শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৯:৩৩ অপরাহ্ন

English Version
তাহিরপুর সীমান্তে ৫ টন কয়লাসহ ৩ নৌকা আটক

তাহিরপুর সীমান্তে ৫ টন কয়লাসহ ৩ নৌকা আটক



মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া # সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তে চলছে জমজমাট চোরাচালান ও চাঁদাবাজি বাণিজ্য। এলাকার চিহ্নিত চোরাচালানী ও একাধিক মামলার জেলখাটা আসামীরা উপজেলার লাউড়গড়, চাঁনপুর, টেকেরঘাট, বালিয়াঘাট, চাঁরাগাঁও ও বীরেন্দ্রনগর বিজিবি ক্যাম্পের সোর্স পরিচয় দিয়ে সরকারের লাখ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ভারত থেকে প্রতিদিন অবৈধভাবে পাঁচার করছে কয়লা, চুনাপাথর, মদ, গাঁজা, হেরুইন, ইয়াবা, মোটরসাইকেল, গরু ও অস্ত্র।

বুধবার ভোরে উপজেলার বীরেন্দনগর সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে কয়লা পাঁচারের সময় ৫ টন চোরাই কয়লাসহ ৩টি নৌকা আটক করেছে বিজিবি। কয়লা বাগলী শুল্কস্টেশনের ৭টি ডিপুতে নিয়ে মজুত করা হয়েছে। কিন্তু চোরাচালানীদের আটক করা যায়নি। অন্যদিকে, বালিয়াঘাট বিজিবি ক্যাম্পের সোর্স পরিচয়ধারী লালঘাট গ্রামের চিহ্নিত চোরাচালানী ৭ মামলার জেলখাটা আসামী কালাম মিয়া ভারত থেকে মদ পাঁচার করার সময় তার বাড়ির পিছন থেকে বস্তা ভর্তি মদ আটক করলেও তাকে গ্রেফতার করেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। বিজিবির সোর্স পরিচয়ধারী চোরাচালানীদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দিয়ে বন্ধ করা যাচ্ছে না তাদের চোরাচালান ও চাঁদাবাজি বাণিজ্য।

এলাকাবাসী ও মামলা সূত্রে জানা যায়, লালঘাট থেকে টেকেরঘাট পর্যন্ত ৩২টি চোরাইঘাট ও ২টি পাহাড়ীছড়া দিয়ে কয়লা, চুনাপাথর, মদ, গাঁজা, হেরোইন, ইয়াবা, মোটর সাইকেল ও অস্ত্র পাচাঁর করছে সোর্স পরিচয়ধারী জিয়াউর রহমান জিয়া, কালাম মিয়া, আব্দুর রাজ্জাক, আব্দুল হাকিম ভান্ডারী, ইদ্রিসআলী, রতন মহলদার, শরিফ মিয়া, মানিক মিয়া, মোক্তার মিয়া, তিতু মিয়া গং। তাদের বিরুদ্ধে গত ৩ মাসে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে প্রায় ২ কোটি টাকার কয়লা ও চুনাপাথর পাচাঁর করার অভিযোগ উঠেছে। টেকেরঘাটে চুনাপাথর পাচাঁরের সময় একজন, লালঘাট ও লাকমা দিয়ে কয়লা পাচাঁরের সময় চোরাই গুহার নিচে মাটিচাপা পড়ে ৫ জন ও চুনাপাথর পাঁচারের সময় ট্রলির নিচে পৃষ্ট হয়ে একজনসহ এ পর্যন্ত ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অন্যদিকে চাঁরাগাঁও সীমান্তের বাঁশতলা, লালঘাট, চাঁরাগাঁও এলসি পয়েন্ট, জঙ্গলবাড়ি ও কলাগাঁও এলাকার ১৫টি চোরাইঘাট ও ২টি পাহাড়ীছড়া দিয়ে  ভারত থেকে কয়লা, সাদা পাথর, বল্ডাপাথর, মদ, গাঁজা, হেরোইন, ইয়াবা, মোটরসাইকেল, গরু ও অস্ত্র পাঁচার করা হচ্ছে। গত ৩ মাসের প্রায়  এক কোটি টাকার চোরাচালান হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আর চুনাপাথর ও কয়লা পাঁচারের সময় বিএসএফের তাড়া খেয়ে পাহাড় থেকে নিচে ২ জন, চুনাপাথর পাঁচারের ট্রলির নিচে চাপা পরে ২ জনসহ এ পর্যন্ত মোট ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়া লাউড়গড় সীমান্তের যাদুকাটা নদী ও পুরান লাউড় এলাকা দিয়ে  ভারত থেকে প্রতিদিন অবাধে কয়লা, পাথর, মদ, গাঁজা, হেরুইন, ঘোড়া, গরু ও অস্ত্র পাঁচার করা হচ্ছে। যাদুকাটা নদী দিয়ে কয়লা, পাথর, গরু, ঘোড়া ও মদ পাঁচার করতে গিয়ে বিএসএফের তাড়া খেয়ে নদীতে ডুবে এপর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর বিজিবি ক্যাম্পের সোর্স পরিচয়ধারী নুরু মিয়ার নামে ৪টি, রফিক এর নামে ২টি ও রাজ্জাক মিয়ার নামে ১টি চাঁদাবাজি, কয়লা ও মদ পাঁচার মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরপরও বন্ধ হয়নি সীমান্তের চোরাচালান ও চাঁদাবাজি।

