শুক্রবার, ২০ Jul ২০১৮, ০৮:১৯ অপরাহ্ন

English Version


প্রাণ খুলে হাসুন, সুস্থ থাকুন

প্রাণ খুলে হাসুন, সুস্থ থাকুন



সুন্দর হাসির মাধ্যমেই অনেকের মধ্যে মানুষ নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলতে পারে। একজন গোমড়ামুখো মানুষও হাসিমুখ পছন্দ করেন। হাসি মানসিক চাপ কমায়। ক্লান্তি ও বিরক্তি থেকে মুক্তি দেয়। অনেক চাপের মধ্যে থাকলেও হাসার চেষ্টা করুন। রোগ প্রতিরোধেও হাসি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

হাসির সঙ্গ ‘এনডোরফিন’ নিঃসরণ হয়, যা আপনার মস্তিষ্কে জাগায় ভালো লাগার অনুভূতি। দীর্ঘদিন সুস্থ থাকতে চাইলে দিনে অন্তত ১৫ মিনিটের মনখোলা হাসি খুব বেশি জরুরি। চলুন আজকে দেখে নেয়া যাক দৈনিক ১৫ মিনিটের প্রাণখোলা হাসি যেভাবে সুস্থ রাখে আপনাকে তার একটি তালিকা।

হাসি দেহের ইমিউন সিস্টেম উন্নত করে: নেতিবাচক মনোভাব এবং মানসিক চাপের কারণে দেহে একধরণের কেমিক্যাল রিঅ্যাকশন ঘটায় যা আমাদের দেহের ইমিউন সিস্টেম দুর্বল করে তোলে এবং আমরা অসুস্থবোধ করি। কিন্তু প্রাণখোলা হাসি আমাদের ইমিউন সিস্টেম উন্নত করে তোলে। এতে করে আমাদের দেহ রোগ প্রতিরোধ করতে পারে এবং আমরা সুস্থ থাকি।

হাসলে দেহের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায়: আমরা যখন প্রাণখোলা হাসি হেসে থাকি তখন আমাদের দেহে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে। এতে দেহের প্রতিটি অঙ্গপ্রত্যঙ্গে এবং মস্তিষ্কে ভালোভাবে রক্ত সঞ্চালন হয় যা প্রতিটি অঙ্গপ্রত্যঙ্গকে সচল এবং সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

হাসলে ক্যালোরি ক্ষয় হয়: আমরা দেহের ক্যালোরি ক্ষয়ের জন্য কতো কিছুই না করে থাকি। কিন্তু আমরা জানিও না সারাদিনের প্রাণখোলা হাসি আমাদের ক্যালোরি ক্ষয় করতে কতোটা সহায়ক। মাত্র ১৫ মিনিটের প্রাণ খোলা হাসি আমাদের ২০-৪০ ক্যালোরি পর্যন্ত ক্ষয় করে।

হাসার উপায়: কাজের ফাঁকে সহকর্মী সঙ্গে ৫-১০ মিনিটের একটা আড্ডা দিয়ে দেন। দুপরের খাবার ও নাস্তা একসঙ্গ করলে সহজেই প্রাণবন্ত আড্ডা চলে আসে। বন্ধুদের সঙ্গ মজার আড্ডা দেবার কিছুটা সপ্তাহের একটা দিন অন্তত কিছু সময় বের করুন। আড্ডাতে নিজেও অংশগ্রহণ করে হাসুন। কয়েক মিনিট কৌতুক পড়ে নিন বা কয়েকটি হাসির ভিডিও ক্লিপ দেখে নিন আর জোরে জোরে হাসুন।

তথ্য সূত্র: বিএইচপি

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media




ফুটবল স্কোর



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com