এক ম্যাচ বাকি থাকতে ওয়ানডে সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকার | Nobobarta

আজ বৃহস্পতিবার, ০৪ Jun ২০২০, ০৭:৪৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম:
এস,এম, জাকির হোসেন সবুজের বাবা মৃত্যুতে ইব্ররাহিম খলিল বাদলের শোক প্রকাশ সুরক্ষা সামগ্রী ও খাদ্য সহায়তা করে আটোয়ারীতে এক ব্যবসায়ী প্রশংসীত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নতুন সচিব আব্দুল মান্নান করোনার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াই করতে হবে : সেতুমন্ত্রী বগুড়ায় নতুন আরও ২৬ জন করোনায় আক্রান্ত প্রশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র উপ-পরিচালক এর মৃত্যুতে প্রধান নির্বাহী সিরাজুল ইসলামের শোক প্রকাশ দেশে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ২৪২৩, মৃত্যু ৩৫ ঘিওরের ইউএনও আইরিন আক্তারের করোনা জয়ের গল্প “আমি নিত্য পাগল ক্ষিপ্ত”–দিলপিয়ারা খানম আটপাড়ায় গণপরিবহনে সচেতনতা নিশ্চিতে আনসার ভিডিপি’র তৎপরতা
এক ম্যাচ বাকি থাকতে ওয়ানডে সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকার

এক ম্যাচ বাকি থাকতে ওয়ানডে সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকার

Rudra Amin Books

বল হাতে আগুন ঝড়ালেন লুঙ্গি এনগিদি, পরে ব্যাটিংয়ের গুরুদায়িত্ব কাঁধে নিলেন জানেমন মালান। এই যুগলের নৈপুণ্যে ভর করেই ব্লোমফন্টেইনে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে অস্ট্রেলিয়াকে সহজেই হারিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৬ উইকেটের জয়ে এক ম্যাচ বাকি থাকতে সিরিজও নিজেদের করে নিয়েছে স্বাগতিকরা।

২৭২ রানের লক্ষ্যে নেমে তৃতীয় বলেই উইকেট হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা। কুইন্টন ডি কক রানের খাতা না খুলে বিদায় নেন। মিচেল স্টার্কের বলে অধিনায়ক আউট হলেও প্রোটিয়ারা পথে ফেরে মালান ও জন-জন স্মুটসের জুটিতে। ৯১ রান যোগ করেন তারা স্কোরবোর্ডে। স্মুটস ৪১ রানে আউট হওয়ার কিছুক্ষণ পর স্বাগতিকরা তৃতীয় উইকেট হারায় কাইল ভেরায়েন্নের (৩) বিদায়ে। এর পর অবশ্য তারা লড়াইয়ে ফেরে মালানের সঙ্গে হেনরিক ক্লাসেনের জুটিতে।

ক্লাসেন ৫১ রানে বিদায় নিলে ভাঙে ৮১ রানের জুটি। ১২৪ বলে তিনটি করে চার ও ছয়ে সেঞ্চুরি করা মালান পরে মিলারকে নিয়ে অবিচ্ছিন্ন জুটিতে দলকে জেতান। তাদের জুটি ছিল ৯০ রানের। মালান ১৩৯ বলে ১২৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। ২৯ বলে ৩৭ রানে অপরাজিত থাকেন মিলার। এর আগে পুরো ৫০ ওভারই ব্যাটিং করতে পারলেও ২৭১ রানে অলআউট হয় অস্ট্রেলিয়া। অ্যারন ফিঞ্চ আর ডি’আরকি শর্টের জোড়া হাফসেঞ্চুরিতে ভর করে এই লড়াকু পুঁজি পায় সফরকারিরা।

অবশ্য অস্ট্রেলিয়ার পুঁজিটা আরও বড় হওয়ার ইঙ্গিত ছিল শুরুতে। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে যে রীতিমত ঝড়ো সূচনা করেছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার আর অ্যারন ফিঞ্চ। ৩৯ বলের উদ্বোধনী জুটিতে তারা তুলেন ৫০ রান। কিন্তু ২৩ বলে ৩৫ রান করে ওয়ার্নার লুঙ্গি এনগিদির শিকার হয়ে ফেরার পরই খেই হারিয়ে ফেলে অস্ট্রেলিয়া। ১৩তম ওভারে টানা দুই বলে স্টিভেন স্মিথ (১৩) আর মার্নাস লাবুশানেকে (০) আউট করেন ওই এনগিদিই। এর পর ইনিংস মেরামতের দায়িত্ব নেন ফিঞ্চ আর শর্ট। চতুর্থ উইকেটে ৭৭ রানের জুটি গড়েন তারা। ৮৭ বলে ৬ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় ৬৯ রানের ইনিংস খেলে ফেরেন ফিঞ্চ। তবে শর্ট আরও অনেকটা পথ এগিয়ে দেন দলকে।

পঞ্চম উইকেটে ৬৬ রানের আরেকটি জুটি শর্ট আর মিচেল মার্শের। শর্টও ফিঞ্চের মতো ৬৯ রান করেই ফিরলে ভাঙে এই জুটি। ৮৩ বলে ৫ বাউন্ডারিতে হাফসেঞ্চুরি ইনিংসটি সাজান শর্ট। এর পর লুঙ্গি এনগিদির ফের আক্রমণ। পরের ব্যাটসম্যানদের আর দাঁড়াতে দেননি এই পেসার। ৫৮ রান খরচায় একাই ৬ উইকেট নেন তিনি। ২ উইকেট নেন এনরিচ নর্টজে। আগামী ৭ মার্চ পচেফস্ট্রুমে হবে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে।


Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.






Nobobarta © 2020 । About Contact Privacy-PolicyAdsFamily
Developed By Nobobarta