গবিতে অগ্নিসেতু'র আয়োজনে বিদ্যাসাগরের জন্ম বার্ষিকীতে আলোচনা সভা | Nobobarta

আজ বুধবার, ০৩ Jun ২০২০, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
লালপুরে সাব-রেজিষ্ট্রারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগে মানববন্ধন নালিতাবাড়ী পশু চিকিৎসকের কক্ষে গৃহকর্মীকে ‘ধর্ষণ’ অপ্রয়োজনীয় সিজারিয়ান ডেলিভারি থেকে বিরত থাকুন নতুন ১ হাজার ২৫৬ জনকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে বগুড়ায় মানববন্ধন বগুড়ায় একদিনে করোনা আক্রান্ত ৫৭ সরকার জনগণের কল্যাণের কথাই বেশি চিন্তা করছে : প্রধানমন্ত্রী সিলেট খাদিম নগরে ‘তারা’ বাহিনীর কাছে জিম্মি এক পরিবার: আইনানুগ হস্তক্ষেপ কামনা কলাপাড়া রিপোর্টার্স ক্লাবের সদস্যদের মাঝে সুরক্ষা সামগ্রী হস্তান্তর আটোয়ারীতে প্রধানমন্ত্রী’র মানবিক সহায়তার প্যাকেট পৌঁছে দিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান
গবিতে অগ্নিসেতু’র আয়োজনে বিদ্যাসাগরের জন্ম বার্ষিকীতে আলোচনা সভা

গবিতে অগ্নিসেতু’র আয়োজনে বিদ্যাসাগরের জন্ম বার্ষিকীতে আলোচনা সভা

Rudra Amin Books

গণ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি : ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দ্বিশততম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে সাহিত্য পাঠের আসর ও আলোচনা সভা হয়েছে সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের। বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম সাংস্কৃতিক সংগঠন অগ্নিসেতু সাংস্কৃতিক পরিষদের আয়োজনে,২৬ সেপ্টেম্বর ( বৃহস্পতিবার) বিশ্ববিদ্যালয়ের মিডিয়া চত্ত্বরে সাহিত্য পাঠের আসরের মধ্য দিয়ে ঈশ্বর চন্দ্র বিদ্যাসাগরের বর্ণাঢ্য জীবন নিয়ে আলোচনা করা হয়।

এসময়ে বিদ্যাসাগরের জীবন নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে অগ্নিসেতুর সাংস্কৃতিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অরূপ দাস শ্যাম বলেন, “ঈশ্বর চন্দ্র বিদ্যাসাগর ছিলেন ভারতের মহাপুরুষ।তিনি সব সময় সমাজ সংস্কারমূলক কাজ করতেন ও অন্যায়ের প্রতিবাদ করতেন।সমাজ সংস্কার করতে গিয়ে তিনি নিজ সন্তানকেও তাজ্য করেছেন । ভাবতেও অবাক লাগে, আজ এই সমাজে এসেও আমরা সমাজ নিয়ে যা ভাবতে পারি না।তা তিনি শত বছর আগেই করে গেছেন।সত্যি বলতে, তিনি আজ থেকে দুইশ বছর আগে না আসলে হয়তো আজও আমরা অনেক কুসংস্কারের মধ্যেই বসবাস করতাম।”

বর্তমান প্রজন্ম সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে তিনি আরো বলেন,” বর্তমান সময়ে মানুষ ফেসবুক কেন্দ্রিক হয়ে যাচ্ছে। মানুষের মধ্য থেকে কোন বিষয় নিয়ে গভীর ভাবে চিন্তা করা ক্ষমতা হারিয়ে যাচ্ছে। কারো ব্যথায় কেউ ব্যতীত হয় না। কেউ সমাজের সমস্যা গুলো নিয়ে ভাবতে চায় না। সবাই দায় এড়িয়ে যেতে চায়। কিন্তু সবাই যদি এভাবে সমাজ নিয়ে অচেতন থাকে তবে এই সমাজ বদলাবে কিভাবে? তাই এখনি সময় থাকতে সবার বই পড়ায় মনোযোগ দেওয়া উচিৎ। কারন বই পারে মানুষের মনুষ্যত্বকে জাগ্রত করতে।”

অগ্নিসেতু’ র সহ-সভাপতি পবিত্র কুমার শীল বলেন,” উৎকৃষ্ট সাংস্কৃতিক চর্চার মধ্য দিয়েই আমরা একটা সুন্দর প্রজন্ম গড়ে তুলতে পারি। আর তার জন্য আমাদের মহা মানবদের জীবনী সম্পর্কে জানা উচিৎ। অগ্নিসেতু বরাবরের ন্যায় সুষ্ট সংস্কৃতি চর্চার মধ্য দিয়ে সুন্দর একটা সমাজ গড়তে ভূমিকা পালন করবে। এসময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন অগ্নিসেতু সাংস্কৃতিক পরিষদ গণ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি হোসাইনুল আরেফিন সেতু, সহ-সভাপতি পবিত্র কুমার শীল, সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান মনিসহ কমিটির আরো অনেকে।


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta