,

চুরির জিনিস ব্যবহার করে ধরা পড়লেন রাবির ছাত্রী

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি: চুরি করা জিনিসপত্র নিজে ব্যবহার করে ধরা পড়লেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী। গতকাল সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম রোকেয়া হলে এ ঘটনা ঘটে। চুরির দায়ে আটককৃত ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও রোকেয়া হলের আবাসিক শিক্ষার্থী। বেগম রোকেয়া হলের ৩৫৯ নাম্বার কক্ষে ওই চুরির ঘটনা ঘটে। এসময় একটি ল্যাপটপ, স্বর্ণালংকার, কাপড়চোপড়সহ লক্ষাধিক টাকার জিনিসপত্র চুরি হয় বলে ওই কক্ষের ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী জানান।

ভুক্তভোগী ও হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা জানান, হলের ৩৫৯ নাম্বার কক্ষে দ্ইু দফায় চুরির ঘটনা ঘটে। প্রথম দফায় গত জুন মাসে হলের ওই কক্ষ থেকে স্বর্ণালংকার, ঘড়ি, মূল্যবান কসমেটিকসসহ বেশ কিছু জিনিসপত্র চুরি হয়। পরে দ্বিতীয় দফায় সেপ্টেম্বর মাসে একই কক্ষের তালা ভেঙ্গে একটি ল্যাপটপ, কম্পিউটার সাউন্ডবক্স ও কাপড়চোপড় ভর্তি একটি ব্যাগ চুরি হয়। দুই দফায় সংগঠিত চুরিতে ওই কক্ষের একই ছাত্রীর জিনিসপত্র চুরি হয়। ওই দু’টি চুরির ঘটনায় হল কর্তৃপক্ষ তখন কাউকে আটক করতে পারেনি। চুরির দায়ে আটককৃত ছাত্রী ওসব জিনিসপত্র নিজের রুমে লুকিয়ে রেখেছিলেন। পরে গতমাসে অনুষ্ঠিত হল সমাপনীতে আটককৃত ছাত্রীকে চুরি হওয়া এক জোড়া কানের দুল পড়তে দেখলে চুরিকৃত জিনিসগুলোর মালিকের সন্দেহ হয়। পরে ওই ছাত্রী (মালিক) গতকাল দুপুরে আটককৃত ছাত্রীর কক্ষে গেলে সেখানে চুরিকৃত কিছু কসমেটিকস ও একটি আইফোনের হেডফোন দেখে সেগুলো চিনতে পারেন। এসময় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে চুরির কথা স্বীকার করে। পরে হল কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানালে তাকে আটক করা হয়। পরে ওই ছাত্রীকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

চুরিকৃত জিনিসের মালিক ৩৫৯ নাম্বার কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী জানান, দুই দফায় চুরিতে প্রায় দেড় লক্ষ টাকার জিনিসপত্র চুরি হয়। গতমাসে অনুষ্ঠিত হল সমাপনীতে তার কানে চুরি যাওয়া কানের দুল দেখে সন্দেহ হয়। তাকে জিজ্ঞেস করলে সে ওগুলো নিজের বলে জানায়। পরে গতকাল তার কক্ষে আমার কসমেটিকস ও আইফোনের হেডফোন দেখি। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে চুরির কথা স্বীকার করে। তার কক্ষ থেকে চুরি যাওয়া বেশ কিছু জিনিসপত্র উদ্ধার করি। আমার ল্যাপটপটি সে তার বাড়িতে লুকিয়ে রেখেছিল। পরে তার বাড়িতে গিয়ে ল্যাপটপটি উদ্ধার করি।

বেগম রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ রুবায়াত ইয়াসমিনের সাথে বারবার যোগযোগের চেষ্ঠা করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘রোকেয়া হল থেকে চুরির দায়ে এক ছাত্রীকে আটক করা হয়। গতকাল রাতে হল কর্তৃপক্ষ ও পুলিশের সাথে আলাপ-আলোচনা করে মেয়েটিকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

আরও অন্যান্য সংবাদ


Nobobarta on Twitter




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com