,

কাউখালীর খসরুর বই বিতরণই যেন তার নেশা

কাউখালী প্রতিনিধি: শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড। শিক্ষাহীন জীবন অর্থহীন। সুশিক্ষা মানুষকে আশাবাদী, অত্মপ্রত্যয়ী, উন্নত, আলোকিত ও বিকশিত করতে পারে। নিজেকে জানতে, বুঝতে ও আবিষ্কার করতে মানুষকে অবশ্যই প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। আর এ শিক্ষা অর্জন করতে হবে বই পড়ার মাধ্যমে- এমটাই বলছিলেন পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার ভ্রাম্যমাণ পাঠাগার আন্দোলনের উদ্যোক্তা আঃ লতিফ খসরু। মাদক, অপসংস্কৃতিসহ নানা রকম অস্থিরতায় দেশের তরুণ সমাজ যখন জর্জরিত, ঠিক তখনই জ্ঞানের মশাল হাতে ছাত্র সমাজ ও পাঠকদের নিয়ে পাঠাগার আন্দোলন শুরু করলেন খসরু।

ভ্রাম্যমাণ পাঠাগার গড়ে তুলে তিনি কাউখালী উপজেলার বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, রাস্তাঘাটসহ বাড়ি বাড়ি গিয়ে বই বিতরণ করছেন। এটা তার নেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে। খসরু জানান, সমাজের মানুষকে বইয়ের প্রতি আগ্রহী করে তুলতে প্রথমে কাউখালী সদরে নিজ ভবনে প্রতিষ্ঠা করেন মরহুম আঃ সোবহান স্মৃতি পাঠাগার। ওই পাঠাগারে রয়েছে দেশবরেণ্য ব্যক্তিদের জীবনীসংবলিত বই, ম্যাগাজিন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও এ জনপদের ইতিহাস। রয়েছে দুইটি জাতীয় পত্রিকা। খসরু বলেন, আজকাল পাঠাগারে তেমন একটা পাঠক আসেন না। পাঠকদের মধ্যে বই পড়ার আগ্রহ তেমন একটা নেই বললেই চলে। এসব কথা চিন্তা করে তিনি পাঠকদের বই পড়ার আগ্রহ সৃষ্টি বা পাঠ্যাভ্যাস গড়ে তোলার লক্ষ্যে আন্দোলন শুরু করেন।

তিনি প্রথমে ৫০০ বই নিয়ে ভ্রাম্যমাণ পাঠাগারের কার্যক্রম শুরু করেন। নিজ উপজেলায় বিভিন্ন ব্যক্তি, ছাত্র, শিক্ষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে বই বিতরণ করেন। শনিবারও তিনি সন্ধ্যা নদীর কচুয়াকাঠি খালের মোহনায় ভাসমান নৌকায় পারাপারের যাত্রীদের মাঝে বই বিতরণ করেন। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে এলাকার সব শ্রেণীর মানুষের মাঝে বই পড়ার আগ্রহ সৃষ্টি হবে বলে তিনি আশা করছেন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

আরও অন্যান্য সংবাদ


Nobobarta on Twitter




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com