আগৈলঝাড়ায় আজ ২৩ অক্টোবর প্রায় দুই যুগ পর মহিলা লীগের সম্মেলন – Nobobarta

আজ বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:৪৭ অপরাহ্ন

আগৈলঝাড়ায় আজ ২৩ অক্টোবর প্রায় দুই যুগ পর মহিলা লীগের সম্মেলন

আগৈলঝাড়ায় আজ ২৩ অক্টোবর প্রায় দুই যুগ পর মহিলা লীগের সম্মেলন

অপূর্ব লাল সরকার, আগৈলঝাড়া (বরিশাল): ত্রিবার্ষিক সম্মেলনের মাধ্যমে প্রায় দুই যুগ পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি হতে যাচ্ছে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগে। দীর্ঘ ২৩ বছর আহŸায়ক কমিটির মাধ্যমে পরিচালিত উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের প্রতিক্ষিত সম্মেলন আজ বুধবার। ১৪ অক্টোবর দলের প্রস্তুতি সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উপজেলার শহীদ সুকান্ত আবদুল্লাহ হলরুমে ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে আজ বুধবার। এতে দলের নেতাকর্মীরা সকলে উজ্জীবিত। ইতোমধ্যেই উপজেলা আওয়ামী লীগের তত্বাবধানে সম্পন্ন হয়েছে সম্মেলনের সকল প্রস্তুতি।

সম্মেলনকে সামনে রেখে দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ বাগিয়ে নিতে সম্প্রতি সক্রিয় হয়ে উঠেছেন ঝিমিয়ে পড়া নারী নেত্রীরা। দলীয় অনুষ্ঠানেও যাদের দেখা মিলত না; এখন সেই সব নেত্রীরাও সরব রয়েছেন দলীয় কার্যালয়ে ও কর্মসূচীতে। কাউন্সিলর ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দর সাথে দলীয় কার্যালয়ে সময় দিচ্ছেন তারা। উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ জানান, দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে হাইব্রিড ও দলে অনুপ্রবেশকারীদের বাদ দিয়ে কমিটি গঠন করা হবে। কাউন্সিলররাই তাদের নেতা নির্বাচিত করবেন। শুধু আওয়ামী লীগ করেন বা তার পরিবার দল করে বা দলের সমর্থক এমন ব্যক্তি নয়; আদর্শগতভাবে সকলকেই মুজিব আদর্শের সৈনিক হতে হবে।

বরিশাল জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য পেয়ারা বেগম জানান, ১৯৯৬ সালে উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের ১১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। দীর্ঘদিনেও কমিটি না হওয়ায় ৭ বছর পরে বিরোধী দলে থাকা আওয়ামী লীগ ২০০৩ সালে দ্বিতীয় দফায় পেয়ারা বেগমকে আহ্বায়ক ও বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মলিনা রানী রায়কে যুগ্ম আহ্বায়ক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে। এই কমিটি পার করেছে ১১ বছর। সর্বশেষ ২০১৪ সালের ১৮ নভেম্বর মলিনা রানী রায়কে আহ্বায়ক ও মমতাজ বেগমকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে তৃতীয় বারের মতো গঠন করা হয় ১১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি। ১৯৯৬ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত টানা ২৩ বছর যাবৎ চলে আসছে আহ্বায়ক কমিটির মাধ্যমে মহিলা লীগের কার্যক্রম। প্রায় দুই যুগ পর মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মাঝে দেখা দিয়েছে প্রাণচাঞ্চল্য। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ১১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটির বেশীরভাগ নেত্রীই এবার কাউন্সিলে সভাপতি-সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন। সভাপতি-সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদ নিজেদের দখলে রাখতে লবিং, তদবিরও চালিয়ে যাচ্ছেন যে যার মত করে। সম্মেলনে পদ বাগিয়ে নিতে অনেক প্রার্থী কাউন্সিলরদের কাছে টানতে বেছে নিয়েছেন বিভিন্ন নৈতিক-অনৈতিক কুটকৌশলের আশ্রয়। ১১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটির সকল সদস্যসহ পাঁচটি ইউনিয়নের দলীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নিয়ে অনুষ্ঠেয় সম্মেলনে মোট কাউন্সিলরের সংখ্যা ২১ জন।

সূত্র মতে, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে সভাপতি পদে প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন দলের আহ্বায়ক ও সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভাপতি ভাইস চেয়ারম্যান মলিনা রানী রায়, যুগ্ম আহ্বায়ক মমতাজ বেগম, আহ্বায়ক সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাতের স্ত্রী এলিনা জাহিন, সাবেক ইউপি সদস্য অনিমা রানী নাগ ও নারী নেত্রী রওশন আরা লিলি। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থীতা ঘোষণা করেছেন রত্নপুরের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হুসনে আরা বেগম পিয়ারা, ইউপি সদস্য লিলি হাওলাদার, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষিকা আভা রানী মুখার্জী ও ফাহমিদা ইলিয়াস। তবে নারী নেত্রী বিউটি হক, সাবেক ইউপি সদস্য হাফিজা ইয়াসমিন ও বনিতা বসুর নামও শোনা যাচ্ছে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে।


Leave a Reply