,

চৌত্রিশে পা রাখলেন কবি কালের লিখন

সময়ের হিসেবে তেত্রিশ বছর পেরিয়ে চৌত্রিশে পা রাখলেন কবি কালের লিখন। জামালপুর জেলার কোজগড় গ্রামে ১৯৮৪ সালের ০৫-আগস্ট জন্মগ্রহণ করেন এসময়ের আলোচিত কবি ‘কালের লিখন’। কালের লিখন বাংলাদেশের একজন প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ কবি ও বহুমাত্রিক লেখক। কালের লিখনের ফেসবুকের পরিচিতিতে লেখা আছে- ‘লিখতে লিখতেই লিখন। কালের লিখন।

কালের লিখন এই কবির লেখক নাম। দুর্দান্ত মেধাবী এই কবির লেখনীর তালিকা, সংখ্যা ও বিষয়াবলী বিস্ময়কর! কালের লিখন বাংলাদেশের একমাত্র কবি যিনি যেকোনো বিষয়ের ওপর তাৎক্ষণিক কাব্য রচনা করতে পারেন। ফেসবুকে পাঠকের দেওয়া তাৎক্ষণিক শব্দখেলায় এই কবি এখন পর্যন্ত লিখেছেন প্রায় তিনহাজার কাব্য! প্রতিটি বাংলা বর্ণ নিয়ে এই কবির যেমন কবিতা আছে; তেমনি আছে বাংলাদেশের সবগুলো জেলা নিয়ে অসাধারণ বর্ণনায়িত কবিতা, বিভিন্ন দেশ নিয়েও রয়েছে কবিতা তার। কালের লিখন জনপ্রিয় ‘টু লাইনার’ সিরিজের কবি। এই সিরিজে কবির কাব্যসংখ্যা প্রায় একহাজার!

কালের লিখন লিখেছেন ‘নির্মল জবাব’ নামের ভিন্নধর্মী একটি কবিতাগ্রন্থ যা পাঠক ও বোদ্ধামহলে বিশেষ স্থান করে নিয়েছে। বিভিন্নবিষয়ে কালের লিখন রচিত কালের গানের সংখ্যা প্রায় দুইহাজার। এর মধ্যে অনেকগান বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতিশীল শিল্পীদের কণ্ঠে গীত হয়েছে। প্রচার হয়েছে রেডিও-টিভিতে! কালের লিখনের আছে ‘কালের পুঁথি’। বাংলা পুঁথিসাহিত্যকে নতুন করে সামনে তুলে আনতে কালের লিখন করে যাচ্ছেন নিরলস পরিশ্রম! কালের লিখন বাংলাদেশের একমাত্র কবি, যার আছে শুধুমাত্র কবিতা নিয়েই কুড়িটির বেশি ভিন্নভিন্ন স্বতন্ত্র প্যাটার্ন! কবি কালের লিখনের সবচেয়ে বড় পরিচয় তিনি তাঁর লেখায় সমকাল’কে ধারণ করেন। ঘটমান প্রতিটি ইস্যুতে কবি কালের লিখনের স্বচ্ছদৃষ্টি মানুষ ও মানবতার পাশে!

কালের লিখন দ্রুততম সময়ে কবিতাগ্রন্থ রচয়িতার মধ্যে একজন! মাত্র ৬ ঘণ্টায় কালের লিখন ১০০ হাইকু নিয়ে তাঁর সবচেয়ে কম সময়ের কবিতা গ্রন্থটি লিখেছেন। এর কাছাকাছি ৫ দিনে লিখেছেন ১০০ লিমেরিক নিয়ে কবিতাগ্রন্থ- ‘পুনশ্চ প্রত্যয়’। কালের লিখন ৬ দিনে লিখেছেন ‘শব্দবতী’ সিরিজের ৪০ টি সনেটকাব্য! শব্দ নিয়ে এই কবির পাগলামি ও মমত্ব সীমাহীন! কালের লিখন শব্দ ও কাব্য দিয়ে নির্মাণ করেছেন- শব্দমানব, শব্দহংস, বৃত্তকাব্য, পিরামিড কাব্য, শব্দশর’সহ নানান প্যাটার্নের কবিতা। যা এই কবির নিষ্ঠা, প্রজ্ঞা, মেধা ও মননের এক অপূর্ব সমন্বয়!

বর্তমান সময়ে যারা লেখালেখি করছেন- কালের লিখন তাঁদের মধ্যে সবচেয়ে গতিশীল লেখক। তার সমৃদ্ধ লেখার গতিতে অনেকেই বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। বিভিন্নবিষয়ে কালের লিখনের রয়েছে কয়েকহাজার কবিতা! অণুগল্প, ছোটগল্প-সহ উপন্যাসও লিখছেন এই বহুমাত্রিক লেখক। হাত দিয়েছেন নয়বছর সময় নিয়ে বাংলাদেশ, বঙ্গবন্ধু ও এর ইতিবৃত্ত নিয়ে ‘মহাকাব্য একাত্তর’ নামের একটি মহাকাব্য রচনায়। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়েও রয়েছে কালের লিখনের অজস্র গান, কবিতা ও একটি বিশেষ সিরিজ ‘মুজিব কাব্য’! বাংলাদেশের মরমী গীতিকারদের নিয়েও কাজ করছেন গবেষক কালের লিখন। জালাল উদ্দিন খাঁ, বিজয় সরকার, মহাত্মা লালন সাঁইজিকে নিয়ে রয়েছে কালের লিখনের বিভিন্নধরণের সমৃদ্ধ কাজ।

ছোটপরিসরে কালের লিখনের সকল সাহিত্যকর্মের আলোচনা বা উল্লেখ সম্ভব নয়। কালের লিখন একাধারে কবি, গীতিকার, গল্পকার, গবেষক, সম্পাদক, সংকলক, পুঁথিকার, শিশু-সাহিত্যিক, শিল্প-সাহিত্য সমালোচক, আত্মতাত্ত্বিক দার্শনিক, লোকসাহিত্য ও লালন গবেষক। কালের লিখন সম্পাদনা করছেন ‘কালাঞ্জলি’ নামে একটি অনিয়মিত ছোটকাগজ। কালের লিখনের প্রকাশিত গ্রন্থ ছয়টি। অপ্রকাশিত ও প্রকাশিতব্য গ্রন্থসংখ্যা শতাধিক! লেখালেখিই এই কবির নেশা ও পেশা! নিউজপোর্টাল নববার্তার পক্ষ থেকে কবি কালের লিখনকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা! কালের লিখন ছুঁয়ে যাক মহাকালের সীমারেখা! শুভ জন্মদিন, প্রিয় কবি কালের লিখন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com