,

কাঁঠালিয়ায় যাত্রীবাহী টেম্পো খালে মায়ের চোখের সামনে ডুবে গেল সন্তান!

অহিদ সাইফুল,ঝালকাঠি প্রতিনিধি ঃ চোখের পলকে বিকট শব্দ হওয়ার পর দ্রুতগামী টেম্পোটি ১৫ জন যাত্রী নিয়ে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে পড়ে যায় পার্শ্ববর্তী একটি খালে। টেম্পোটি যত দ্রুত ডুবে যায় তত দ্রুতই সবাই বাঁচার জন্য হুড়োহুড়ি করে টেম্পো থেকে বের হয়ে সাতরে পাড়ে ওঠে। শুধু এক মা নিজে বাঁচার কথা চিন্তা না করে দুই সন্তানকে দুই পাজরে আগলে ধরেন। ততক্ষণে টেম্পোটি পানির নিচে চলে গেছে। দুই সন্তানকে আগলে ধরেই বের হওয়ার চেষ্টা করেন মা খাদিজা বেগম। কিন্তু এর মধ্যেই ¯্রােতে মায়ের হাত ফসকে ডুবে যায় আড়াই বছরের মেয়ে কুলসুম আক্তার। পরে বাধ্য হয়ে পাঁচ বছরের বড় মেয়েকে কোলে করে পাড়ে উঠেই অজ্ঞান মা। এরপর যখনই জ্ঞান ফেরে শুরু নদীতে ঝাঁপ দেয়ার চেষ্টা মায়ের। পরে স্থানীয়রা ওই সন্তানকে খাল থেকে মৃত উদ্ধার করে। সোমবার সকাল ৯টায় কাঁঠালিয়ায় সাতানি বাজারে যাত্রীবাহি টেম্পো উল্টে খালে পড়ে এভাবেই ডুবে আড়াই বছরের শিশু কুলসুম নিহত হয়। এসময় আহত হয় আরো ১০ যাত্রী।
কুলসুম কাঁঠালিয়া উপজেলার পূর্ব ছিটকির গুচ্ছ গ্রামের গার্মেন্টসকর্মী আলম হোসেনের মেয়ে। দুই মেয়ে সন্তানের মধ্যে কুলসুম ছিল ছোট।
সোমবার দুপুরে সরেজমিনে পূর্ব ছিটকির গুচ্ছগ্রামে তিয়ে দেখা যায় হৃদয় বিদারক দৃশ্য। মা বার বার জ্ঞান হারাচ্ছেন আর মেয়ের কথা জিজ্ঞাসা করছেন। কখনো মেয়ের লাশ দেখতে চাইছেন। প্রতিবেশিরা তাকে স্বান্তনা দেয়ার চেষ্টা করছেন। অন্য মেয়েও নির্বাক হয়ে সকলের মুখের দিকে চেয়ে আছে। সকালে মেয়ের ওষুধ কেনার জন্য তিনি বাড়ি থেকে কাঁঠালিয়া যাওয়ার পথে এ দূর্ঘটনার শিকার হন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও থানা পুলিশ জানায়, সকালে রাজাপুর থেকে কাঁঠালিয়া যাওয়ার পথে ১৫ জন যাত্রীনিয়ে টেম্পোটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের সাতানি খালে পড়ে পানিতে ডুবে যায়। এসময় দুই বছর বয়সী শিশু কুলসুম ঘটনাস্থলে মায়ের কোল থেকে ডুবে নিখোঁজ হয় এবং আরো ১০জন আহত হন। পরে স্থানীয়রা শিশুটিকে উদ্ধার করে রাজাপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com