,

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কেরানীগঞ্জে সরিয়ে নিতে নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ক্যাম্পাস কেরানীগঞ্জে সরিয়ে নিতে শিক্ষামন্ত্রীকে পরিকল্পনা করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক, একাডেমিক, আবসিক কার্যক্রম ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় হতে পারে না উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রীকে এ ধরনের পরিকল্পনা করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এমন নির্দেশ দিয়েছেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম।

শফিউল আলম এ বিষয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‍‘বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষামন্ত্রীর কাছে জানতে চান, হলের দাবিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য কি ব্যবস্থা নিয়েছেন? জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কেরানীগঞ্জে ছাত্রদের জন্য আবাসিক হল করে দেওয়া হবে। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ২৫ বিঘা জমি আছে। আর ছাত্রী হোস্টেল হবে বর্তমান ক্যাম্পাসের পাশেই। বর্তমান ক্যাম্পাসের মধ্যে ২০ তলা প্রাশাসনিক ভবন নির্মিত হচ্ছে।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী রাগান্বিত কণ্ঠে বলেন, ‘এটা কোন ধরনের পরিকল্পনা? ছাত্ররা থাকবে কেরানীগঞ্জে, এক জায়গায় প্রশাসনিক ভবন আর অন্য জায়গায় ছাত্রী হল? এটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থা হতে পারে না। এটা অস্থায়ীভাবে চলতে পারবে। কিন্তু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থায়ীভাবে পরিচালনার জন্য একটি পরিপূর্ণ পরিকল্পনা প্রয়োজন। সেই ভাবে পরিকল্পনা করুন। একটি অখণ্ড জমিতে হল, হোস্টেল, প্রশাসনিক ভবন, টিএসসিসহ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য যার যা দরকার তা যেন করা যায়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কেরানিগঞ্জে কি আর জমি ছিল না? সেখানে কি বেশি করে জমি কিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব এক জায়গায় করা যেতো না?’ পরে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষামন্ত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ব্যবস্থা এক জমিতে করতে পরিকল্পনা করার নির্দেশ দেন। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘পুরাতন জেলখানা বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্য। এখানে বঙ্গবন্ধু বন্দি ছিলেন, সেখানে চার জাতীয় নেতাকে হত্যা করা হয়। কাজেই এ বিষয়গুলো বাংলাদেশের ইতিহাসের সঙ্গে সম্পৃক্ত। এই ইতিহাস সংরক্ষণে এখানে একটি জাদুঘরসহ পুরাতন ঢাকাবাসীর জন্য একটি কনফারেন্স রুম, বিপণী বিতান, পার্ক হবে। পুরাতন জেলখানার জমি এসব কাজে ব্যবহার করা হবে, অন্য কোনও কাজে নয়।’

প্রসঙ্গত, পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারের জায়গায় হলের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনে তারা গণস্বাক্ষর ও অনেশন কর্মসূচি পালন করেন। এ নিয়ে জবি শিক্ষকদের সঙ্গে কয়েক দফা বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। বৈঠকে এক প্রকার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, কেরানীগঞ্জে জবির নিজস্ব জমিতে ছাত্রদের ও পুরান ঢাকার বর্তমান ক্যাম্পাসে ছাত্রীদের জন্য আবাসিক হল নির্মাণ করা হবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com