শ্রীপুরে আপত্তিকর ভিডিও ধারণে জামালের আত্নহত্যা – Nobobarta

আজ বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:১৭ অপরাহ্ন

শ্রীপুরে আপত্তিকর ভিডিও ধারণে জামালের আত্নহত্যা

শ্রীপুরে আপত্তিকর ভিডিও ধারণে জামালের আত্নহত্যা

Gazipur map-Nobobarta

মাহবুবুর রহমান, গাজীপুর প্রতিনিধিঃ বেশ কয়েক দিন ধরেই জামাল উদ্দিনের (৩৫) কাছে চাঁদা দাবি করে আসছিল স্থানীয় কয়েকজন বখাটে। তাদের দাবি করা দুই লাখ টাকা না দেওয়ায় গত রোববার জামালকে বৃন্দাবন সরকারি জঙ্গলে নিয়ে আপত্তিকর ভিডিও করে ওই বখাটেরা।

পরিবারের দাবি, এ সময় তাঁকে বলাৎকারের চেষ্টা করা হয়। এসব সইতে না পেরে গতকাল সোমবার সকালে জামাল আত্মহত্যা করেন। গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটী ইউনিয়নের টেপিরবাড়ীতে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে। স্থানীয় লোকজন ও নিহতের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জামাল উদ্দিন দীর্ঘদিন বিদেশে চাকরি করেছেন। পরে দেশে ফিরে কৃষিকাজ শুরু করেন।

সম্প্রতি স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হওয়ায় স্ত্রী তাদের একমাত্র সন্তান হৃদয়কে নিয়ে বাবার বাড়িতে চলে গেছেন। গতকাল সকালে আশপাশের লোকজন জামালকে থাকার ঘরের বারান্দার ধরনার(আড়ার) সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। পরে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে গাজীপুরের শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। নিহতের পরিবারের সদস্যরা দাবি করেন, স্থানীয় পিন্টু, শাওন, সাদেক, সজল, রনিসহ বেশ কয়েকজন জামালের কাছে টাকা দাবি করে। টাকা না দেওয়ায় গত রোববার তাঁরা জামালকে স্থানীয় বৃন্দাবন সরকারি জঙ্গলের র্নিজন স্থানে নিয়ে যায়। তাঁর সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা কেড়ে নেয় বখাটেরা। তাঁকে বলাৎকারের চেষ্টা করে এবং সেসব দৃশ্য মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করে রাখে। সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা দাবি করে। দ্রুত টাকা দেওয়ার আশ্বাস দিলে তাঁরা তাঁকে ছেড়ে দেয়। জামাল বাড়ি ফিরে স্বজনদের বিষয়টি জানান। তিনি একদম চুপসে যান। লজ্জায় বাইরে বের হননি। সারা দিন ঘরের ভেতরে ছিলেন। পরের দিন তিনি আত্মহত্যা করেন। লজ্জা-অপমান সইতে না পেরে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে স্বজনদের দাবি।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে হৃদয় বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে শ্রীপুর থানায় মামলা করেছেন। শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক নয়ন ভূঁইয়া বলেন, জামালের মরদেহ উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহামেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী আমাদের প্রতিনিধিকে জানান, এ ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে একজনকে আটক করে (নাম জানা যায়নি)আজ মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের আটকের চেষ্টা চলছে। একাধিক সূত্রমতে জানা গেছে, আসামীরা স্থানীয় প্রভাশালী এক নেতার ছত্রছায়ায় থেকে নানা অপর্কম করে আসছে।বিষয়টি নিয়ে এলাকায় নিন্দার ঝড় বইছে এবং দোষীদের দ্রুত আটক করে কঠোর শাস্তির দাবি করছেন স্থানীয়রা।


Leave a Reply