সোমবার, ২১ মে ২০১৮, ০১:৩৩ পূর্বাহ্ন

আজকের সেহরী ও ইফতার :
আজ ২০ মে রবিবার, রমজান- ৩, সেহরী : ৩-৪৪ মিনিট, ইফতার : ৬-৪০ মিনিট, ডাউনলোড করে নিতে পারেন পুরো ফিচার- ডাউনলোড


মেধাবী শরীফকে বাঁচাতে বাবার অাকুতি

মেধাবী শরীফকে বাঁচাতে বাবার অাকুতি



মরণব্যাধি থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের প্রথম বর্ষের মেধাবী শিক্ষার্থী শরীফ আহমেদ বাঁচতে চান। এ মেধাবী শিক্ষার্থীর দরিদ্র চা বিক্রেতা বাবা তার সন্তানকে বাঁচাতে সরকার প্রধানসহ সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন।

ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার ভবানিপুর ইউনিয়নের কান্দানিয়া গ্রামের সামান্য চা বিক্রেতা সোবহান আলীর চার সন্তানের মধ্যে দ্বিতীয় ছেলে শরীফ শিশুকাল থেকেই মেধাবী। শুধু ছাত্র হিসেবে নয়,নম্র, ভদ্র ও শান্ত ছেলে হিসেবে এলাকার মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, চা বিক্রেতা সোবহান আলীর চার ছেলের মাঝে বড় ছেলে কিছু পড়াশোনা করে পরিবারের আর্থিক যোগান দিতে বাবার সঙ্গে কাজে লেগে যায়। ছোট দুই ছেলে রাকিম অষ্টম ও মৃদুল দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে। দ্বিতীয় ছেলে শরীফ ছোট বেলা থেকেই মেধাবী,স্কুল জীবনে প্রতিটি ক্লাসেই প্রথম স্থান অধিকার করে শিক্ষক ও এলাকাবাসীর হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। শরীফকে নিয়ে অনেক আশা ছিল তার গরীব মা-বাবার ,সেইসাথে এলাকাবাসির।

কিন্তু প্রায় ছয় বছর আগে শরীফ নবম শ্রেণিতে পড়ার সময় তার শরীরে রক্তশূন্যতা ধরা পড়ে। তারপর থেকে পড়াশোনার পাশাপাশি চলতে থাকে চিকিৎসা। শরীফ ২০১৪ সালে স্থানীয় কান্দানিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ ও ২০১৬ সালে ময়মনসিংহ নগরীর অ্যাডভান্স রেসিডেন্সিয়াল কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ- ৪.০৮ নিয়ে পাশ করে।

গত বছর জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে ভর্তি হয়। লেখা-পড়ার খরচের পাশাপাশি তার দরিদ্র বাবার পক্ষে ছেলের উন্নত চিকিৎসা করানো এ সময়ে সম্ভব না হওয়ায় গত ছয় বছরের রক্তশূন্যতা রূপ নেয় থ্যালাসেমিয়ায়। চিকিৎসকরা বলছেন, শিগগিরই শরীফের বোনম্যারো ট্রন্সপ্ল্যান্ট করতে হবে। এজন্য প্রায় ৩০ লাখ টাকা প্রয়োজন। শরীফ বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। কিন্তু দরিদ্র চা বিক্রেতা বাবা সোবহান আলীর পক্ষে এতো টাকা সংগ্রহ করা সম্ভব নয়। তাই প্রিয় সন্তানকে বাঁচাতে বর্তমান সরকার প্রধানসহ সমাজের বিত্তবানদের কছে সহায়তা ও দোয়া চেয়েছেন তিনি।

শরীফের বাবা সোবহান আলী বলেন, চা বিক্রি করে সংসার আর ছেলেদের পড়াশোনার খরচ চালাচ্ছি। অভাবের সংসারে ভালো চিকিৎসা করতে পারিনি ছেলেটির। ডাক্তার বলছে, থ্যালাসেমিয়া এমন একটি রোগ এতে দেহের লোহিত রক্তকণিকা উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। আমার পক্ষে তো ছেলের চিকিৎসা করা সম্ভব হবে না। খুব দ্রুত শরীফকে উন্নত চিকিৎসা করাতে হলে প্রয়োজন প্রায় ৩০ লাখ টাকা। আমার বিশ্বাস বর্তমান প্রধানমন্ত্রীসহ সমাজের বিত্তবানরা সহায়তা করলে আমার ছেলেকে বাঁচাতে পারব।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. খোরশেদ আলম জানান, শিগগিরই শরীফের বোনম্যারো ট্রন্সপ্ল্যান্ট করতে হবে। এজন্য ব্যায় হতে পারে প্রায় ৩০ লাখ টাকা। শরীফকে সহযোগিতা করতে চাইলে সাহায্য পাঠাতে পারেন এই ঠিকানায়: ডাচ্-বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং, আইডি: ০১৯২৬২৭৪৯১৪৫, শাহিনুর রহমান শিমুল। বিকাশ নাম্বার: ০১৬৮৫০৪৮৬৩৪ শরীফ আহমেদ, ০১৯১৩৬৬৫৩২২, ০১৭২৭৯০০৮১৭ -আকরাম হোসাইন।

সূত্রঃ অমৃতবাজার

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media








© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com