মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১২:৩১ পূর্বাহ্ন

English Version
মাধ্যমিক শিক্ষকদের বেতন উত্তোলন নিয়ে ভোগান্তি

মাধ্যমিক শিক্ষকদের বেতন উত্তোলন নিয়ে ভোগান্তি



  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ওমর ফারুক সুমন:

ব্যাংক কর্তৃপক্ষের খামখেয়ালীতে প্রতিমাসেই মাধ্যমিক শিক্ষকদের বেতন উত্তোলন নিয়ে ভোগান্তি পোহাতে হয় বলে মন্তব্য করেছেন ময়মনসিংহের নালিতাবাড়ী বেসরকারী মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম খোকন। তিনি বলেন, পার্শ্ববর্তী উপজেলায় অনেক আগেই নির্ধারিত সময়েই বিল উত্তোলন করতে পারে। কিন্তু এ উপজেলার ব্যাংক কর্তৃপক্ষের খাঁমখেয়ালীর জন্যেই প্রতিমাসেই শত শত শিক্ষক কর্মচারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। শিক্ষকদের এই নেতা বলেন, এই সমস্যার সমাধান না হলে অচিরেই আমরা আন্দোলনের ডাক দিবো।

প্রতিবাদ কর্মসূচী হাতে নিবো। সুত্রে জানা যায়, নালিতাবাড়ি উপজলার এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারী মিলে প্রায় একহাজার শিক্ষক ও কর্মচারী সঠিক সময়ে বেতন উত্তোলন করতে পারেনা। যার কারনে বেতন না পেয়ে তাদের অনেক কষ্টে দিনযাপন করতে হয়। নিয়মমাফিক প্রতিমাসের ১০ তারিখে বেতন দেয়া হবে বলে ঘোষনা দিলেও বেতন তুলতে হয় প্রতিমাসে ১৫/১৬ তারিখে। অনেক সময় আরও বেশী সময়ও লেগে যায়। এই সমস্যার দরুন নালিতাবাড়ি উপজেলার সকল উচ্চ বিদ্যালয়,কলজে ও মাদ্রাসার শিক্ষকদের মাঝে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ও হতাশা বিরাজ করতে দেখা যায়। এপ্রিল মাসের বেতন গত ২৪ এপ্রিল,তারিখে ছাড় হয়েছে।

১০ মে তারিখে শিক্ষকগণ তাদের নিজ নিজ একাউন্ট থেকে বেতন উত্তোলনের শেষ তারিখ ছিলো। কিন্তু আজ ১৫ তারিখ। এখন পর্যন্ত বেতনের টাকা ব্যাংকে পৌছেনি। শিক্ষকদের অভিযোগ হচ্ছে এর জন্যে মূলত দায়ী কে? শিক্ষক না অন্য কেউ? ১৪/১৫ তারিখেও ব্যাংকে গিয়ে বেতন না পেয়ে মন খারাপ করে ফিরে আসতে হয় তাদের। তাদের মাঝে রামচন্দ্রকূড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুল জলিল বিএসসি ও শরীরচর্চা শিক্ষক মিজানুর রহমান বলেন ডিজিটাল বাংলাদেশে ২০ দিনেও এমপিও কপি নালিতাবাড়ি অগ্রনী ব্যাংকে পৌছেঁনি – এ কেমন কথা!

তারা বলেন, এ ভোগান্তি প্রতিমাসেই ভোগতে হয়। অনেক শিক্ষক নিরুপায় হয়ে চড়াসুদে চেক বিক্রয় করে সর্বস্বান্ত হয়ে পড়ছেন। কতিপয় সুদখোর মহাজন শিক্ষকদের এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে কোটিপটি বনে গেছেন। বেতন নিয়ে এমন বিলম্ব কেন হচ্ছে জানতে চাইলে নালিতাবাড়ি উপজেলার অগ্রনী ব্যাংকের ব্যবস্থাপক তার কিছুই করার নেই বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন এমপিও’র ক্যাশ জমা হলেও এমপিওর কপি হাতে পৌঁছতে দেরী হয়, আবার কখনো এমপিও কপি যথা সময়ে পৌছঁলে ক্যাশ জমা হয়না। এসব কারনে বেতন প্রদান বিলম্ব হয়।

লাইক দিন

Please Share This Post in Your Social Media




Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com