বুধবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৮, ০৫:২৮ অপরাহ্ন

English Version
দিনাজপুর-৪ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হতে চান মোনাজাত চৌধুরী

দিনাজপুর-৪ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হতে চান মোনাজাত চৌধুরী



নববার্তা রিপোর্ট : দিনাজপুর-৪ (খানসামা ও চিরিরবন্দর) সংসদীয় আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হতে চান খানসামা উপজেলা জাতীয় পার্টির অাহবায়ক মোনাজাত চৌধুরী মিলন। বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান করাসহ নির্বাচনী এলাকার জনগনের কল্যানে নিজেকে জন সেবায় নিয়োজিত রাখতে চান তিনি।

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির দলীয় প্রার্থী হিসেবে অংশ গ্রহন করতে দলীয় নেতাকর্মীরা ছাড়াও নির্বাচনী এলাকার সর্বস্তরের জনসাধারনের সহযোগিতা ও দোয়া প্রত্যাশা করেছেন মোনাজাত চৌধুরী মিলন।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কাছে নিজেকে প্রার্থী হিসেবে তুলে ধরতে দিনাজপুর-৪ পার্টির সাংগঠনিক কার্যক্রম শক্তিশালী করতে নেতাকর্মীদের সাথে সবসময় যোগাযোগ করে চলেছেন মোনাজাত।

এছাড়া নেতাকর্মীদের বিভিন্নভাবে সহযোগীতা করে চলেছেন তিনি। নির্বাচনী এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান করার চেষ্টা করছেন দীর্ঘদিন ধরেই। অনেক বেকার যুবকের কর্মসংস্থান গড়ে দিয়েছেন জাপার এই মনোনয়ন প্রত্যাশী। যেকারণে খানসামা ও চিরিরবন্দর উপজেলার সাধারন মানুষের কাছেও জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন মোনাজাত চৌধুরী মিলন। এলাকায় সাদা মনের মানুষ হিসেবেও পরিচিত তিনি।

নববার্তার চীপ রিপোর্টার এম নজরুল ইসলামের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে দিনাজপুর-৪ (খানসামা ও চিরিরবন্দর) সংসদীয় আসনের জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী মোনাজাত চৌধুরী মিলন বলেন, আমি জাতীয় পার্টি করি। দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয়, তাহলে অবশ্যই নির্বাচন করব। আগামী নির্বাচনে মনোনয়নের বিষয়ে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।  

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, দলের সুবিধাবাদী নেতাদের কেউ জাতীয় পার্টির তৃনমূলে সাংগঠনিক কর্মকান্ডে পাশে নেই। দুঃসময়ে পার্টিকে শক্তভাবে আঁকড়ে ধরেছেন এমন কিছু নেতাকর্মী, যারা পদে পদে বঞ্চিত হয়েছেন। হারানো অবস্থান পুন:রুদ্ধারে তৃনমূলে সাংগঠনিক কর্মকান্ড এগিয়ে নিতে মড়িয়া হয়ে উঠেছেন দিনাজপুর-৪ (খানসামা ও চিরিরবন্দর) সংসদীয় আসনের জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী মোনাজাত চৌধুরী মিলন।

তথ্য সংগ্রহকালে পার্টির ত্যাগী নেতাকর্মীরা বলেন, মোনাজাত চৌধুরীর যোগ্য নেতৃত্বে এরশাদ প্রেমী নেতাকর্মীরা তৃনমূলেকে শক্তিশালী করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তার হাতেই পার্টির মঙ্গল। কর্মীপ্রিয় ও সংগঠন প্রিয় নেতাদেরই মূল্যায়ন করা উচিত বলে মনে করছেন নেতাকর্মীরা।

নববার্তা/মুসা

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media




Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com