,

রোহিঙ্গা মুসলমানদের হত্যার প্রতিবাদে সিলেট মহানগর ইমাম সমিতির সমাবেশ

বাংলাদেশ জাতীয় ইমাম সমিতি সিলেট মহানগর শাখার উদ্যোগে মিয়ানমার সরকার কর্তৃক রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর ইতিহাসের বর্বর গণহত্যা, খুন, ধর্ষণ ও নির্মূল অভিযানের প্রতিবাদে শুক্রবার সিলেটের ঐতিহাসিক কোর্ট পয়েন্টে এক বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সিলেট নগরীর প্রায় সবকটি ওয়ার্ড থেকে মসজিদের ইমাম, মুতাওয়াল্লি ও স্থানীয় সিটি কাউন্সিলরদের নেতৃত্বে জুমআর নামাজ শেষে মিছিলে সিলেট নগরীর প্রাণকেন্দ্র বন্দরবাজারের কোর্ট পয়েন্ট ছাড়িয়ে আশপাশের এলাকায় সমাবেশ বিস্তৃত হয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ জনসমুদ্রে পরিণত হয়।

স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইমাম সমিতির ডাকে বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দেন। নগরীর সামাজিক সংগঠনগুলো নিজ নিজ পরিচয়ে ইমাম সমিতির সমাবেশে যোগ দিয়ে মিয়ানমার সরকার কর্তৃক রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর নির্মম নির্যাতনের ক্ষোভ প্রকাশ করেন। নগরীর বেশ কয়েকটি এলাকা থেকে মুসল্লিগণ নামাজ শেষে বাড়িতে না গিয়ে মিছিল দিয়ে কোর্ট পয়েন্টে আসতে থাকেন। ৮-১০ বছরের শিশু থেকে শুরু করে ৭০-৮০ বছরের বৃদ্ধ পর্যন্ত মিছিল সহকারে সমাবেশে উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

মিছিল মুসল্লিগণ তাদের ঈমানী প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে সন্ত্রাসী বৌদ্ধদের রাক্ষুসে নারী অং সান সুচির প্রতি ঘৃণা প্রদর্শন করে তার ফটো সম্বলিত প্লেকার্ডে ছেড়া জুতা লাগিয়েছেন। কেউ কেউ ফাঁসিতে ঝুলানোর ছবিও ব্যবহার করেছেন, অং সান সুচির কুশ পুত্তলিকাও দাহ করা হয়েছে। সিলেট মহানগর সভাপতি ও তালতলা জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা হাবীব আহমদ শিহাবের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তাগণ বলেন, অবিলম্বে রোহিঙ্গাদের উপর গণহত্যা বন্ধে জাতিসংঘের প্রতি আহবান জানান।

বিশ্ব মুসলিমের সংগঠন ওআইসিকে কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহবান জানান। অনেক বক্তাগণ রোহিঙ্গাদেরকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেখতে যাওয়া ও তাদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ ও সার্বিক সহযোগিতার আশ^াস দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

সমাবেশে বক্তাগণ ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশী মানুষ শরণার্থী হওয়ার কথা স্মরণ করে শরণার্থীর বেদনা-কষ্টের কথা উল্লেখ করে বলেন, রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর জন্য ইমাম সমিতির ত্রাণ তহবিলে দান করার জন্য সর্বস্তরের মুসরমানদের আহবান জানান।

