মঙ্গলবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৭ অপরাহ্ন

English Version
পাক্ষিক “আলোকিত তেঁতুলিয়া” পত্রিকার আত্মপ্রকাশ

পাক্ষিক “আলোকিত তেঁতুলিয়া” পত্রিকার আত্মপ্রকাশ



পঞ্চগড় প্রতিনিধি ঃ
ভাষা শহীদ ও মাতৃভাষা দিবসকে কেন্দ্র করে দেশের উত্তর সীমান্ত তেঁতুলিয়ায় সর্বপ্রথম সংবাদপত্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটলো “আলোকিত তেঁতুলিয়া’ নামের এক পাক্ষিক পত্রিকার। “উত্তর জনপদের মুখপত্র” প্রতিপাদ্য নিয়ে তরুণ সাংবাদিক এস কে দোয়েল এর সম্পাদনা ও প্রকাশনায় একুশের ভাষা দিবসেই পত্রিকাটির শুভ সূচনা হলো। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্র“য়ারি) বিকেল ৪টায় ভজনপুর ডিগ্রী কলেজের শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিব্য তিনদিন ব্যাপী বইমেলার সমাপনী দিনে ঝাকঝমকপূর্ণভাবে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় হয়। পত্রিকাটি শুভ উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ও ভজনপুর ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম, তেঁতুলিয়া উপজেলার সুযোগ্য চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শাহিন। একই সময়ে মোড়ক উন্মোচন করা হয় প্রান্তিক জনপদের কথা সাহিত্যিক তেঁতুলিয়া ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক হাফিজ উদ্দীনের “আইজুদ্দিনের রোজনামচা” উপন্যাস।


ভাষা দিবসে পাক্ষিক “আলোকিত তেঁতুলিয়া” পত্রিকার আত্মপ্রকাশ ও মফস্বল সংবাদের গুরুত্ব তুলে ধরে অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, আজ আমরা অত্যন্ত আনন্দিত যে, এই প্রথম তেঁতুলিয়া হতে একটি সংবাদপত্রের নবযাত্রা করলো তাও ভাষা দিবসে। ভাষা দিবসে গুরুত্ব বহন করছে পত্রিকাটি। পাঠক সর্বদা চায় সব খবর সবার আগে জানতে। তথ্যপ্রযুক্তির যুগে সংঘটিত খবর কারেন্ট আপডেট জানতে চায় সবাই। বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে অনেক সংবাদই সংবাদপত্রে আসে না। প্রত্যন্ত এলাকার খবরাখবর সহজেই উঠে আসে লোকাল পত্রিকাগুলোতে। সেক্ষেত্রে দেশের উত্তরের সীমান্তবর্তী অঞ্চল হিসেবে তেঁতুলিয়ার খবরাখবর যেমন সহজেই পাঠকরা জানতে পারবে। তেমনি এখান থেকেও অনেকের প্রতিভা বিকশিত হবে। আমি আরও আনন্দিত যে, পত্রিকাটির সম্পাদক আমাদের কলেজের প্রাক্তন ছাত্র এবং সে তেঁতুলিয়ার মফস্বল সাংবাদিকতার সবার প্রিয় মুখ। পত্রিকাটির উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি।


সাহিত্যিকদের কাতারে যুক্ত হওয়া নবীন কথা সাহিত্যিক হাফিজ উদ্দীনের “আইজুদ্দিনের রোজনামচা” বইটি সম্পর্কে অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম বলেন, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল হিসেবে তেঁতুলিয়াও এখন শিল্প-সাহিত্যে পিছিয়ে নেই। এখান থেকেও নতুন নতুন সৃজনশীল প্রতিভা বের হচ্ছে। নবীন কথা সাহিত্যিক প্রভাষক হাফিজ উদ্দীনের উপন্যাস গ্রামবাংলার পটভূমির উপর রচিত আইজুদ্দিনের রোজনামচা” নিঃসন্দেহে একটি ভালো উপন্যাস। বইটি পাঠকের তৃষিত হৃদয়কে ভরিয়ে তুলবে লেখকের নানান রঞ্জন-ব্যঞ্জনের গ্রামীন পরিবেশের নায়ক আইজুদ্দিনের প্রতিদিনের ডায়েরীর কথাবার্তা শুনে।


উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শাহীন তার বক্তব্যে বলেন, পাক্ষিক ” আলোকিত তেঁতুলিয়া” পত্রিকার সম্পাদক এস কে দোয়েল আমাদের তরুণ সাংবাদিক হিসেবে সবার প্রিয় মুখ। সে অত্যন্ত ভালো লিখে। বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতায় তার প্রশংসা না করলেই নয়। এর সাথে তেঁতুলিয়াকে সবার কাছে তুলে ধরতে যে পাক্ষিক সংবাদপত্র প্রকাশে উদ্যোগ নিয়েছে স্বাগত জানাই। তার সাথে আইজুদ্দিনের রোজনামচা” উপন্যাসের লেখক প্রভাষক হাফিজ উদ্দীনকেও অভিনন্দন জানান তিনি।
ভাষা দিবস একুশে ফেব্র“য়ারিতেই কেন পত্রিকাটির জন্ম তারিখ করা হলো এ বিষয়ে প্রশ্ন করলেই সম্পাদক এস কে দোয়েল বলেন, একুশ একটা অংক হলেও এর গুরুত্ব সীমাহীন। ভাষা অর্জনের দিন একুশে ফেব্র“য়ারি। এ তারিখেই রফিক, সালাম, বরকত’র মতো সাহসী দামাল তরুণরা বাংলা ভাষার জন্য জীবন দিয়ে ভাষার সাথে একটা স্বাধিকার বাংলাদেশ গড়তে শিখিয়েছে। তাই ভাষা শহীদদের প্রতি অকুন্ঠ শ্রদ্ধা আর বিশ্বের বুকে ভাষা হোক বাংলা সে স্বপ্ন নিয়ে পত্রিকাটির জন্ম তারিখ নির্ধারণ করি। তাছাড়া অনেক দিন ধরেই স্বপ্ন দেখছিলাম যে তেঁতুলিয়া থেকে একটি নিউজপেপার প্রকাশ করবো। ভাষা দিবসেই পত্রিকাটি বের করতে পেরে বেশ ভালো লাগছে।

Please Share This Post in Your Social Media




Leave a Reply



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com