,

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাহিত্য একাডেমির নবান্ন উৎসবে কবি আসাদ মান্নান

আদিত্ব্য কামাল, নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্রাহ্মণবাড়ীয়ায় সাবেক সচিব ও বিশিস্ট কবি আসাদ মান্নান বলেছেন, মানুষ মানুষের মাঝে সৌহার্দের বন্ধন, শান্তি সুন্দর প্রতিষ্ঠার জন্য সংস্কৃতি চর্চা প্রয়োজন। সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চা মানুষের মনকে বিকশিত করে। তিনি বলেন, শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতির ক্ষেত্রে ঐতিহ্যবাহী ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অনেক রাজনৈতিক সাংস্কৃতিক গুণী ব্যক্তি জন্ম গ্রহণ করেছেন। এখানে সাহিত্য একাডেমির নবান্ন উৎসব ঐতিহ্যধারার দৃষ্টান্ত। তিনি বলেন, নবান্ন উৎসব বাঙ্গালি জাতির অন্যতম উৎসব। তিনি মানুষে মানুষে মেল বন্ধন ভালবাসার উপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, প্রকৃত মানুষই সত্য সুন্দরের আলো ছড়াতে পারে। অসাম্প্রদায়িক চেতনায় মানুষে মানুষে মিশে সুন্দর বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

গতকাল ১৭ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সাহিত্য একাডেমির উদ্যোগে স্থানীয় শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে দিনব্যাপী নবান্ন উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ আহবান জানান। অনুষ্ঠানে বিশিস্ট কবি সাবেক সচিব আসাদ মান্নানকে নবান্ন উৎসব সম্মাননা প্রদান করা হয়। নবান্ন অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ উন্নয়নের ধারায় এগিয়ে যাচ্ছে কিন্তু আমাদের অনেক ঐতিহ্য হারিয়ে যাচ্ছে। সাহিত্য সংস্কৃতি চর্চা গতিশীল করে গ্রামবাংলার লোকজ ঐতিহ্য রক্ষায় সকলকে ভূমিকা রাখাতে হবে।

সাহিত্য একাডেমির পরিচালক প্রাবন্ধিক মানবর্দ্ধন পালের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত, ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক সংগঠক ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ, বিশিস্ট সংগীত শিল্পী নাজমা মান্নান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাহিত্য একাডেমির সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ একেএম শিবলী। নবান্ন উৎসবে শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সাহিত্য একাডেমির সভাপতি কবি জয়দুল হোসেন।

এদিকে সকালে নবান্ন উৎসবের উদ্বোধন করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার ও সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম (বার)। উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি বলেন, বাঙ্গালি জাতির প্রাণের উৎসব নবান্ন উৎসব। তিনি ঐতিহ্যের লোকজ উৎসব আয়োজনের উপর গুরুত্বরোপ করে নতুন প্রজন্মের মাঝে উৎসব আমেজ ছড়িয়ে দেয়ার আহবান জানান। সাংস্কৃতিক সংগঠক আল আমীন শাহীন-এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া শিশু নাট্যমের সাধারণ সম্পাদক নিয়াজ মোহাম্মদ খান বিটু, তিতাস সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদের পরিচালক মোঃ মনির হোসেন, সাংবাদিক সাহিত্যিক “আদিত্ব্য কামাল” প্রমুখ।  দিনব্যাপী নবান্ন উৎসবে লোকজ গান নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান , নাটক চেয়ার প্রদর্শন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ, চিত্রাংকন,সঙ্গীত, আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com