নিয়োগের নামে এশিয়ান টিভি চেয়ারম্যানের কোটি টাকা আত্মসাৎ - Nobobarta

আজ শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০১:১৪ অপরাহ্ন

নিয়োগের নামে এশিয়ান টিভি চেয়ারম্যানের কোটি টাকা আত্মসাৎ
তথ্যমন্ত্রীর নিকট খোলা চিঠি

নিয়োগের নামে এশিয়ান টিভি চেয়ারম্যানের কোটি টাকা আত্মসাৎ

টাকার বিনিময়ে সাংবাদিক নিয়োগ দিয়ে হলুদ সাংবাদিক জন্ম দিচ্ছে এশিয়ান টিভি। নিয়োগ নবায়নের নামে নতুন করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার চেস্টা করছে এশিয়ান টিভি’র চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ ও এইচআর ও অ্যাডমিন হানিফ দাহার।

চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ মুখে দাড়ি রেখে হজ্ব করে আলহাজ্ব পরিচয় দেয়, মিচকি মিচকি হেসে ধর্মের কথা বলে- অথচ সে নিজেই তার কর্মচারীদের সাথে প্রতারণা করে, যা ইসলাম কখনও সমর্থন করে না। এমনটাই অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন এশিয়ান টিভি’র কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। ক্ষমতার কাছে দূর্বল বলে খোলা চিঠি লিখে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তারা। মাননীয় তথ্যমন্ত্রীর নিকট লেখা খোলা চিঠি পাঠকদের সম্মুখে হুবুহু তুলে ধরা হলো:

বরাবর,
মাননীয় তথ্যমন্ত্রী
তথ্যমন্ত্রনালয়ের কার্যালয়
ঢাকা।

বিষয় : নিয়োগের নামে এশিয়ান টিভির চয়ারম্যানরে কোটি টাকা আত্মসৎ প্রসঙ্গে।

জনাব,
সবিনয় নিবেদন আমরা প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই এশিয়ান টিভিতে কর্মরত রয়েছি। কিন্তু প্রায় ৩ মাস বেতন পায় না এশিয়ান টিভির কর্মকর্তা-কর্মচারী-সাংবাদিকরাবৃন্দ। এছাড়াও প্রতিষ্ঠাকালীন থেকে যারা এশিয়ান টিভির জেলা প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তাদের কাছ থেকে টাকা দাবি করেছে এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ এর সম্মতিতে এইচআর ও অ্যাডমিন হানিফ দাহার।

জেলা প্রতিনিধিদের কাছে ৫ লক্ষ টাকা, বিভাগীয় প্রতিনিধিদের কাছে ১০ লক্ষ টাকা ও চট্রগ্রাম বিভাগীয় প্রতিনিধির কাছে ২০ লক্ষ টাকা দাবি করে নতুন বছরের নিয়োগ নবায়ন ও ট্রেনিং-এর কথা বলা হয়েছে। গত বছরসহ বিভিন্ন সময়ে প্রতিনিধিদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিয়ে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। গত বছরের সেপ্টেম্বর কয়েকজন জেলা প্রতিনিধির কাছ থেকে প্রায় লক্ষাধিক করে টাকা নিয়ে নিয়োগ দেয়া হয়, তাদেরকেও অক্টোবরে এশিয়ান টিভির কার্যালয়ে ডেকে নতুন করে টাকা চাওয়া হয়েছে।

আলোচনার সময় এইচআর ও অ্যাডমিন হানিফ দাহার সকলকে পৃথক ভাবে তার রুমে ডেকে– জেলা প্রতিনিধিদের কাছে ৫ লক্ষ টাকা, বিভাগীয় প্রতিনিধিদের কাছে ১০ লক্ষ টাকা ও চট্রগ্রাম বিভাগীয় প্রতিনিধির কাছে ২০ লক্ষ টাকা দাবি করেন। এসময় সকল প্রতিনিধিদের মোবাইল ফোন নিয়ে নেয়া হয় (যাতে এই বিষয়ের কোনো প্রমাণ না থাকে)।

অথচ যাদের ত্যাগ আর পরিশ্রমের বিনিময়ে শুরু থেকে এই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলো, ঠিকমতো বেতন না দেয়ার কারণে এবং বেতন চাওয়া ও প্রতিবাদ করার কারণে অধিকাংকেই চ্যানেল কর্তৃপক্ষ বরখাস্ত করেছে। এই চ্যানেলে কেউই দীর্ঘদিন কর্মরত থাকতে পারে না। এদিকে এইচআর ও অ্যাডমিন হানিফ দাহার এর বিরুদ্ধে রয়েছে বিস্তর দূনীর্তির অভিযোগ। চ্যানেলের চেয়ারম্যান’র এজান্ডা বাস্তবায়নকারী তিনি, তাই তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে কোন ফল হয় না। তিনি বিভিন্ন সময়ে জেলা প্রতিনিধিদের কাছে বিভিন্ন সুবিধা দাবি করেন।

এর আগে বাংলা ভিশন টিভি থেকে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছিল। কর্মকর্তা-কর্মাচরীদের বেতন কারচুপির অভিযোগে তাকে লাঞ্চিত, কান ধরে উঠ-বস করাসহ মারতে মারতে সিড়ি দিয়ে তাকে নামানো হয়েছিল। সেই দূনীর্তিবাজ চোর হানিফ দাহার এখন ভর করেছে এশিয়ান টিভির উপর। যার দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের। শুরু থেকে জেলা প্রতিনিধিদের স্বপ্ন দেখানো হয়েছে কিছুদিন পরেই আপনাদের বেতন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা দেয়া হবে। কিন্তু বছরের পর বছর কাজ করার পরও তারা এক পয়সা বেতন তো পাননি বরং নিয়োগ নবায়নের নামে নতুন করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার চেস্টা করছে চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ ও এইচআর ও অ্যাডমিন হানিফ দাহার। চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ মুখে দাড়ি রেখে হজ¦ করে আলহাজ¦ পরিচয় দেয়, মিচকি মিচকি হেসে ধর্মের কথা বলে- অথচ সে নিজেই তার কর্মচারীদের সাথে প্রতারণা করে, যা ইসলাম কখনও সমর্থন করে না।

একসময় গুলিস্থানে ফুটপাথে কাপড় বিক্রি করা হালের আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হওয়া এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ ঢাকা যাত্রাবাড়ি আসনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন চাচ্ছেন। যিনি নিজের কর্মকর্তাদের সাথে প্রতারণ করেন, ঠিকমতো বেতন দেন না, তিনি যদি এমপি-মন্ত্রী হন তাহলে সেই আসনের জনগণের কি অবস্থা হবে? প্রশ্ন রইলো গণমাধ্যম বন্ধুদের কাছে। অবহেলিত কর্মকর্তা-কর্মচারী ও জেলা প্রতিনিধিরা খুব শ্রীঘ্রই জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করবে।

অনুলিপি
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, ঢাকা।
তথ্য মন্ত্রনালয়, ঢাকা।
সকল মন্ত্রনালয়, ঢাকা।
চেয়ারম্যান/পরিচালক, দুদক।

বার্তা প্রেরক : জিয়াউর রহমান
Cell : +8801744-916037, +8801948-541314.
E-mail : zia2012bdsky@gmail.com


Leave a Reply