গার্মেন্টস কর্মীদের মানুষ ভাবুন : ডা.জয়প্রকাশ সরকার | Nobobarta

আজ সোমবার, ০১ Jun ২০২০, ০৩:০১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
গার্মেন্টস কর্মীদের মানুষ ভাবুন : ডা.জয়প্রকাশ সরকার

গার্মেন্টস কর্মীদের মানুষ ভাবুন : ডা.জয়প্রকাশ সরকার

Rudra Amin Books

করোনার হটস্পট ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুরে গার্মেন্টস কারখানাগুলো খুলে দেয়া হলো কথিত সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার অজুহাতে। বস্তুতঃ কয়েকদিনের মধ্যেই অনেক কর্মী করোনা আক্রান্ত হয়ে যার যার দেশের বাড়ীতে করোনা সহকারে ফিরবে নিশ্চিত। ততদিনে গার্মেন্টসের মালিকরা সরকারি প্রণোদনার টাকা পকেটে নিয়ে ডুগডুগি বাজাতে থাকবে।

তাহলে বিগত একমাস ধরে দেশটা বন্ধ রেখে কি লাভ হলো? যেখানে হটস্পটগুলোকে কারফিউ বা ১৪৪ ধারা দিয়ে সম্পূর্ণ আলাদা করা জরুরী ছিলো,সেখানে সব শিথিল করার কি কারণ বুঝলাম না! কষ্ট করে যদি ফল তোলা না যায়,কষ্টেরই কি বা কারণ?

আমার নিজস্ব ধারণামতে, জুলাইয়ের প্রথমদিকেই বাংলাদেশে করোনাসঙ্কটের সম্পূর্ণ অবসান হয়ে যেতো! সময়টা অনেক অবশ্য,কিন্তু উপায় নাই।এই সময়ে হয়তো অটোইমিউনিটি তৈরী হবে,নয়তো করোনা গঠনগত দূর্বলতায় পড়বে (ধারণায় তিনমাস প্রায়); মোটকথা মানুষ মরবে না করোনায়।

কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান জুন মাসে খোলা যেতে পারতো,এর আগে নয়। ইতিমধ্যে গার্মেন্টসগুলো চালু করে অযথা সংক্রমন বাড়ানো হলো।এতে শুধু তারাই নয়,তাদের পরিবারের সদস্যরা,বাড়ীতে ফেরার পরে এলাকার লোকেরাও সংক্রমণের শিকার হবে।করোনার সাথে পথচলাটা অনেক দীর্ঘায়িত হলো সাথে মৃত্যু তো আছেই। এই মৃত্যুর দায়ভার কার?এসি রুমে বসা দো’পায়ারাই শুধু মানুষ নন,গার্মেন্টস কর্মীদের মানুষ ভাবার চেষ্টা করুন।

ডা.জয়প্রকাশ সরকার : কবি,লেখক ও চিকিৎসক।


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta