বুধবার, ১৫ অগাস্ট ২০১৮, ০২:৩৬ অপরাহ্ন

English Version
শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের ছুরিকাঘাত, তদন্ত কমিটি, হত্যাচেষ্টা মামলা

শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের ছুরিকাঘাত, তদন্ত কমিটি, হত্যাচেষ্টা মামলা

Rajshahi university



জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি: বান্ধবীকে উত্যক্তের প্রতিবাদে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) মাস্টার্সের এক শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের প্রথম বর্ষের কর্মীরা। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টেডিয়ামের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আজ বৃহস্পতিবার এ ঘটনায় নগরীর মতিহার থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ছুরিকাঘাতে গুরুতর জখম সাইফুল ইসলাম হৃদয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের এমবিএ’র শিক্ষার্থী। তিনি এখন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অভিযোগ ওঠা ছাত্রলীগ কর্মী হামজা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সাদ্দাম হোসেনের অনুসারী।

হামজার দাবি তিনি ছুরিকাঘাত করেনি; তার সাথে থাকা অন্য দুইজন ছুরিকাঘাত করেছে। তবে ওই দুইজনের নাম পরিচয় তিনি বলতে রাজি হয়নি। অন্যদিকে হামজা ছাত্রলীগের কর্মী নয় দাবি করে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, ‘হামজা ছাত্রলীগের কর্মী নয়; তবে সে ছাত্রলীগে যোগ দিতে আগ্রহী তাই অন্যদের সাথে আমাদের কর্মসূচিতে আসে।’ এ ঘটনায় জড়িত হামজাকে ঘটনাস্থল থেকে ধরে পুলিশে দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

এ ঘটনায় ছাত্রলীগ কর্মী হামজার বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগী সাইফুল ইসলাম হৃদয়। মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মাহবুব জানান, হামজার নাম উল্লেখ করে ও বাকি দুইজন অজ্ঞাতনামার নামে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেছে হৃদয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে হামজাকে বুধবার আদালতে পাঠানো হয়েছে।

একই ঘটনায় পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বৃহস্পতিবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি প্রক্টর হাসানুর রহমানকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, ‘একজনকে ধরে পুলিশে দেওয়া হয়েছে। তার বিরুদ্ধে পুলিশ আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও বিষয়টি খতিয়ে দেখতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা যে সুপারিশ করবে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এদিকে, প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী কর্তৃক মাস্টার্সের শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত করার ঘটনার প্রতিবাদ ও দোষীকে শাস্তির দাবিতে অনশন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী প্রসেনজিৎ কুমার। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে তিনি অনশন করে প্রতিবাদ করেন। পরে প্রক্টর ও ছাত্র উপদেষ্টা কথা বলে তাকে তুলে দেয়।

প্রসঙ্গত, গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় দুই বন্ধু ও এক বান্ধবীর সঙ্গে হৃদয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বিজ্ঞান ভবনের সামনে গল্প করছিলেন। তখন পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় ছাত্রলীগ কর্মী মো. হামজা ও অপর দুইজন হৃদয়ের বান্ধবীকে উত্যক্ত করেন। এনিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে হৃদয় তার বান্ধবিকে হলে পৌঁছে দিয়ে একা ফেরার পথে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টেডিয়ামে পৌঁছালে তার পথরোধ করে হামজাসহ তিনজন। একপর্যায়ে হামজা হৃদয়ের পেটের নিচের অংশে ছুরি মারে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

Please Share This Post in Your Social Media




Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com