সোমবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, ১০:৪৬ অপরাহ্ন

English Version
নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্সি জালিয়াতিতে জবি ছাত্রলীগ নেতার নাম

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্সি জালিয়াতিতে জবি ছাত্রলীগ নেতার নাম



  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ  জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় (জাককানইবি) ২০১৭-১৮শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষের ডি ইউনিট (দ্বিতীয়) শিফট ভর্তি কার্যক্রমে দ্বিতীয় দিনে মৌখিক পরীক্ষায় প্রক্সি জালিয়াতির সন্দেহে এক শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে। আটকৃত শিক্ষার্থীর স্বীকারোক্তিতে এই প্রক্সি চক্রের সাথে জড়িত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের এক (০১) নেতার (অর্ক) নাম এসেছে।

জানা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের এই নেতা (লোকপ্রশাসন) বিভাগের শিক্ষার্থী। সে আটক শিক্ষার্থী জাহিদ হাসানের প্রক্সি বাবদ ব্যাংক মারফত তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। ১১ ডিসেম্বর (শনিবার) দুপুরে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে বদলি পরীক্ষার্থীর মাধ্যমে উর্ত্তীন হয়ে মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহনের সময় জাহিদ হাসান জিওন নামে এই শিক্ষার্থীর উত্তরপত্রের লেখা ও স্বাক্ষরের সঙ্গে হাতের লেখা ও স্বাক্ষরের মিল না পাওয়ায় সাক্ষাৎকার দিতে আসা এই শিক্ষার্থীকে প্রক্সি জালিয়াতি সন্দেহে আটক করেছে পরীক্ষা কমিটির সমন্বয়কারীরা।

ডি ইউনিট পরীক্ষা কমিটি সদস্য সহকারী অধ্যাপক শাহজাদা আহসান হাবীব জানান, ‘সামাজিক বিজ্ঞান ডীন অফিসে শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণকালে মেধাক্রম অনুযায়ী জিওন হাসান সাক্ষাৎকার দিতে আসে ছেলেটির দেওয়া স্বাক্ষরের সাথে কর্তৃপক্ষের কাছে থাকা স্বাক্ষরের মিল না পাওয়ায় তাকে সন্দেহমূলকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে জাহিদ স্বীকার করেছে যে সে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়নি। তার হয়ে অন্য একজন ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছে’।তিনি আরো বলেন, ‘পরীক্ষা কমিটি খুব সতর্কতার সাথে পরিক্ষার্থীদের যাচাই বাছাই প্রক্রিয়া চালিয়ে যাচ্ছে এবং কাউকে সন্দেহজনক মনে হলে সাথে সাথে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে’। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহিদুল কবীর বলেন, ‘ছেলেটি সাক্ষাৎকার দেয়ার সময় স্বাক্ষরের সাথে মিল না পাওয়াই ডীন অফিস তাকে আটক করে পরে আমাদের খবর দিলে আমরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জিওন স্বীকার করেছে তার হয়ে অন্য একজন ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছে। পরে আমরা তাকে পুলিশে সোর্পদ করি’। বিশ্ববিদ্যালয়ের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এসআই) কামরুল হাসান বলেন, ‘ছেলেটিকে থানায় আনা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে’।

লাইক দিন

Please Share This Post in Your Social Media




Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.



© 2018 Nobobarta । Privacy PolicyAbout usContact DMCA.com Protection Status
Design & Developed BY Nobobarta.com