,

নন্দীগ্রামে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া : আহত ৫

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি # বগুড়ার নন্দীগ্রামে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট কিনতে ভোটারদের মাঝে টাকা বিলি করাকে কেন্দ্র করে উপজেলায় ২নং সদর ইউনিয়নের দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও মারপিটের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের ৫জন আহত হয়েছে। আহতদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়। গত বুধবার রাত ১০টার দিকে সদর ইউনিয়নের মথুরাপুর-দাঁতমানিকা মোড় এলাকায় এঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে, ২নং নন্দীগ্রাম সদর ইউনিয়নের সতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী রেজাউল করিম কামালের কর্মী-সমর্থকরা বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মথুরাপুর গ্রামে গণসংযোগে গেলে প্রতিপক্ষ চেয়ারম্যান প্রার্থী বিএনপি মনোনীত প্রভাষক আব্দুল বারী বারেকের সমর্থকরা তাদের পথরোধ করে হুমকি দেয়। এরপর রাত ১০টার দিকে সতন্ত্র প্রার্থী কামালের সমর্থকরা দাঁতমানিকা মোড় এলাকায় পৌঁছিলে বিএনপির প্রার্থী বারেকের সমর্থকরা ফের মুখোমুখি হয়। এসময় ভোট কিনতে টাকা বিলি করার অভিযোগ তুলে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির পর ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও মারপিটের ঘটনা ঘটে। দুপক্ষের হামলায় একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর ও মারপিটে অন্তত ৫জন আহত হয়েছে।

আহতরা- জিন্নাহ(৪০), রব্বানী(৩২), মান্নান(৪৮), হেলাল(৪২) ও বাগো(৩৮)। খবর পেয়ে থানার ওসি(তদন্ত) রেজাউল করিম মজুমদার সঙ্গীয় অফিসার-ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে উত্তেজিত পরিস্থিতি শান্ত করে। মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে সতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী রেজাউল করিম কামাল অভিযোগ করে বলেন, প্রচারণার শেষ দিনে শান্তিপূর্ণভাবে মথুরাপুর গ্রামে আমার শতাধিক কর্মী সমর্থকরা আনারস প্রতীকে গণসংযোগ শেষে ওই গ্রামের আতাউরের বাড়িতে নাস্তা খেতে যায়। সেসময় বিএনপির প্রার্থী বারেকসহ তার শতাধিক সমর্থকরা হাতে লাঠিসোটা নিয়ে আমার সমর্থকদের উপর চড়াও হয়ে হুমকি দেয়। এরপর আমার সমর্থকরা দাঁতমানিকা মোড় এলাকায় পৌছামাত্র বারেকসহ তার সমর্থকরা আমার কর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা করেছে। এসময় আমার দুইজন সমর্থক আহত হয়।

বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রভাষক আব্দুল বারী এসব অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, সতন্ত্র প্রার্থী কামালের সমর্থকরা আনারস প্রতীকে ভোট কিনতে মথুরাপুর ও দাঁতমানিকা গ্রামে ভোটারদের মাঝে টাকা বিলি করছিল। সেই টাকা ভোটাররা গ্রহন না করে আমার সমর্থকদের সাথে নিয়ে প্রতিরোধ করেছে। এঘটনাকে কেন্দ্র করেই স্বতন্ত্রপ্রার্থী কামালের লোকজন দাঁতমানিকা মোড় এলাকায় আমার সমর্থকদের উপর হামলা করেছে। তাদের মারপিটে আমার তিনজন কর্মী আহত হয়েছে। তিনি বলেন, বহিরাগত শতাধিক ব্যক্তিদের নিয়ে আনারস প্রতীকে প্রচারণা করাসহ আমার কর্মী সমর্থকদের হুমকি ও মারপিটের ঘটনায় বুধবার দুপুরেই কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি। এপ্রসঙ্গে থানার ওসি হাসান শামীম ইকবাল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়েছে। এঘটনায় থানায় এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষই অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com