লন্ডনে বাতিল হলো উবারের লাইসেন্স - Nobobarta

আজ মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৪৪ পূর্বাহ্ন

লন্ডনে বাতিল হলো উবারের লাইসেন্স

লন্ডনে বাতিল হলো উবারের লাইসেন্স

অ্যাপভিত্তিক ট্যাক্সি সার্ভিস উবারকে নতুন করে লাইসেন্স না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাজ্যের লন্ডনের পরিবহন কর্তৃপক্ষ। যাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে উবার বারবার ব্যর্থ হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ট্রান্সপোর্ট ফর লন্ডন (টিএফএল) বলছে, কিছু ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারলেও উবার লন্ডনে ট্যাক্সি সেবার লাইসেন্স পাওয়ার যোগ্যতা প্রমাণ করতে পারেনি।

দু’বছর আগে ২০১৭ সালেও এই শহরে উবারের লাইসেন্স একবার বাতিল করা হয়েছিল। কিন্তু পরে তাদেরকে ব্যবসা পরিচালনার জন্যে আরো দু’বার অনুমতি দেয়া হয়। সবশেষ অনুমোদনের মেয়াদ শেষ হয়েছে গত রবিবার এবং তারপরেই কর্তৃপক্ষের তরফে এই সিদ্ধান্ত এলো। উবার বলছে, তারা এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করবে এবং আপিল শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাদের চালকরা রাস্তায় গাড়ি চালাতে পারবেন। বিশ্বের যতোগুলো শহরে উবারের সার্ভিস চালু আছে সেই তালিকার পাঁচ নম্বরে আছে লন্ডন। এই শহরে প্রায় ৪৫ হাজার চালক উবারের হয়ে গাড়ি চালান।

আর উবারের মোট আয়ের ২৪% আসে এই পাঁচটি শহর থেকে। অন্য শহরগুলো হচ্ছে- যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলস, নিউইয়র্ক, সান ফ্রান্সিসকো ও ব্রাজিলের সাও পাওলো। লন্ডনে প্রাইভেট হায়ার ও ব্ল্যাক ক্যাব মিলিয়ে মোট এক লাখ ২৬ হাজার গাড়ি ট্যাক্সি সার্ভিস দিয়ে থাকে। টিএফএল বলেছে, যাত্রীদের নিরাপত্তার ব্যাপারে তারা উবারের ব্যর্থতার একটি ধরন বা প্যাটার্ন খুঁজে পেয়েছেন, যার ফলে যাত্রীদের নিরাপদে চলাচল করা হুমকির মুখে পড়তে পারে। উবারের সিস্টেমে এমন কিছু ঘাটতি রয়েছে যার ফলে অনিবন্ধিত চালকরাও উবারের চালকদের অ্যাকাউন্টে নিজেদের ছবি আপলোড করে গাড়ি চালাতে পারেন।

সংস্থাটি বলছে, ২০১৮ সালের শেষে ও ২০১৯ সালের শুরুর দিকে তারা কমপক্ষে এক হাজার ৪০০ জুয়াচুরির ট্রিপ শনাক্ত করেছেন। এমন ঘটনাও ঘটেছে যে বরখাস্ত হওয়া চালকও উবার অ্যাকাউন্ট খুলে গাড়ি চালাচ্ছে করেছে। এদিকে উবার বলেছে, লাইসেন্স নবায়ন না করার এই সিদ্ধান্ত ভুল। কারণ গত কয়েক মাসে তারা তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে এবং চালকদের মুখ দেখে চেনার জন্যে প্রযুক্তিগত কিছু ব্যবস্থাও চালু করতে যাচ্ছে। গত দুমাসে তারা তাদের প্রত্যেক চালকের ব্যাপারে খতিয়ে দেখেছে।

উবারের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক জেমি হেউড এই সিদ্ধান্তকে ‘অস্বাভাবিক ও ভুল’ বলে আখ্যায়িত করে বলেছেন, গত দুই বছরে আমরা আমাদের ব্যবসার ধরন পাল্টে ফেলেছি এবং নিরাপত্তার একটি মানদণ্ড দাঁড় করিয়েছি। দুই মাস আগেই ট্রান্সপোর্ট ফর লন্ডন আমাদের কোনো সমস্যা পায়নি। এই দুই মাসে আমরা লন্ডনে আমাদের প্রত্যেক ড্রাইভারের তথ্য নিরীক্ষা করে দেখেছি এবং কঠোরভাবে নিয়ম মানার বিষয়টি নিশ্চিত করেছি। পরিবহন বিশ্লেষকরা বলছেন, উবার যদি আপিলে হেরে যায় তার চালকরা অন্যান্য রাইড-শেয়ারিং কোম্পানিতে গিয়ে গাড়ি চালাবে।


Leave a Reply



Nobobarta © 2020। about Contact PolicyAdvertisingOur Family
Design & Developed BY Nobobarta.com