কোম্পানীগঞ্জ আশংকাজনকভাবে বাড়ছে ‘বর্ডার-ক্রস’ মোটর সাইকেলের বেচাকেনা - Nobobarta

আজ শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:১২ অপরাহ্ন

কোম্পানীগঞ্জ আশংকাজনকভাবে বাড়ছে ‘বর্ডার-ক্রস’ মোটর সাইকেলের বেচাকেনা

কোম্পানীগঞ্জ আশংকাজনকভাবে বাড়ছে ‘বর্ডার-ক্রস’ মোটর সাইকেলের বেচাকেনা

সিলেট কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় মারাত্বক হারে বেড়ে চলেছে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতীয় বর্ডার-ক্রস মোটর সাইকেল বেচাকেনা। চোরাই পথে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে আসা এসব মোটর সাইকেল নিয়ে চলছে রমরমা ব্যবসায়।

ফলে সরকার হারাচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকার রাজস্ব। নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে নগরীতে বেপরোয়া গতিতে চলছেন এই মোটর সাইকেল চালকরা। কোম্পানীগঞ্জ সড়ক দুর্ঘটনায় দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে সাথে বাড়ছে মৃত্যু হার, বাড়ছে পঙ্গুত্বের সংখ্যা।

‘হপারি’ ‘ক্রসিং’ ‘কালা’সহ বিভিন্ন Yamaha r15 v1, v2 ,v3 babaj palser 150cc-300cc নামিদামি মোটর সাইকেল চোরাই পথে আসা মোটর সাইকেলের নামকরণ করে ক্রেতা-বিক্রেতারা। হাত বদল হয়ে এসব গাড়ি এক সময় ধাপিয়ে চলাচল করে। বিভিন্ন অপকর্মেও ব্যবহার করা হয় সীমান্ত পার হয়ে চোরাই পথে আসা এসব মোটরসাইকেলগুলো।

কোম্পানীগঞ্জ একজন বাইকার জানান,এদের বিবেক নেই এরা দেশের জন্য খতিকর, ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে বেয়াইনি ভাবে ‘বর্ডার-ক্রস’ গাড়ি নিয়ে দিনের পর দিন এরা চালাছে তাদের ব্যবসা আমরা প্রশাসনকে আরও কঠোর নজরদারির দাবি জানাছি।

জানা যায়, পাচারকারীর হাত ধরে সীমান্ত পার হয়ে আসা এসব মোটর সাইকেল কেনাবেচা ও ভায়া হিসাবে কাজ করছে উপজেলার বিভিন্ন মোটর সাইকেল ওয়ার্কসপের ইঞ্জিনিয়াররা। তাদের মাধ্যমেই সাধারণ মানুষ অতি সহজেই পেয়ে যান পছন্দের বাইক। চোরাই পথে আসা এসব মোটরসাইকেল বেশির ভাগই ব্যবহার হচ্ছে বেআইনি কাজে। ছিনতাইসহ অন্যান্য কাজে এসব অল্প মুল্যের দামি গাড়িই বেঁচে নেয় অপরাধীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের সাথে পূর্ব সিলেটের জকিগঞ্জ-বড়লেখা, বিয়ানীবাজার ও কানাইঘাট সীমানা ঘেষা থাকার সুবাদে বেশ কয়েকটি চক্র দীর্ঘ দিন থেকে চোরাই পথে মোটর সাইকেল আনতে সক্রিয় রয়েছে। এ চক্রের সাথে সীমান্তে পাহারত বিজিবি’র অসাধু সদস্যরা জড়িত রয়েছেন ।

গোলাপগঞ্জের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো থাকায় অতি সহজেই এসব গাড়ি পাড়ি জমাচ্ছে গোলাপগঞ্জে। বাংলাদেশের একটি ইন্ডিয়ান পালসার কিনতে হলে ২ লক্ষ টাকা গুনতে হয়। অথচ চোরাই পথে আসা একই মানের পালসার মাত্র ৫০ থেকে ৬০ হাজারের মধ্যে পাওয়া যায়।

চোরাই পথে মোটর সাইকেল আসা বন্ধ ও দেশের চুরি অভ্যন্তরে মোটর সাইকেল রোধ করতে পুলিশ প্রশাসনকে আরও কঠোর নজরদারির দাবি জানিয়েছেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সচেতন মানুষ। তাদের ধারণা চুরি যাওয়া মোটর সাইকেল উদ্ধার ও চোরাই মোটর সাইকেল বিরোধী অভিযান হলে অল্প সময়ে এসব মোটর সাইকেল চলাচল রোধ করা সম্ভব হবে। একই সাথে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটবে।

সুশীল সমাজের দাবী, কোম্পানীগঞ্জ বিভিন্ন মোটর সাইকেল ওয়ার্কসপের ইঞ্জিনিয়ারদের নজরদারী বা তদারকি থাকলে এসব বাইক আনা কমে আসবে। এছাড়া যারা এসব অবৈধ মোটর সাইকেল ব্যবহার করছেন তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক।

এ ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি সজল কানন দে জানান,যারা অবৈধ মোটর সাাইকেল কেনাবেচা করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া ব্যবহারকারীদেরও ছাড় দেয়া হবে না।


Leave a Reply



Nobobarta © 2020। about Contact PolicyAdvertisingOur Family DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com