিব ও জাকারিয়া আহমেদ নামের দুই যুবক জানান, বড় ছেলে সাদমান রাহিম ও ছোট ছেলে সাদমান ফাহিমসহ বাবা আনিসুর ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় টিভিএস মোটরসাইকেল সার্ভিস সেন্টারে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে একটি মোটরসাইকেলে রাহিম ও তার বাবা আনিসুর রহমান এবং আরেকটি মোটরসাইকেলে ফাহিম ফিরছিল। কোনাপাড়া ধার্মিকপাড়া এলাকায় রাহিম অন্য একটি মোটরসাইকেলকে অতিক্রম করার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কা খায়। এতে তারা বাবা-ছেলে দুইজনে গুরুতর আহত হয়। পরে সেখান থেকে তাদের পাশের ফেমাস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

Rudra Amin Books

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া আনিসুর রহমানের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তার মৃতদেহ মর্গে রাখা হয়েছে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

0 Shares
Share
Tweet
Share
Pin