আজ শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯, ০৫:৫৯ অপরাহ্ন

শোয়াইব শাহরিয়ার-এর একগুচ্ছ কবিতা

শোয়াইব শাহরিয়ার-এর একগুচ্ছ কবিতা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ভ্রমণ

আজানের মধুর সুর শুনে শুনে—
আমার আপাদমস্তক দেখে ফেললেন, আরমিন।
দুর্ভাগ্য, কেবল হৃদয় দেখেন নি!

এই একটি ভুলের জন্যে—
আপনার চিরায়ত প্রেমিকা মনটি ভালোবাসাহীন মরে যাবে বেমালুম!
আরমিন, তবু কোনো দুঃখ নেই।
আপনার প্রতিটি স্পর্শ—
জান্নাতের প্রতিটি দরজা খুলে দিয়েছে!

কোনো একদিন—
আপনাকে জান্নাতে নিয়ে যাবো,
অনন্তকাল সাঁতার কাটবো একে-অপরের ভেতর।

দাবানল

ফুরিয়ে যাচ্ছে জীবনের রঙ; এখানে কেবল অন্ধকার! প্রবাহমান নদীতে নীলাভ রং
ওঠে, ছায়া হয়ে হাঁটছে পৃথিবী। বিষাদের এই ছায়াপথ ধরে— চেয়েছিলাম লাশ হতে;
কবরের ভেতর ঢুকতে গিয়ে— কার ভেতর ঢুকে পড়লাম?

এখানে রমণীর দু’হাত; পিছুটান রাখিনি, তবুও—
গোলাপি ঠোঁটের কামিনী চাহনিতে—উন্মাদের মতো চটপট করছি!

এখানে দাবানল ছড়িয়ে পড়ছে। বরফের স্পর্শে—পরম মমতায় গড়ে উঠছে প্রেমের শহর।
সোল্লাসী কচি সবুজ পাতা বেয়ে— সঙ্গমের ডাক আসে। অতঃপর—সঙ্গম সুখে ডুবে
যাচ্ছে বিচ্ছেদী শহর।

পাপ

ছায়াঘন মাঠে—
জীবনের লোভ!
পৃথিবীর বুকে—
মরণের ক্ষোভ।
মাঝেমাঝে নারী,
ছায়া হয়ে আসো;
নদীজল ছুঁয়ে—
ফের ভালবাসো।
টগবগ জল,
কায়াহীন ছায়া—
হিয়া তুই চল,
ছেড়ে সব মায়া!
বেঁচে থেকে লাভ?
এ-যে ঘোর পাপ।
তবু বেঁচে থাকি—
রমণীর বুকে!
জলে সাঁতরাই,
থাকি বেশ সুখে।

বিষাদ

১.
এভারেস্ট ছুঁয়ে চলেছে কামনার আগুন।
অতি সন্তর্পণে—
বৃষ্টি হয়ে ঝ’রে পড়ছে মসৃণ জল;
আর বুকের পাদদেশে গড়ে উঠছে রঙিন উপত্যকা।

২.
বরফের সিঁড়ি বেয়ে—উষ্ণতাকে পুঁজি করে যাচ্ছিলাম
বেশিদূর যেতে পারিনি, সেখানে দুধের হাঙর ছিল।

৩.

বরফের দেশ—
প্রবাহিত কামনাপরাগ!
স্তনের সফেদ জলে স্নান দিতে দিতে ভুলে যাই
জীবনের যৌবন!
হারিয়ে ফেলি নৌকো; তবু নারীতেই জন্মাই…

৪.
দুধের হাঙর উড়ে যাবে জানি স্মৃতির আঘাতে;
তবু তার সহবাস, আমাকে পাথর করে তোলে।
একদিন, মানুষ হয়ে জন্মাতে গিয়ে আমি সমুদ্র হবো।
গোগ্রাসে খেয়ে নেবো যতসব বিনোদিত বিষাদ।

কারুকার্য

সামনে একটি ঝর্ণা। আরো দূর গেলে একটি নদী।
নদীর মাঝখানটাই ঠিক পাহাড়। পাহাড়ের ওপাশে সমুদ্র।
পাহাড় ডিঙুতে লাগে একটি কোমল হৃদয়; ঠোকা দিলেই—
গলে যাবে পাহাড়ের কারুকার্য— ক্রোধ, ঘৃণা এবং অভিমান।
চলো, আমরা তাই করি
পাহাড় ডিঙিয়ে সমুদ্রে হারিয়ে যাই।

দাঁড়াও, দাঁড়াও; সমুদ্রে হারাবার আগে—
অনন্তকাল কামাতুর ঝর্ণায় একটা চুমু দিয়ে আসি,
…তারপর না হয় যৌবনের শ্রেষ্ঠ শরাব খেয়ে—
একে-অপরের ভেতর পরম সৌহার্দ্যে মরে যাবো।

লাইক দিন

এই সংবাদটি আপনার পরিচিতজনদের সাথে শেয়ার করতে পারেন




Leave a Reply

জনসম্মুখে পুরুষ নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল

Nobobarta on Twitter

© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com