অপরদিকে চাঁনপুর সীমান্তের বারেকটিলা, রাজাই ও নয়াছড়া দিয়ে ভারত থেকে প্রতিদিন মদ, গাঁজা, হেরোইন, ইয়াবা, গরু, ঘোড়া, কয়লা, চুনাপাথর ও অস্ত্র পাঁচার করে বিজিবি ও পুলিশের নামে ৫শ থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা নিচ্ছে মদ পাচাঁর মামলার জেলখাটা আসামী চাঁনপুর গ্রামের বিজিবি সোর্স আবু বক্কর ও তার সহযোগী বারেকটিলা গ্রামের রফিকুল। এ সীমান্তের বারেকটিলা দিয়ে গরু ও মদ পাঁচার করতে গিয়ে ১ জন ও নয়াছড়া দিয়ে কয়লা ও চুনাপাথর পাচাঁরের সময় ২ জনসহ এপর্যন্ত ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর অস্ত্রসহ ১ ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

এ ব্যাপারে বালিয়াঘাট, লাকমা ও বড়ছড়া শুল্কষ্টেশনের ব্যবসায়ী-নাসির উদ্দিন, কফিল উদ্দিন, তারা মিয়া, সবুজ মিয়া বলেন, বিজিবির সহযোগীতায় সরকারের লাখ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে চোরাচালান ও চাঁদাবাজি করা হচ্ছে। বিজিবির সোর্স পরিচয়ধারী একাধিক মামলার জেলখাটা আসামী কালাম মিয়া বলেন, পত্রিকায় এত লেখালেখি করে কি হয়েছে, আমাদের বিরুদ্ধে তদন্ত হয়েছে।কিন্তু টাকা দিয়ে সবাইকে ম্যানেজ করে ফেলেছি, বেশি বারাবারি করলে আমাদের গুরু আব্দুর রাজ্জাক ভাইকে দিয়ে মামলায় ফাঁসিয়ে দেব।

বালিয়াঘাট বিজিবি ক্যাম্পের হাবিলদার ফখরুদ্দিন বলেন, আমাদের ক্যাম্পের সোর্স আছে কিনা তা জানতে হবে এবং তারা কি চোরাচালান ও চাঁদাবাজি করছে কিনা তাও খোঁজ নিয়ে দেখা হবে। চাঁনপুর ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার মানিক মিয়া বলেন, আবু বক্কর নামে আমাদের কোন সোর্স নেই। এ ব্যাপারে জানতে সুনামগঞ্জ ২৮ব্যাটালিয়নের বিজিবি অধিনায়ক নাসির উদ্দিনের সরকারী মোবাইল নাম্বারে একাধিকবার ফোন করা হলেওতিনি ফোন রিসিভ করেননি।

Please Share This Post in Your Social Media




Leave a Reply



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com