,

ঝিনাইদহে হাতুড়ে ডাক্তারের ক্যাপসুল খেয়ে মৃত্যুর পথে অসহায় সুরুজ !

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ # ঝিনাইদহ শৈলকুপার ভাটই গ্রামের সুরুজ মিয়া বেশ কয়েকদিন ধরে দাঁতের সমস্যায় ভুগছিলেন। গত ১৭ এপ্রিল সুরুজ মিয়া ভাটই বাজারের “রাই মেডিকেল” এর গ্রাম্য হাতুড়ে ডাক্তার সুভাশের পরামর্শে ক্ল্যাভুসেফ (২৫০ এম .জি) খেতে থাকেন। এন্টিবায়োটিক ক্যাপসুল খাওয়ার পরে শরীরের সর্বত্র কালো চাঁকা চাঁকা ও ফোঁসকা বেরিয়েছে সুরুজ মিয়ার গোটা শরীরে।

এই ক্ল্যাভুসেফ এন্টিবায়োটিক ক্যপসুল খাওয়ার  আধা ঘন্টা পর পরই তার শরীরে যন্ত্রনা শুরু হয়। এক দিন পর সুরুজ মিয়া শরীরে বিভিন্ন স্থানে কালো চাঁকা চাঁকা ও ফোঁসকা হতে শুরু করে। এরপর আস্তে আস্তে বাড়তে থাকে যন্ত্রনা ,ক্রমেই খারাপ অবস্থা হতে থাকে সুরুজ মিয়ার। তার পর শনিবার রাতে সুরুজ মিয়ার স্ত্রী রুমা, ও তার মা সুরুজ মিয়াকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। বিস্তারিত জানতে চাইলে এমনটিই বলেছেন সুরুজ মিয়ার চাচাতো ভাই আলামিন।

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করার পর মেডিসিন বিশেষজ্ঞ মোকাররম হোসেন তত্বাবাধনে চিকিৎসা নিচ্ছেন সুরুজ মিয়া। মেডিসিন বিশেষজ্ঞ মোকাররম হোসেন বলেছেন ক্ল্যাভুসেফ ক্যাপসুল খাওয়ার কারনে এ সমস্যা দেখা দিয়েছে । মোকাররম হোসেন বলেছেন, ভুল চিকিৎসা ও এন্টিবায়োটিক সেবনের ফলে এমনটি হয়েছে। তবে মোকাররম হোসেন তাকে আশ্বস্ত করেছেন সুস্থ্য হয়ে ওঠার একই সাথে সবাই কে এন্টিবায়োটিক ব্যবহার প্রসঙ্গে সতর্কতার পরামর্শ দিয়েছেন। সুস্থ সবল সুরুজ মিয়ার হঠাৎ এ অবস্থার কারনে পরিবারটির মধ্যে দেখা দিয়েছে উদ্বেগ ও আতঙ্ক, দেখার কেউ নেই।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com