,

নিয়ম মেনে চলুন সতেজ থাকুন

বিশেষ উৎসবকে কেন্দ্র করে নিজের যত্নে রূপচর্চার জন্য কিছুটা সময় আলাদা করে রাখা হলেও অন্য সময় ব্যস্ততার জন্য তা আর হয়ে উঠে না। তাই প্রতিদিনের জীবনযাপনে ত্বক ও চুলের উজ্জ্বলতায় একটু সময় করে যত্ন নিন। নিয়মিত পরিচ্ছন্ন থাকা এবং সুস্থ জীবনযাপনই আপনাকে দিতে পারে সতেজ আমেজ।

ভোরে ঘুম থেকে ওঠা
প্রতিদিন নিজেকে সতেজ দেখতে ভোরবেলায় ঘুম থেকে উঠুন। সূর্যের প্রথম আলোকরশ্মিতে থাকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ডি, যা ত্বককে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। এ ছাড়া ভোরের বাতাস মনকে প্রফুল্ল করে।

এক চিরুনি সবাই নয়
অনেকের বাসায় একই চিরুনি সবাইকে ব্যবহার করতে দেখা যায়। এটা করা মোটেও ঠিক নয়। কারণ একেকজনের মাথার ত্বকের ধরন একেক রকমের হয়ে থাকে। যে কারণে মাথার ত্বকে নানা ধরনের সংক্রমণ হতে পারে। একই কারণে একজনের তোয়ালেও অন্যজনের ব্যবহার করা ঠিক নয়।

চুলে তেল চাই নিয়মিত
চুল সতেজ রাখতে তেলের ব্যবহার গুরুত্বপূর্ণ। যেদিন শ্যাম্পু করবেন, তার ঠিক আধঘণ্টা আগে চুলে তেল লাগিয়ে নিন। এতে চুল তো সুন্দর হবেই বাড়তি কন্ডিশনারেরও প্রয়োজন হবে না। একইভাবে গোসলের পর ত্বকের ধরন বুঝে ময়েশ্চারাইজার বা তেল লাগাতে পারেন।

সকালেই গোসল
প্রতিদিনের পরিচ্ছন্নতায় গোসলের কোনো বিকল্প নেই। গোসল তো প্রতিদিন সবাই করেন, তবে সকালবেলার গোসলটা বেশ উপকারী। শরীরের অভ্যন্তরীণ গঠনের কাজগুলো সাধারণত রাতেই হয়ে থাকে। যে কারণে সকালে লোমকূপে অনেক টক্সিন (বিষ) জমে। এ জন্য সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠে গোসল করলে শরীর তো পরিষ্কার হয়ই পাশাপাশি মনটাও হয় ফুরফুরে। যদি বাইরে কোনো কাজ থাকে তাহলে গোসলের পরপরই হালকা সুগন্ধি ব্যবহার করুন। একইভাবে বাইরে থেকে বাড়ি ফিরে গোলাপ, বেলি বা কোনো সুগন্ধি ফুলের পাপড়ি মেশানো পানি দিয়ে মুখটা পরিষ্কার করে নিন। কারণ সুগন্ধি মনকে সতেজ করতে সাহায্য করে।

হাঁটা জরুরি
সুস্থ থাকতে শরীরচর্চার কোনো বিকল্প নেই। তবে যাদের আলাদা করে শরীরচর্চার সময় মিলবে না তাদের জন্য প্রতিদিন আধঘণ্টা হাঁটাই যথেষ্ট। কাছাকাছি দূরত্বে কোথাও যেতে যানবাহন ব্যবহার না করে হাঁটা ভালো। দূরে কোথাও গেলে যেখানে যাচ্ছেন তার এক স্টপেজ আগে নেমে হেঁটে যেতে পারেন। তবে আস্তে নয় হাঁটতে হবে দ্রুত।

নজর দিন পুষ্টির দিকে
শরীরচর্চা ও পরিচর্যার পাশাপাশি পুষ্টির দিকেও নজর দিতে হবে। প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় অবশ্যই ভিটামিন এ, সি, ই এবং প্রোটিন থাকতে হবে। এগুলোর কোনো একটার ঘাটতি হলেই মলিন হয়ে উঠবে ত্বক ও চুল। এ ছাড়া ত্বক ও চুলের সতেজতা ধরে রাখতে প্রতিদিন অবশ্যই আড়াই লিটার পানি পান করার পরামর্শ দিলেন এই পুষ্টিবিদ। তিনি জানান, প্রতিদিন এক গ্লাস দুধ ও ডিম খেলে এমনিতেই উজ্জ্বল হয়ে উঠবে ত্বক ও চুল।

ছোট ছোট পরিবর্তনেই ফুরফুরে
অনিয়ন্ত্রিত জীবনচর্চা যেমন বেশি রাতজাগা, দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা, পরিমিত পুষ্টিকর খাবার না গ্রহণ এবং অপরিচ্ছন্ন থাকলে এর একটা প্রভাব তো বাহ্যিক সৌন্দর্যে পড়বেই। তাই জীবনযাপনে ছোট ছোট পরিবর্তন এনে আপনিও সব সময় থাকতে পারেন সতেজ ও ফুরফুরে। এ জন্য প্রতিদিন আট ঘণ্টা করে ঘুমানো, পরিমিত পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ, নিয়মিত হাঁটা ও পরিচ্ছন্ন থাকা—এসব মেনে চলাই যথেষ্ট।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com