ব্রীজ ভেঙে ভোগান্তিতে হিজুলিয়া গ্রামবাসী | Nobobarta

আজ মঙ্গলবার, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১১:৩২মি:

সংবাদ শিরোনাম:
এই মুহূর্তে বাংলাদেশ থেকে ওমরাহ করার সুযোগ নেই : প্রতিমন্ত্রী শিক্ষক নিয়োগ ও প্রশিক্ষণে আসছে পরিবর্তন : শিক্ষামন্ত্রী গফরগাঁও পৌর নির্বাচনে বিভিন্ন পদে ৩৩ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল মাত্র ৫ টাকায় সারাদিন ইন্টারনেট ব্যবহার! কুমার নদের তীরের তিন’শ মিটার ধ্বস, দরিদ্র মানুষের মানবেতর জীবন যাপন টাঙ্গাইলে ধলেশ্বরী নদীতে এক কিলোমিটারের মধ্যে ৫টি অবৈধ বাংলা ড্রেজার! মহান বিজয় দিবসের ঘরোয়া অনুষ্ঠানেও লাগবে অনুমতি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙ্গে ফেলার হুমকির প্রতিবাদে টাঙ্গাইলে গণমিছিল দুশ্চিন্তায় ভারত, ব্রহ্মপুত্রে বাঁধ দিচ্ছে চীন জাবিতে স্নাতক পরীক্ষা গ্রহণের দাবি, প্রশাসনিক ভবন অবরোধের আল্টিমেটাম
ব্রীজ ভেঙে ভোগান্তিতে হিজুলিয়া গ্রামবাসী

ব্রীজ ভেঙে ভোগান্তিতে হিজুলিয়া গ্রামবাসী

নিজস্ব সংবাদদাতা, বড়টিয়া : মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার বড়টিয়া ইউনিয়নের হিজুলিয়া গ্রামের ব্রীজ ভেঙে যাওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছেন তিনটি গ্রামের তিন সহস্রাধিক মানুষ। আজ সোমবার হিজুলিয়া গ্রামে ইছামতি খালের উপরে ব্রীজটি ভেঙে পড়ে।

দীর্ঘদিন ধরে অযত্ন আর অবহেলায় এভাবে পড়ে ছিল ইছামতি নদীর উপর এই জরাজীর্ণ ব্রীজটি। একেবারে চলাচলের অনুপযোগী হওয়া সত্তেও নিরুপায় গ্রামবাসী এই ব্রীজ ব্যবহারে বাধ্য ছিল। কখনো কখনো ঘটছে ছোট খাটো দুর্ঘটনাও। কিন্তু এ যেন দেখার কেউ নেই। হিজুলীয়া গ্রাম সহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষের চলাচল এই ব্রীজ দিয়ে। প্রতিদিন কয়েক হাজার লোকজন এ ব্রীজটি দিয়ে পারাপার হয়ে থাকে। ব্রীজটির দুপাশে রেলিং ভেঙ্গে গেছে অনেক আগেই। ব্রীজটি বহু পুরানো হওয়ায় ইট, সুরকি, খোয়া প্রতিনিয়ত খুলে খুলে পড়ে যাচ্ছিলল প্রতিনিয়তই।

কিছুদিন আগে ব্রীজটির মাঝখানে ফাটল ধরে। প্রশাসনের নিকট আবেদন করেও, এই ব্রীজটি পুনরায় নির্মাণে কোনো উদ্দ্যোগ ছিলো না বলাই যায়। বিকল্প সেতু হিসবে গ্রামবাসী তৈরি করেছে বাঁশের সেতু, যা শুধু মানুষ চলাচলে সক্ষম, ভারী মালামাল বহন করা সম্ভব নয়, এমতাবস্থায় বিপাকে পড়েছে তিন সহস্রাধিক মানুষ।

গ্রামবাসী জানায়, ব্রীজটি ভেঙে পড়ায় স্কুল ও কলেজ শিক্ষার্থী এবং কৃষকরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। চাষীরা তাদের ফসল বিক্রি করতে সদরে যেতো। স্কুল ও কলেজ শিক্ষার্থীর পাশাপাশি সহস্রাধিক মানুষ এই ব্রীজ ব্যবহার করতো। ব্রীজটি ভেঙে খালে পড়ে গেলে কেউ হতাহত হয়নি বলে জানান গ্রামবাসী।

Rudra Amin Books

সবজি বিক্রেতা বলেন, এই ব্রীজ পার হয়ে আমরা সবজি বিক্রি করতে উপজেলা সদরে যেতাম। বাঁশের সেতু দিয়ে সবজি নিয়ে খাল পার হওয়া ঝুঁকিপূর্ণ। আমরা শিগগির ব্রীজটির মেরামতের দাবি জানাই।

আপনার মতামত লিখুন :


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সংরক্ষণাগার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta