সরকারের প্রতি সবিনয় নিবেদন

অনেক ঘটনাই ঘটনার আড়ালে চাপা পড়ে যায়, আব্দুস সাত্তার তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, উচ্চ শিক্ষিত। বাড়ি মানিকগঞ্জ জেলার হরিরামপুর থানার বয়রা গ্রামে, সংসারে কেউ নেই আর তিনি একটি সড়ক দুর্ঘটনায় হয়েছেন আহত, ২৭ বছর যাবত বসবাস করছেন চট্টগ্রাম। একজন মুক্তিযোদ্ধা হয়ে সে কি করে বর্তমানে তিনি রাস্তায় রাস্তায় মানবেতর জীবন যাপন করছেন। হয়তো তার নামটি কেটে প্রভাবশালী কেউ মুক্তিযোদ্ধা হয়ে সুবিধা গ্রহণ করছেন মুক্তিযোদ্ধার। এমন দৃশ্য আসলে আমাদের কারো কাম্য নয়। ফেসবুক ব্যবহারকারী শাওন আমিন এর মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে আব্দুস সাত্তারের পরিচয়। নববার্তার সকল পাঠকদের মাধ্যমে সরকারের নিকট সবিনয় নিবদেন আব্দুস সাত্তারের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে যেন সম্মান পান এবং তার পুনর্বাসিত হোন সেই প্রার্থনা।

ফেসবুক ব্যবহারকারী শাওন আমিনের ফেসবুক স্ট্যাটাস হুবুহু সরকার এবং নববার্তা পাঠকদের নিকট তুলে ধরা হলোঃ গত কাল দুপুর ১ টার দিকে গোল পাহাড় মোড় হয়ে মিমি সুপার মার্কেটের দিকে যাচ্ছিলাম। রাস্তার বাম দিকে সংবাদপত্র পাঠরত এক বয়োবৃদ্ধ ভিক্ষুক দৃষ্টিগোচর হল। সামান্য কিছু পথ গিয়ে রিকশা থামিয়ে পাঠক ভিক্ষুকের নিকটবর্তী হলাম। না, কোন দিকে খেয়াল নেই। নিবিষ্ট মনে ‘ আমাদের সময় ‘ এর উপর চোখের চাহনি।
মাথায় হাতের আলতো পরশ লাগাতেই লাঠিতে ভর দিয়ে উঠে দাঁড়ালেন। শুরু হল প্রশ্নত্তোর পর্ব।
প্রশ্নঃ কি নাম আপনার ?
উত্তরঃ আবদুস সাত্তার
প্রশ্নঃ বাড়ী কোথায় ?
উত্তরঃ মানিকগঞ্জের হরিরামপুর, বয়রা গ্রাম।
আলাপ প্রসংগে জানলাম, তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। ১৯৬৮ সালে ঢাকা কলেজ থেকে বিএ পাশ করেছিলেন। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে টাঙ্গাইলের কাদেরিয়া বাহিনীতে থেকে যুদ্ধ করেছেন। সংসারে কেউ নেই। একটি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে দীর্ঘদিন মেডিকেলে ছিলেন। বর্তমানে চট্টগ্রামে ২৭ বছর অতিবাহিত হয়েছে। রাতে থাকেন দামপাড়া পেট্রোল পাম্পের বারান্দায়। এই ভাবে যায় দিন- মাস- বছর।
মুরুব্বীর সাথে কথা বলার সময় বেশীর ভাগ প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন শুদ্ধ ইংরেজীতে।

৭৬ বছর বয়সী এই অসহায় মানুষটির জন্য খুবই মায়া হল। বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী দল ক্ষমতায়। সদাশয় সরকারের নিকট সবিনয় নিবেদন, সরকারী বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে সঠিক তথ্য গ্রহণ পূর্বক যদি নিশ্চিত হওয়া যায় যে, আসলেই তিনি মুক্তিযোদ্ধা, তা’হলে শিক্ষিত মুক্তিযোদ্ধা ভিক্ষুকটিকে পুনর্বাসন করে বাকী জীবন সম্মানজনক ভাবে অতিবাহিত করার সুযোগ দিয়ে জাতির শ্রেষ্ট সন্তানদের প্রতি যথাযথ মর্যাদা প্রদান করা হোক।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ




টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com