মারজুককে ‘তুচ্ছ’ করায় জবাব দিলেন ফারুকী | Nobobarta

মারজুককে ‘তুচ্ছ’ করায় জবাব দিলেন ফারুকী

পড়ার সময়:2 মিনিট, 45 সেকেন্ড

অভিনেতা ও গীতিকার মারজুক রাসেলের কবিতার সংকলন ‘দেহবন্টনবিষয়ক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর’ এসেছে একুশে বইমেলায়। বইটি নিয়ে মারজুকের ভক্তদের হুড়োহুড়ি বেশ আলোচনাও তৈরি করেছে। অল্পসময়ে শেষ হয়ে যায় প্রকাশকের মজুদ। এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যও করেছেন অনেকে। কবিতা হয়-হয় না বা নানান প্রসঙ্গ এসেছে সেখানে।

এমন তাচ্ছিল্য নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় মন্তব্য করলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। মূলত লেখক ও শিক্ষক আজফার হোসেনের মন্তব্য তাকে কিছু লিখতে বাধ্য করলো। আজফার রবিবার সকালে লেখেন, “বেয়াদপি মাফ করবেন। অজ্ঞতাও মাফ করবেন (অজ্ঞ তো বটেই)। কিন্তু এই মারজুক রাসেল কেডায় আসলে?” ‘টেলিভিশন’ নির্মাতা বিকেলে নিজের দীর্ঘ পোস্টে প্রসঙ্গটি টেনে এনে লেখেন, “এই অবজ্ঞার আরেকটা নমুনা দেখলাম আজফার হোসেনের পোস্টে। সেখানে উনি মারজুক রাসেল কেডা এটা জানতে চাইছেন। তা জানতে চাইতেই পারেন। না জানলে জানতে চাওয়াটা দোষের কিছু না।

কিন্তু এই ধরনের পোস্টের উদ্দেশ্য যে ‘জানতে চাওয়া’ না হইয়া ‘তুচ্ছ করতে চাওয়াও’ হইতে পারে এটা আজিকার শিশুরাও বোঝে। আজফার ভাইয়ের কাজ কর্মের প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে। সত্যিই যদি উনি জানতে চাইতেন তাহলে কাউরে জিগাইলেই পারতেন। বা ওর দুয়েকটা কবিতা ঘাইটা পড়লেও পারতেন। পড়ার পর উনার ভালো লাগতে পারতো, খারাপও লাগতে পারতো। উনি ভাবতেই পারতেন এই কবিতার বই কেনার কি আছে। মানুষের হরেক রুচি। কারো এইটা ভালো লাগে, তো আরেকজনের ঐটা ভালো লাগে।” অনেক জনপ্রিয় গানের গীতিকারের পরিচিতি আরও বিস্তারিত জানাতে পোস্টের শেষে মারজুকের মা-বাবার নাম, গ্রাম, জন্ম তারিখ উল্লেখ করেছেন ফারুকী।

*ব্যবহৃত কোটেশনে লেখকের বানান অপরিবর্তিত

Rudra Amin Books

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

0 Shares
Share
Tweet
Share
Pin