সোমবার, ২৮ মে ২০১৮, ০৩:৩৫ পূর্বাহ্ন



জবির পাঠ্যক্রমে ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস’ অন্তর্ভুক্ত

জবির পাঠ্যক্রমে ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস’ অন্তর্ভুক্ত



এহসানুল মাহবুব জোবায়ের, জবি প্রতিনিধি: দেশপ্রেমিক নাগরিক এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিষয়ে আরো সচেতন করে তুলতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অনুষদের বিভাগসমূহে আবশ্যিক পাঠ্যক্রম হিসেবে ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস’ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। গতকাল বুধবার জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দপ্তরের উদ্যোগে এক সংবাদ সম্মেলনে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান এ তথ্য জানান।

এ সময় জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস-এর সঞ্চালনায় সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. প্রিয়ব্রত পাল, লাইফ অ্যান্ড আর্থ সায়েন্স অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোঃ জাকারিয়া মিয়া, কলা অনুষদের সাবেক ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সেলিম, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. অরুণ কুমার গোস্বামী, দর্শন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সিদ্ধার্থ শংকর জোয়ার্দ্দার, মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী সাইফুদ্দীন, রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে জবি উপাচার্য বলেন, “ইতিহাস চর্চা শুধু নিজেদের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখলে চলবে না। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তরুণদের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানার জন্য উদ্বুদ্ধ করতে হবে। ৭৫-এ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর ইতিহাস বিকৃত করার চেষ্টা শুরু হয়েছিল। ৫২’, ৬৯’, ৭১’-এর বাঙালি জাতির ঐতিহাসিক আন্দোলনের ইতিহাসকে মুছে ফেলার জন্য স্বাধীনতা বিরোধীরা সক্রিয়। কিন্তু প্রকৃত ইতিহাস কখনও মুছে ফেলা যায় না।”
তিনি আলো বলেন, “অগ্রসরমান প্রগতিশীল চিন্তা চেতনায় যারা সবসময় বিরোধিতা করেছিল, তারাই ৭৫’-এ নির্মম হত্যাকা- ঘটিয়েছিল। বাঙালি জাতির ইতিহাসকে বদলে দিতেই সেই ঘটনা ঘটানো হয়েছিল। এই ধরনের প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে তরুণ প্রজন্ম জাতির গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস সম্পর্কে জানতে পারবে এবং নিজেদের দেশপ্রেমিক হিসেবে গড়ে তুলতে সক্ষম হবে।”
উল্লেখ্য, “জঙ্গিবাদ উত্থান রোধে, সত্যিকারের দেশ প্রেমিক ও সচেতন নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস’ বিষয়ে পাঠদানের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের ৪০-তম সভায় এবং ৭৪-তম সিন্ডিকেট সভায় বিষয়টি অনুমোদিত হয়। ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষ থেকে সকল বিভাগের শিক্ষার্থীদের কারিকুলামে এ বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।”

 

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media








© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com