ঝুলন্ত তার অপসারণের অভিযান বন্ধ, মাটির নিচ দিয়ে তার নেওয়া শুরু | Nobobarta

ঝুলন্ত তার অপসারণের অভিযান বন্ধ, মাটির নিচ দিয়ে তার নেওয়া শুরু

ঢাকা দক্ষিণ সিটির করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস জানিয়েছেন, আগামী সোমবার থেকে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ঝুলন্ত তার মাটির নিচ দিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু হবে। সম্প্রতি দুই সিটির ঝুলন্ত তার অপসারণ অভিযানের পর এ সিদ্ধান্ত নিলো কেবল অপারেটররা।

রোববার নগর ভবনে ক্যাবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন ও ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের সাথে মতবিনিময় শেষে মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। মেয়র জানান, ভূগর্ভস্থভাবে তার ফিটিংয়ে সব ধরনের জরিমানা, ফি ও ক্ষতিপূরণ আদায় করবে না দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। আর এক্ষেত্রে গ্রাহকের ওপর বাড়তি কোনো চাপ পড়বে না বলে জানিয়েছে আইএসপিএবি ও কোয়াব এর নেতারা।

অন্যদিকে সোমবার থেকে কাজ শুরুর কথা জানিয়েছেন তারা। কোয়াব ও আইএসপিএবি নিজ উদ্যোগে তার অপসারণ করবে। বৃহত্তর স্বার্থে তারের জঞ্জাল সরানোর জন্য দক্ষিণ সিটি করপোরেশন সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। এ বিষয়ে আর দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের বলেন, আইএসপিগুলো নভেম্বরের মধ্যেই ঝুলন্ত তার সরিয়ে মাটির নিচে নেবে বলে জানিয়েছে। এজন্য নভেম্বর পর্যন্ত তার কাটার অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। মাটির নিচে তার নেয়ার জন্য সড়ক-সহ অন্য কোন কিছু কাটার প্রয়োজন হলে সেজন্য অনুমতি দিয়ে সাহায্য করবে সিটি কর্পোরেশন।

আইএসপিএবি বলছে, তারা আগামীকাল (সোমবার) থেকেই মাটির নিচে তার নেয়ার কাজ শুরু করবে। নভেম্বরের মধ্যে পাইলট প্রকল্প হিসেবে কয়েকটি রাস্তার তার মাটির নিচে নেয়ার কাজও শেষ হবে বলে জানাচ্ছেন আইএসপিএবি-র মহাসচিব হক। তবে পুরো দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে এই সেবা দেয়ার জন্য দুই বছর সময় চেয়েছে আইএসপিএবি। রাস্তা খোঁড়াখুড়ি করতে গিয়ে কোন ক্ষয়ক্ষতি হলে সেক্ষেত্রে জরিমানা এবং অনুমোদন নেয়ার ক্ষেত্রে আর্থিক ব্যয় মওকুফেরও দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

Rudra Amin Books

আইএসপিএবি বলছে, এ ব্যাপারে ইতিবাচক আশ্বাস পেয়েছে তারা। আর দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের বলছেন, আইএসপিগুলো নভেম্বরের মধ্যেই ঝুলন্ত তার সরিয়ে মাটির নিচে নেবে বলে জানিয়েছে। এজন্য নভেম্বর পর্যন্ত তার কাটার অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। নাছের বলছেন, মাটির নিচে তার নেয়ার জন্য সড়ক-সহ অন্য কোন কিছু কাটার প্রয়োজন হলে সেজন্য অনুমতি দিয়ে সাহায্য করবে সিটি কর্পোরেশন।

আইএসপিএবি বলছে, তারা আগামীকাল (সোমবার) থেকেই মাটির নিচে তার নেয়ার কাজ শুরু করবে। নভেম্বরের মধ্যে পাইলট প্রকল্প হিসেবে কয়েকটি রাস্তার তার মাটির নিচে নেয়ার কাজও শেষ হবে বলে জানাচ্ছেন আইএসপিএবি-র মহাসচিব হক। তবে পুরো দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে এই সেবা দেয়ার জন্য দুই বছর সময় চেয়েছে আইএসপিএবি।

রাস্তা খোঁড়াখুড়ি করতে গিয়ে কোন ক্ষয়ক্ষতি হলে সেক্ষেত্রে জরিমানা এবং অনুমোদন নেয়ার ক্ষেত্রে আর্থিক ব্যয় মওকুফেরও দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। আইএসপিএবি বলছে, এ ব্যাপারে ইতিবাচক আশ্বাস পেয়েছে তারা।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

7 Shares
Share7
Tweet
Share
Pin