,

টানা দুইদিনের ভারী বর্ষণে মনিরামপুরে জলাদ্ধতা

মুস্তাক মুহাম্মদ, যশোর : যশোরের মনিরামপুর থানার হরিহরনগর , ঝাঁপা  ইউনিয়নে টানা দু’দিনের ভারী বর্ষণে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। হরিহরনগর ইউনিয়নের পাঁচপোতা , মহাদেবপুর , গোয়ালবাড়ি, মুক্তারপুর, রুপসপুর,ডুমুরখালি গ্রাম তলিয়ে গেছে । রাস্তাগুলোও তলিয়ে গেছে। পারবাজারে নৌকা দিয়ে পার্শ্ববর্তী বাঁকড়া বাজারের সাথে লোকজন যোগাযোগ রাখছে। দুই ইনিয়নের লোকজন গবাদিপশু নিয়ে ডুমুরখালি সাইক্লোন শেল্টার হোমে আশ্রয় নিয়েছে। কিন্তু জায়গা অপ্রতুল।  মৎস্য চাষীদের মাথায় হাত। গোয়ালবাড়ি মৎস্য পল্লির  সব ঘের/ পুকুর ভেসে কোটি কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। 

এছাড়া এলাকার অধিকাংশ ঘের / পুকুর ভেসে গেছে। জলাবদ্ধ এলাকায় পানিবন্দি মানুষের জন্য  এখনো পর্যন্ত কোনো ত্রাণ সামগ্রী  পৌঁছায়নি। মানুষ খাদ্যে অভাবে ভুগছে। বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট দেখা দেছে।  পানিবাহিত রোগ ডায়রিয়াসহ অন্য অন্য রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দেছে। এছাড়া তীব্র গো খাদ্যের সংকট দেখা দেছে। মৎস্য চাষী নূর (৫০)  ইসলামের  সাথে কথা হলে তিনি বলেন , টানা বর্ষার কারণে মাছের ঘের ভেসে গেছে। আমারও তিনটা ঘের ভেসে গেছে। রাস্তার উপরে পানি।  মানুয় আশ্রয় কেন্দ্রে গরু/ ছাগল নিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কোনো ত্রাণ সামগ্রী পাইনি। সরকারী দলের কোনো নেতাও দেখতে আসে নি।

তাছাড়া বিভিন্ন রোগ হচ্ছে। মানুষ  প্রয়োজনীয় ওষুদ পাচ্ছে না। জলাবদ্ধতায় বন্দি সখিনা বিবির (৬০) সাথে কথা হলে তিনি কেঁদে কেঁদে বলেন, বাবা পানির দিনতে রানতি পারতিনি। না খাইয়ি আছি । ছেলিডার ডায়রিয়া । কেউ দেখতিও আসে না। দুহাজার সালে বন্ন্রি সময় কত মানুষ দেখতি আইলো  । এখন কেউ আসে না। এমপি সাবও এদিকে একবার আসে না। ভোটির সময় হলি বলে , চাচী একটা ভোট দেও। আমি তুমাদের দেখবানি। এখন আর কেউ দেখে না! চোক কুথায় গেছে কে জানে ! জলাবদ্ধতায় কাঁচাঘর ভেঙে পড়ছে।  যশোর Ñ ৫ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য চাঁদ এমপি একবারও জলাবদ্ধ এলাকায় না আসায় এলাকার সাধারণ মানুষের মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। পানিবন্দি মানুষের জন্য জরুরী ঔষধসহ ত্রাণ সামগ্রীর প্রয়োজন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com