,

ঝিনাইদহে ‘অপহৃত’ কলেজছাত্রের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার ১০ দিন পর কলেজছাত্র সোহানূর রহমানের (১৬) গুলিবিদ্ধ লাশ চুয়াডাঙ্গায় উদ্ধার করা হয়েছে। সোহানূর শহরের শহীদ নূর আলী কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিলেন। তিতুদহ পুলিশ ক্যাম্পের উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুর রশিদ জানান, আজ (বুধবার) সকালে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার তিতুদহ ইউনিয়নের খাড়াগোদা গ্রামের একটি মাঠে সোহানূরের লাশ পাওয়া যায়। স্থানীয় লোকজন খবর দিলে পুলিশ গুলিবিদ্ধ লাশটি উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

গত ১০ এপ্রিল সোহানূরকে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌর এলাকা থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে সাদা পোশাকে চারজন লোক তুলে নিয়ে গেছে এমন অভিযোগ করে আসছিল তার পরিবার। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। সোহানূরের বাবা মোহসীন আলী ও মা পারভীন বেগম জানান, তার ছেলে কোনো দলের সঙ্গে জড়িত নয়, সে রাজনীতি করত না। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলাও নেই। এই অপহরণের বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গেলে পুলিশ তা নেয়নি বলে জানায় সোহানূরের পরিবার।

সোহানূরকে ‘অপহরণের’ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কালিগঞ্জের ঈশ্বরবা-জামতলা এলাকায় কালীগঞ্জ-কোটচাঁদপুর সড়কের পাশে একটি দোকানে বসে ছিল সোহানূর। এ সময় একটি ইজিবাইকে করে চারজন লোক এসে নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয় দেয়। তারা অস্ত্রের মুখে সোহানূরকে তুলে কালীগঞ্জের দিকে চলে যান। উপস্থিত লোকজন বাধা দিতে গেলে তাঁদের অস্ত্র দেখিয়ে হুমকি দেয়া হয়।

এর আগে কালীগঞ্জ পৌরসভা ছাত্রশিবিরের সভাপতি আবুজর গিফারি ও জেলার কে সি কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ও শিবির নেতা শামীমকে পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার ২৫ দিন পর গত ১৩ এপ্রিল যশোরের সদরে হৈবতপুর ইউনিয়নের জোড়াদহ গ্রামের একটি পুকুর থেকে তাদের গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া যায়।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com