সমিতির সেক্রেটারী মাওলানা কারী সিরাজুল ইসলাম, মাওলানা আহমদ হোসেন ও মাওলানা নুর আহমদ কাসেমীর যৌথ পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, হেফাজতে ইসলাম সিলেট মহানগর সেক্রেটারী মাওলানা মুশতাক আহমদ খান, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালিক, জমিয়তের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি মাওলানা মনছুরুল হাসান রায়পুরী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের জেলা সভাপতি মাওলানা রেজাউল করিম জালালী, জেলা বিএনপির সেক্রেটারী আলী আহমদ, জাতীয় পার্টির মহানগর সেক্রেটারী এডভোকেট আব্দুল হাই কাইয়ুম, মহানগর জমিয়তের সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক হাফিজ মাওলানা ফখরুযযামান, জেলা সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আতাউর রহমান, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস মহানগর সভাপতি মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সিরাজী, ইসলামী ঐক্যজোট সিলেট মহানগর সভাপতি মুফতী ফয়জুল হক জালালাবাদী, জেলা সভাপতি মাওলানা আছলাম রহমানী, মহানগর খেলাফত মজলিসের সহ সভাপতি অধ্যক্ষ আব্দুল হান্নান তাপাদার, সেক্রেটার আব্দুল্লাহ আল মামুন, সিটি কাউন্সিলর আলহাজ¦ রাজিক মিয়া, আব্দুল মুহিত জাবেদ, দেলওয়ার হোসেন সজিব ও আব্দুর রকিব তুহিন, সাবেক কাউন্সিলর মুজিবুর রহমান শওকত, সমাজসেবী আলহাজ¦ একরামুল আজিজ, জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সেক্রেটারী আব্দুল্লাহ মামুন, জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা এহসান উদ্দিন, মহানগর ইমাম সমিতির সহ সভাপতি মাওলানা কারী শহীদ আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা ছুহাইব আহমদ, প্রচার সম্পাদক মাওলানা আশিকুর রহমান, মাওলানা রুহুল আমীন নগরী, মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী, মহানগর যুব জমিয়তের সভাপতি মাওলানা কবির আহমদ, ছাত্র জমিয়ত সিলেট জেলা সভাপতি মাওলানা সাইফুর রহমান, মহানগর সভাপতি লুৎফুর রহমান। ইসলামী সংগীত পরিবেশন করেন হাফিজ আব্দুল করিম দিলদার।

বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে রোহিঙ্গা শরনার্থীদের দেখতে যাওয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বাংলাদেশ জাতীয় ইমাম সমিতির পক্ষ অসংখ্য মোবারকবাদ জানানিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় ইমাম সমিতি সিলেট মহানগরের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গা মুসলিমদের মানবাধিকার রক্ষায় জনগণ, বাংলাদেশ সরকার ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে কতিপয় দাবী অনতিবিলম্বে আরাকান মুসলিম গণহত্যা বন্ধ করতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করুন। আন্তর্জাতিক আদালতে গণহত্যাকারীদের বিচার নিশ্চিত করতে ব্যবস্থা নিন। আরাকান থেকে উচ্চেদ করা জনগোষ্ঠিকে পুনরায় আরাকানে পুনর্বাসন করতে পদক্ষেপ নিন। বার্মা সরকারকে আন্তর্জাতিক আইন মানতে বাধ্য করার জন্য সর্বাত্মক অবরোধ আরোপ করুন। বার্মায় রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের কারণে বার্মিজ পণ্য বর্জন করুন এবং বার্মাকে সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ঘোষণা করুন। মুসলিম দেশগুলো বার্মার সাথে কুটনৈতিক, অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক ছিন্ন করুন। বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন। যারা সাহায্য পৌঁছাতে চায় তাদেরকে বিনা বাধায় সাহায্য পৌছানোর সুযোগ করে দিন। রোহিঙ্গাদের আত্মরক্ষা ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় সর্বাত্মক সহযোগিতা দিন। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে আবেদন আপনারা বাংলাদেশের পাশে দাঁড়ান এবং এই ভয়ঙ্কর সমস্যা সমাধানে সক্রিয় ভূমিকা রাখুন। আরাকানে নিরাপদ অঞ্চল গঠনে আন্তর্জাতিক বাহিনী মোতায়েন করা হোক। বাংলাদেশের সর্বস্তরের জনগণের প্রতি উদাত্ত আহবান দেশের সম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুন্ন রাখতে অতন্ত্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করুন। শেষে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করেন সমিতির সভাপতি মাওলানা হাবীব আহমদ শিহাব।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com