বুধবার, ১৮ Jul ২০১৮, ০৫:১৬ পূর্বাহ্ন

English Version
সংবাদ শিরোনাম :
ফয়সাল হাবিব সানি’র ১০টি সেরা উক্তি কোটা সংস্কার আন্দোলনঃ জাবিতে শিক্ষার্থীদের অবস্থান কর্মসূচি, ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কুবি’র লোক প্রশাসন বিভাগে বিতর্ক বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত শ্রীনগরে রাইস মিলের ফিতায় পেচিয়ে নানা-নানী ও মায়ের সামনেই শিশুর মৃত্যু কাউখালীতে মহিলা পরিষদের মানববন্ধন জাবিতে ধর্ষণের হুমকির বিচার চেয়ে মানববন্ধন কোম্পানীগঞ্জে বিশেষ অভিযানে চাঁদাবাজদের হামলার শিকার ম্যাজিস্ট্রেট, আটক ৭ লাটিম মার্কায় ওয়ার্ডবাসীর সমর্থন প্রত্যাশা করছি : কয়েস লোদী অস্ত্র ও ইয়াবাসহ কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আটক সামিরক হেলিকপ্টার বিধ্বস্তে দ. কোরিয়ায় নিহত ৫


লক্ষ্মীপুরে স্কুল ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু

লক্ষ্মীপুরে স্কুল ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু



লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরে শিলা আক্তার নামে এক স্কুল ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে তার মৃত্যু হয়। নিহত শিলা সদর উপজেলার গোফালপুর দ্বারিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী ও দুলাল হোসেনের মেয়ে। তার মরদেহ লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

জানা যায়, গোফালপুর দ্বারিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেনীর কোচিং শেষে মুল্যায়ন পরীক্ষা চলছিল এদিন। এসময় নকল করার দায়ে শিলা আক্তারের পরীক্ষার খাতা নিয়ে যায় বিদ্যালয়ের দায়িত্বরত সহকারি শিক্ষক শরীফ আহমদ। কিছুক্ষণ পর শিলা কান্নাকাটি করে স্কুল থেকে বের হয়ে বাড়ী ফেরার পথে মাথা ঘুরে পড়ে যায়। খবর পেয়ে পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে জেলা শহরের আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে তার অবস্থার অবনতিতে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতাল প্রাঙ্গণে নিহতের মা নুরজাহান বেগম গণমাধ্যমকে জানান, স্কুলের শিক্ষক শীলার পরীক্ষার খাতা নিয়ে যাওয়ার পর শিলা কান্নাকাটি করছে এমন সংবাদ পেয়ে ছুটে যাই। পথেই তাকে অসুস্থ দেখে হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতালে দেখতে আসা স্বজনরা অভিযোগ করেন, শিক্ষক কর্তৃক লাঞ্চনা ও মারধরে মারা গেছে শীলা। এদিকে সহপাঠিরা বলেন, তার খাতা নিয়ে যাওয়ায় বাড়ি ফেরার ভয়ে স্থানীয় একটি দোকান থেকে কীটনাশক পান করে অচেতন হয়ে পড়ে সে।বিদ্যালয়ের সহকারি প্রধান শিক্ষক হারুনুর রশিদ বলেন, ওই ছাত্রী পড়ালেখায় দূর্বল ছিল, নকল করায় দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক তার খাতা নিয়ে যায়। তাকে লাঞ্চনা কিংবা মারধর করার বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি। তবে বিকাল ৩টার দিকে বিদ্যালয়ে গিয়ে অভিযুক্ত শিক্ষককে পাওয়া যায়নি। বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে দেখা যায়। এসময় থানার ওসি মোক্তার হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনার তদন্ত চলছে। কেন কি কারণে মারা গেছে তা জানাতে পারেনি এই কর্মকর্তাসহ কেউ। এদিকে সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আনোয়ার হোসেনও ময়না তদন্ত ছাড়া কিছুই বলা যাচ্ছেনা বলে জানান।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media




ফুটবল স্কোর



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com