,

ঢাকা উত্তর সিটি মেয়র পদে বিএনপির আলোচনায় সম্ভাব্য ৪ প্রার্থী

ইয়াসিন মাহমুদ জিবরান # রাজধানীর ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র  সদ্য প্রয়াত আনিসুল হকের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে মেয়র পদ শূন্য হয়েছে। যে কোন সময় র্নিবাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে।  তবে ২৮ শে ফেব্রুয়ারির মধ্যে যে কোন দিন র্নিবাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন র্নিবাচন কমিশন। পদ শূন্য হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে উপ-নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন মেয়র নির্বাচন করার বিধান রয়েছে।

আনুষ্ঠানিক কোনও আলোচনা না হলেও দলের তৃণমূল থেকে হাইকমান্ড পর্যন্ত বিএনপির নির্বাচনে অংশ নেওয়া না নেওয়া, সুষ্ঠু নির্বাচন হবে কিনা এবং দলে প্রার্থী কে হতে পারেন- এ নিয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা শুরু হয়ে গেছে। ইতোমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে বিএনপি ও জোটের চার নেতার নাম নিয়ে ভাবতে শুরু করেছে দলের হাইকমান্ড। র্নিবাচন প্রক্রিয়া সুস্থ ভাবে সম্পন্ন হলে  তাদের র্প্রাথী বিজয় লাভ করবে বলে আশাবাদী বিএনপি এই চারজন হলেন- গত নির্বাচনে অংশ নেয়া বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়াল, ভাইস-চেয়ারম্যান ও গুলশান এলাকার সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মেজর (অব) কামরুল ইসলাম, দলের ভাইস-চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু এবং ২০ দলীয় জোটের শরীক দল বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (জেপি) চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, আলোচনার শুরুটা করেছেন চেয়ারপারসন নিজেই। আনিসুল হকের দাফনের পর বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে দলের বেশ কয়েকজন সিনিয়র ও প্রধানশালী নেতা মিলিত হয়েছিলেন দলের সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে নিয়ে একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে। অনুষ্ঠানের পর দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, মীর্জা আব্বাস ও ড. মঈন খান চেয়ারপারসনের সাথে আলাদাভাবে দেখা করেন।

এ ছাড়াও বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমদ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাকসহ বেশ কয়েকজন নেতাও দেখা করেন। আলোচনায় উঠে আসে সিটি র্নিাবচনে বিএনপি অংশ নিলে কাদেরকে র্প্রাথী দেওয়া যায় এবং মাঠ র্পযায়ে কোন নেতার জনপ্রিয়তা বেশি । আনুষ্ঠানিক ভাবে দলের পক্ষ থেকে এখনো কোন কিছু জানানো হয়নি । তৃণমূল নেতার্কমীর ধারণা সেই দিক মাথায় রেখেই দলের র্প্রাথী ঘোষণা করবে হাইকমান্ড। মেয়র পদশূন্য হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বিএনপির কেন্দ্রীয় পর্যায়ে বিষয়টি আলোচনা হওয়ায় এই বার্তা পাওয়া যায়, যে আগামী মেয়র নির্বাচনে ক্ষমতাশীন দলকে কোন প্রকার ছাড় দিতে চাচ্ছে না বিএনপি।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন

নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আরও অন্যান্য সংবাদ


Udoy Samaj

টুইটর




Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com