রমজান মাসের গুরুত্বপূর্ণ আমল – Nobobarta

আজ শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১:৩৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
আজ উদয় সমাজ কল্যান সংস্থা সিলেটের ১২তম ওয়াজ মাহফিল দলীয় কার্যালয় সম্প্রসারণের লক্ষে আগৈলঝাড়া রিপোর্টার্স ইউনিটির প্লট উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের কাছে হস্তান্তর যবিপ্রবিতে ইয়ুথ এন্ডিং হাঙ্গার বাংলাদেশের নতুন কমিটি গঠন আটোয়ারীতে পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উপলক্ষে এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত জবি রোভার দলের হেঁটে ১৫০ কিলোমিটার পরিভ্রমণের উদ্বোধন মারুফ-তানহার ‘দখল’ লক্ষ্মীপুরে রামগতি পৌরসভায় ৮ কোটি টাকার টেন্ডার জালিয়াতি চেষ্টার অভিযোগ নলছিটিতে যুবকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার সভাপতি সরফরাজ, সম্পাদক লিটন রাজাপুরে আ.লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন-২০১৯ অনুষ্ঠিত সহকারী পরিচালক সমিতির নির্বাচন আগামীকাল!!
রমজান মাসের গুরুত্বপূর্ণ আমল

রমজান মাসের গুরুত্বপূর্ণ আমল

মো:রাকিব সুলেমান : রমজান মাসে পবিত্র কুরআন নাজিলের মধ্য দিয়ে মানুষের পথ নিদর্শক ও হেদায়ত পাঠানো হয়েছে। তাই এ মাসে রোজা পালন করা আল্লাহ আমাদের জন্য ফরজ করেছেন। এ মাসে জান্নাতের দরজা উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। আর বন্ধ করে দেয়া হয় জাহান্নামের দরজাগুলো। দুষ্ট শয়তানদের এ মাসে শৃঙ্খলাবদ্ধ করে দেয়া হয়। তাই এ মাসের গুরুত্ব অনেক। সে কারণে আমাদেরও উচিত এই মাসে আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায় গুরুত্বপূর্ণ কিছু আমল করা।

রমজান মাসের গুরুত্বপূর্ণ আমলগুলো হলো-
১. সিয়াম পালন করা : ইসলামের পাঁচটি রুকনের একটি রুকন হল সিয়াম। আর রমজান মাসে সিয়াম পালন করা ফরজ। সেজন্য রমজান মাসের প্রধান আমল হলো সুন্নাহ মোতাবেক সিয়াম পালন করা। মহান আল্লাহ বলেন-
فَمَن شَهِدَ مِنكُمُ ٱلشَّهۡرَ فَلۡيَصُمۡهُۖ

অর্থ : সুতরাং তোমাদের মধ্যে যে, মাসটিতে উপস্থিত হবে, সে যেন তাতে সিয়াম পালন করে। (সূরা আল-বাকারাহ : ১৮৫)

২. সময় মতো সালাত আদায় করা : সিয়াম পালনের সাথে সাথে সময় মতো নামাজ আদায় করার মাধ্যমে জান্নাতে যাওয়ার পথ সুগম হয়। কুরআন মাজীদে বলা হয়েছে,
إِنَّ ٱلصَّلَوٰةَ كَانَتۡ عَلَى ٱلۡمُؤۡمِنِينَ كِتَٰبٗا مَّوۡقُوتٗا

অর্থ : নিশ্চয় সালাত মুমিনদের উপর নির্দিষ্ট সময়ে ফরজ। (সূরা নিসা : ১০৩)

৩. সহীহভাবে কুরআন শেখা : রমজান মাসে কুরআন অবতীর্ণ করা হয়েছে। এ মাসের অন্যতম আমল হলো সহীহভাবে কুরআন শেখা। আর কুরআন শিক্ষাকে ফরজ করা হয়েছে। কেননা কুরআনে বলা হয়েছে-
ٱقۡرَأۡ بِٱسۡمِ رَبِّكَ ٱلَّذِي خَلَقَ

অর্থ : পড় তোমার রবের নামে, যিনি তোমাকে সৃষ্টি করেছেন। (সূরা আলাক : ১)

৪. অপরকে কুরআন পড়া শেখানো : রমাদান মাস অপরকে কুরআন শেখানোর উত্তম সময়। এ মাসে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নিজে সাহাবীদেরকে কুরআন শিক্ষা দিতেন। এ বিষয়ে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন-
خَيْرُكُمْ مَنْ تَعَلَّمَ الْقُرْآنَ وَعَلَّمَهُ

অর্থ: তোমাদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তি সেই, যে নিজে কুরআন শিক্ষা করে ও অপরকে শিক্ষা দেয়। (সহীহ আল-বুখারী : ৫০২৭)

৫. সেহরি খাওয়া : সেহরি খাওয়ার মধ্যে বরকত রয়েছে এবং সিয়াম পালনে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। হাদিসে এসেছে-
السُّحُورُ أَكْلَةٌ بَرَكَةٌ فَلاَ تَدَعُوهُ ، وَلَوْ أَنْ يَجْرَعَ أَحَدُكُمْ جَرْعَةً مِنْ مَاءٍ ، فَإِنَّ اللَّهَ وَمَلاَئِكَتَهُ يُصَلُّونَ عَلَى الْمُتَسَحِّرِينَ

অর্থ : সেহরি হলো বরকতময় খাবার। তাই কখনো সেহরি খাওয়া বাদ দিয়ো না। এক ঢোক পানি পান করে হলেও সেহরি খেয়ে নাও। কেননা সেহরির খাবার গ্রহণকারীকে আল্লাহ তায়ালা ও তাঁর ফেরেশতারা স্মরণ করে থাকেন। (মুসনাদ আহমাদ : ১১১০১, সহীহ)

৬. সালাতুত তারাবিহ পড়া : সালাতুত তারাবিহ পড়া এ মাসের অন্যতম আমল। তারাবিহ পড়ার সময় তার হক আদায় করতে হবে। হাদিসে এসেছে-
مَنْ قَامَ رَمَضَانَ إِيمَانًا وَاحْتِسَابًا غُفِرَ لَهُ مَا تَقَدَّمَ مِنْ ذَنْبِهِ

অর্থ : যে ব্যক্তি ঈমানের সাথে সওয়াব হাসিলের আশায় রমজানে কিয়ামু রমাদান (সালাতুত তারাবিহ) আদায় করবে, তার অতীতের সব গুনাহ মাফ করে দেয়া হবে। (সহীহ আল-বুখারী : ২০০৯)


Leave a Reply